বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

পুয়ের্তো রিকো: ‘জীবন এমনই’

সরকারী প্রকল্প পোর্টাল দেল ফুটুরা পুয়ের্তো রিকোর পূর্ব দিকে ভূতপূর্ব চিবার ইউএস ন্যাভেল বেস রুজভেল্ট রোডস এর পুন: উন্নয়নের কাজে ব্যস্ত। এই প্রকল্পের ব্যবস্থাপক পরিচালক জেমি গঞ্জালেজ বিলাস বহুল মেগা রিজোর্ট রিভারে দেল চারিবের নির্মাণকে সমর্থন করেছেন স্থানীয় মানুষকে এই বলে যে তাদেরকে বুঝতে হবে যে এই ধরনের স্থাপনায় তারা ঢুকতে পারবেন না কারণ ‘জীবন এমনই’। তিনি গত মাসে একটা ফোরামে বাসিন্দাদের প্রতি এই মন্তব্য করেন। এই বাসিন্দাদের বেশীরভাগ সামাজিক আর আর্থিক অসচ্ছল পরিবেশে বাস করেন কিন্তু সম্প্রতি তারা অনেক মনোযোগ পেয়েছে এমন মাত্রায় যে এখন ইউটিউবে এটা নিয়ে একটা ভিডিও আছে:

গঞ্জালেজ অবশ্য বলেছেন যে তার কথা ভুলভাবে উপস্থাপিত হয়েছে, কিন্তু একই সাথে বুঝতে পেরেছেন যে তিনি হয়তো অপমানজনক ভাবে কথা বলেছেন যা দ্বীপের পূর্ব দিকের বাসিন্দাদের কাছে স্পর্শকাতর ভাবে খারাপ লেগেছে। পুয়ের্টো রিকোর গভর্নর লুইস ফুরটুনো, গঞ্জালেজকে চাকুরি থেকে অপসারণ করেছেন, যদিও প্রথমে তিনি বলেছিলেন এমন করবেন না। পুয়ের্টো রিকোর ব্লগাররা কিভাবে প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছেন জানতে, গঞ্জালেজের মন্তব্যের কিছু অংশ এখানে দেয়া হল:

Vamos a hacer unas tiendas, que algunas de las tiendas tendrán productos que no los van a poder comprar, pues ‘such is life’. No todo el mundo ha sido tan agraciado. Pero no hay exclusión aquí de nadie (…) Y el que no tiene ni siquiera 50 chavos pa’ comprarse un límber por lo menos puede disfrutar de caminar libre de costo por esos paseos peatonales frente al mar y ver los cruceros llegar y ver a los pasajeros, los pasajeros con chavos, bajarse del crucero y verlos meterse en las tiendas y verlos comprando cosas caras y al que le cree eso complejo, pues lo siento mucho por ustedes, porque la vida es así, no todo el mundo nació tan agraciado…

আমরা আরো কিছু দোকান তৈরি করবো , কিছু এমন পণ্য বিক্রি করবে যা আপনারা কিনতে পারবেন না। কিন্তু এটাই জীবন।। সবাই এত ভাগ্যবান না। কিন্তু এখানে কোন নিষেধ আরোপ হয় নি…আর যে ব্যক্তির কাছে ৫০ সেন্ট নেই লিম্বার (পুয়ের্তো রিকোর বিশেষ মিষ্টি) কেনার, তারা অন্তত সমুদ্রের ধার দিয়ে হাঁটতে পারবেন আর জাহাজ আসা দেখতে পারেন, আর যাত্রীদের দেখতে পারেন, বিত্তবান যাত্রী, যারা জাহাজ থেকে নেমে দোকানে গিয়ে দামী জিনিষ কিনছে, আর এর ফলে যে হীনম্মন্যতায় ভুগবেন এটার জন্য, আমি আপনার জন্য দু:খিত…কিন্তু এটাই জীবন। সবাই এত ভাগ্যবান না…

পোদের, এস্পাসিও ওয়াই আম্বিয়ান্তে ব্লগে এরিকা ফোন্টানেজ লিখেছেন:

Estas comunidades han estado batallando para que los terrenos de Ceiba respondan a aliviar el abandono que han tenido por décadas, a propiciar verdaderos proyectos de desarrollo para lograr mejorar su calidad de vida y atender sus necesidades. Después de todo, estas comunidades han sido las que han sufrido por décadas la falta de recursos, como por ejemplo el agua, y la pobreza producto de que su territorio ha respondido a fines militares. Ahora con el cierre de la base, luego de que los movimientos civiles lograran desmilitarizar el área, ven una ventana para que se les haga justicia, pero el gobierno, tanto el central como el municipal tienen otros planes: el llamado “Plan del Portal”que dirige quien vergonzozamente les habló. Nuevamente se les da la espalda. Este funcionario les dice que si son pobres…pues, “Such is life”.

এই স্থানীয়রা চেষ্টা করছে যাতে চিবার উন্নয়নের ফলে তারা যে দশকের পর দশক ধরে অপ্রাপ্তির মধ্যে আছে সেটা দূর হয়, আসল উন্নয়ন প্রকল্পকে তুলে ধরা যেটা তাদের চাহিদার সাথে মিল রেখে হবে যাতে তারা ভালো একটা জীবন পায়। সব বাদ দিলেও, এইসব লোকেরা কয়েক দশকের নাগরিক সুবিধা ছাড়া কষ্ট ভোগ করেছে, যেমন পানি, আর দারিদ্রের মধ্যে বাস করেছে, (আমেরিকান) সেনা কর্তৃক তাদের ভূমির ব্যবহারের কারনে। এই বেইস বন্ধ করার পরে, জনগণের আন্দোলনের মাধ্যমে এলাকা থেকে সেনাবাহিনীকে বিতারিত করা হয় এবং পরিশেষে সম্ভাবনার একটা দুয়ার দেখছে যেটা তাদেরকে ন্যায় বিচার এনে দেবে। কিন্তু কেন্দ্রীয় আর স্থানীয় সরকারের অন্য পরিকল্পনা আছে: তথাকথিত ‘পোর্টাল প্ল্যান’ – সেই ব্যক্তির নেতৃত্বে, যে এত নির্লজ্জ ভাবে তাদের সাথে কথা বলেছে। আবার তাদেরকে পরিত্যাগ করা হয়েছে। এই সরকারী কর্মচারী তাদেরকে বলেছে যে তারা যদি দরিদ্র হয়… তাহলে এটাই জীবন।

তিন্তা ডিজিটালে, ইউজিনিও মার্টিনেজ রড্রিগজ মন্তব্য করেছেন:

Lástima que este nuevo gobierno con el ñe ñe né venga a desarticular la única propuesta social que pienso que tiene potencial en la actualidad: los movimientos de autogestión comunitaria que han logrado combinar esfuerzos de líderes de base, intelectuales de la academia y hasta grandes empresas privadas. Primero Río Piedras, después el Caño, ahora Ceiba. La tendencia es clara.

এটা দু:খজনক যে নতুন নির্বাচিত সরকার তার ছেলেভুলানো কথা দিয়ে বাতিল করে দিয়েছেন একমাত্র সামাজিক প্রকল্প যেটা আমি বিশ্বাস করি এই সময়ে সব থেকে বেশী সম্ভাবনাময়। তাদের লক্ষ্য এই স্ব-নির্ভর তৃণমূল আন্দোলন যা সম্প্রদায়ের নেতা, শিক্ষাবিদ আর এমনকি প্রাইভেট সেক্টরের উদ্যোগকেও একত্র করতে পেরেছিল। প্রথমে রিও পিদ্রাস তারপরে এল কানো, এখন চিবা। নকশা পরিষ্কার।

ব্লগার এঞ্জেলিকা গিসেলে বলেছেন যে তিনি লজ্জিত বোধ করছেন:

Me apena, me da verguenza y me siento sumamente indignada por estas expresiones. Cómo es posible que entre nosotros mismos, los puertoriqueños, nos aplastemos mutuamente??? Es una falta de respeto hacia los recidentes de Ceiba y hacia la comunidad pobre de este país lo que el Sr.González dijo. Aunque más tarde pidió disculpas por sus expresiones me molesta. Me molesta que hablemos así y que nos despreciemos de esa manera. Yo como puertoriqueña no puedo quedarme callada y dejar de informarle a las personas lo que este gobierno quiere hacer poco a poco. Quieren ir privatizando todo y cada vez ir echando a los pobres a un lado. Porque en vez de crear cosas para los millonarios, no se ponen a crear centros públicos para que la comunidad pobre tenga sitios de entretenimiento gratuito??

এইসব কথা আমাকে দুঃখিত, লজ্জিত আর প্রচণ্ড বিরক্ত করে তুলেছে। এটা কিভাবে সম্ভব যে আমরা, পুয়ের্তো রিকানরা একে অপরকে এভাবে চেপে দিচ্ছি? জনাব গঞ্জালেজ যা বলেছেন তা চিবার বাসিন্দা আর এই দেশের দরিদ্র গোষ্ঠীদের জন্য অসম্মান জনক, যদিও পরে তিনি বলেছেন যে তিনি দু:খিত। পুয়ের্তো রিকান হিসাবে মানুষকে না জানিয়ে আমি চুপ করে বসে থাকতে পারি না যে এই সরকার ধীরে ধীরে কি করতে চাচ্ছে। তারা সব কিছু বেসরকারীকরণ করতে চাচ্ছেন আর দরিদ্র দের কোন ঠাসা করতে চাচ্ছেন। তারা কেন সরকারীভাবে কিছু জায়গা তৈরি করেন না দরিদ্র দের জন্য যেখানে তারা বিনা মূল্যে অবসর যাপন করতে পারে কোটিপতিদের জন্য জিনিষ তৈরি না করে?

ব্লগুয়েন্দোতে সাংবাদিক জুলিও রিভেরা সানিয়েল এই ঘটনার ব্যাপারে একটা মত দিয়েছেন:

Las declaraciones de González han abierto de par en par las puertas a las ideas que son la raíz misma de las actuaciones de estos funcionarios. Los pobres son prescindibles si sus terrenos son necesarios para promover capital privado. Y como esa parece ser la máxima del gobierno, la disculpa es solo un tiro al aire para desviar la atención.

গঞ্জালেজের ঘোষণা এইসব কর্মকর্তার কাজের ভিত্তির ধারণা সম্পর্কে সত্য উন্মোচন করেছে। দরিদ্রদেরকে বাতিল করা যায় যদি তাদের ভূমির প্রয়োজন হয় প্রাইভেট পুঁজি বাড়াবার জন্য। আর যেহেতু এটা সরকারের লক্ষ্য বলে মনে হচ্ছে, তার ক্ষমা প্রার্থনা বাতাসে গুলি করে জনগণের মনোযোগ অন্যদিকে ঘোরাবার মত।

আগুনে আরো ইন্ধন যোগাচ্ছে এই ব্যাপার যে জেমি গঞ্জালেজ তার মন্তব্য এমন সময়ে করেছেন যেটা এই দ্বীপের জন্য কঠিন সময়। অর্থনৈতিক উন্নয়নের সচিব জোসে পেরেজ রিয়েরা খোলাখুলি ভাবে সম্প্রতি বলেছেন যে প্রাইভেট সেক্টর ‘পুয়ের্তো রিকোর মালিক’। তোয়া বাজার ভিলাস দেল সোল এর ২০০ পরিবারকে সরানোর একটা আদেশ এখনো ঝুলে আছে। নতুন ধরনের সম্মিলিত ভূমি মালিকানা প্রকল্প ফিদিয়েকোমিসো দে তিয়েরাস দেল কানো মারটিন পেনাকে সরকার বাতিল করে দিয়েছে যা সম্প্রদায় থেকে ঠিক করা হয়েছিল (কোর্টে কেস আছে)। এবং সম্প্রতি রিও পিয়েদ্রাসে রায়ট হয় (যেখানে পুয়ের্তো রিকো বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ক্যাম্পাস অবস্থিত) যখন বিশেষ পুলিশ বাহিনী সেখানে আসে একটা ছাত্রকে সরাতে যে মদ্য পান করছিল। পুলিশ ছাত্রদের উদ্দেশ্যে কাঁদুনি গ্যাস ছোঁড়ে, যারা এর প্রতিবাদে চিৎকার করে আর পুলিশের দিকে জিনিষ ছুঁড়ে মারে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .