বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ফিলিপাইনস: গণহত্যার এক মামলা নিয়ে অনলাইনে ক্ষোভ

0001ampatuan-300x199
ফিলিপাইনস সরকার সম্প্রতি কুখ্যাত আম্পাতুয়ান গোত্রের অন্যতম দুই সদস্যের বিরুদ্ধে বহুবিধ খুনের অভিযোগ প্রত্যাহার করে নিয়েছে, যারা ২০০৯ সালের নভেম্বর মাসে মাগুইন্দানাও-এ, ৫৭ জন মানুষ হত্যার সাথে যুক্ত ছিল। এই হত্যাকাণ্ডে নিহতদের মধ্যে ৩১ জন সাংবাদিকও ছিল। এই ঘটনা, ফিলিপিনোদের মধ্যে এক ক্ষোভের আগুন ছড়িয়ে দেয়। এক সংবাদ সূত্রানুসারে এই তথ্য জানা যাচ্ছে।

মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ স্বায়ত্তশাসিত মিন্দানাও-এর বরখাস্তকৃত গর্ভনর জালদি আমপাতুয়ান এবং তার চাচাতো ভাই আকমেড আমপাতুয়ান, যিনি মাগুইন্দানাও-এর ভারপ্রাপ্ত সহকারী প্রশাসক ( ভাইস গভর্নর) ছিলেন, তাদের বিরুদ্ধে যে সমস্ত অভিযোগ ছিল, তা প্রত্যাহার করে নেওয়া হবে।

ওই গণহত্যার মূল পরিকল্পনাকারী হিসেবে এই দুই ব্যক্তিকে প্রাথমিক ভাবে অভিযুক্ত করা হয়, যে গণহত্যা সারা বিশ্বের নিন্দা কুড়ায়।

অতীতে ফিলিপাইনস-এর ব্লগস এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, মাগুইন্দানাও হত্যাকান্ডের উপর আলোকপাত করেছেনানাভাবে এই গণহত্যার কথা স্মরণ করা হয় এবং আদালতে চলতে থাকা এই গণহত্যার মামলার উপর ফিলিপাইনসের লক্ষ লক্ষ নাগরিক উৎসুক হয়ে নজর রাখছে, যারা এই ঘটনার শিকার ব্যক্তিদের জন্য ন্যায়বিচার প্রত্যাশী।

এটা কোন বিস্ময়কর কোন বিষয় নয় যে ফিলিপাইনের সামাজিক প্রচার মাধ্যম এবং ব্লগ আরো একবার সরকারি আইনজীবীর সিদ্ধান্তের দিকে তার আঙ্গুল নির্দেশ করছে। টুইটারে তার কিছু উদাহরণ:

রিকি কারানডাং: বিচার বিভাগের সচিব আল আগরা: এমন কোন তথ্য নেই যাতে প্রমাণ করা যায় যে এই দুই আম্পাতুয়ান মাগুইন্দানাও-এর হত্যাকাণ্ডের পরিকল্পনা করেছিল। তিনি কি কোন একটা লিখিত স্মারকলিপি খুঁজে পাবার আশা করেন?
ট্রাইবঙ্গ_উপস: বিদ্রোহের অভিযোগ, কারণ প্রথমেই আমি বুঝতে পারি এটা নির্বোধ একটা কাজের জন্য জায়গা তৈরি করা, যা অবশ্যই বেআইনি কাজ। এখন খুনের অভিযোগ? ফিলিপাইনে কি এখনো কি ন্যায় বিচারের জন্য জায়গা রয়েছে?
গিগলিঙ্গপাপি: কোন শব্দে তা ব্যাখ্যা করা যায় না… ভয়াবহ বীভৎস!! আমি আর তাকাতে পারিনি।: (শান্তিতে ঘুমাও মাগুইন্দানাও-এ গণহত্যার শিকার মানুষেরা। তাদের জন্য ন্যায় বিচার প্রয়োজন)
ট্রাইমাইকুঙ্গ: ফিলিপাইনস-এ আপনাদের স্বাগতম, যেখানে আপনারা মজা আর লাভের জন্য ৫৭ জন মানুষকে মেরে ফেলতে পারেন এবং বিনা বাঁধায় ঘুরে বেড়াতে পারেন।
নাটিবেক৩আর: জালদি ও আকমাদ আম্পাতুয়ান উপর থেকে অভিযোগ তুলে নেওয়া, যে কেবল নিহতদের আত্মীয়দের ক্ষুব্ধ করে তুলবে তা নয়, একই সাথে তা দেশের জনতাকে ক্ষুব্ধ করে তুলবে।

এ্যাট মিডফিল্ডের জন্য,

আভিযোগ প্রত্যাহার, গণহত্যার শিকার যে সমস্ত ব্যক্তি তাদের আত্মীয়দের ক্ষুব্ধ করে তুলেছে, যারা সব সময় শঙ্কা প্রকাশ করেছে যে, রাষ্ট্রপতি গ্লোরিয়া-মাকাপাগাল আরোয়ো গোপনে এই দুই আম্পাতুয়ানকে রক্ষা করতে চাইছেন, কারণ এরা লম্বা সময় ধরে তার রাজনৈতিক মিত্র, জাতীয় সামরিক বাহিনীর মোকাবেলা করার জন্য তারা তাদের নিজস্ব বাহিনীকে অস্ত্রে সজ্জিত করেছে।

নিউ ফিলিপাইন রেভিলিউশন থারণা করছেন যে. সম্প্রতি আম্পাতুয়ানদের সাথে সরকারের সর্ম্পকের এই উন্নয়ন, মাগুইনানাও এলাকার শান্তিরক্ষার প্রয়োজনে ঘটেছে। বিশেষ করে সেই প্রদেশে ধারাবাহিক ভাবে কয়েকটি বোমা বিস্ফোরণের মত ভয়াবহ ঘটনার পরেই সম্পর্কের এই উন্নয়ন ঘটে।

আমরা সকলেই ভালোভাবে জানি যে, এই ঘটনা যারা ঘটাচ্ছে আম্পাতুয়ানরা তাদের প্রতিপক্ষ বা এ রকম কিছু একটা। আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভেঙ্গে পড়া এবং বিদ্রোহের উপাদান সমৃদ্ধ প্রদেশে তারা পাল্টা ভারসাম্য বজায় রাখার জন্য প্রয়োজনীয় শক্তি। সামরিক বাহিনীর অনেকে বিশ্বাস করে যে, জালদি এখনো তার তথাকথিত “যাদুকরী” ক্ষমতা দিয়ে মাগুইন্দানাও দ্বীপে প্রায় প্রতিদিন যে সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ছে, তাকে থামাতে পারেন।

এ মাসের শুরুতে আম্পাতুয়ানদের বিরুদ্ধে আদালতে বিদ্রোহের অভিযোগ বাতিল করার এক সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ছাত্ররা প্রতিবাদ করে। তারা বলে যে, বিদ্রোহের মামলা এমনভাবে সাজানো হয়েছে, যাতে সন্দেহজনক ব্যক্তিরা ছাড়া পায়।

রাষ্ট্রপতি আরোয়ো তার মাগুইন্দানাও-এর মিত্রদের অভিযোগ থেকে মুক্ত করার জন্য যে ভাবে অভিযোগ সাজিয়েছেন, আমরা তার নিন্দা জানাই। দুর্বল এবং বাজে ভাবে এই মামলা দায়ের করা হয়, যাতে আম্পাতুয়ানরা তাদের ঘৃণিত কর্মকাণ্ড থেকে অব্যাহতি পায়। এটা প্রমাণ করে যে, ভাবে আরোয়োর সরকার “বিদ্রোহ” শব্দটি নিয়ে পরীক্ষা করছে এবং প্যাঁচাচ্ছে, তা সে করছে তার অসাধু রাজনৈতিক প্রয়োজনে।

আরোয়ো প্রশাসন আম্পাতুয়ানদের বিরুদ্ধে বিদ্রোহের মামলাটিকে প্রদেশটিতে সামরিক শাসন জারীর বিষয়টিকে সঠিক প্রমাণ করার জন্য ব্যবহার করেছে। অন্তত
টনিও ক্রুজের
তাই মনে হয়।

তথাকথিত আম্পাতুয়ান বিদ্রোহ যা রাষ্ট্রপতি আরোয়োর সামরিক শাসনকে বৈধ করার কাজে ব্যবহার করছে, তা দৃশ্যত ভালো মনে হচ্ছে, যেন এতে তিনি তার কর্মকাণ্ডকে অর্থপূর্ণ এবং সুদৃঢ় করছেন। এতে দেখা যাচ্ছে যে, তিনি গণহত্যার শিকার মানুষগুলোর পরিবারের প্রতি সহানুভূতিশীল এবং জনতার ন্যায়বিচারের দাবিকে সমর্থন করেন, এই বিষয়টিকে বিশ্বাসযোগ্য করার জন্য রাষ্ট্রপতি আরোয়ো সামরিক শাসন প্রয়োগ করেছেন, আদতে তা এক ধোঁকাবাজির অংশ। আম্পাতুয়ানদের বিচারের হাত থেকে পুরোপুরি মুক্ত করার যে যাত্রার শুরু হল, আজ আমরা সেই দৃশ্য দেখতে পেলাম।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .