বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

জাপান: ইতালীতে খাবারে অতিরিক্ত দাম রাখার কারণে জাপানী পর্যটকদের প্রতিক্রিয়া

গতবারের চেয়ে এবার রোমে জাপানী পর্যটক কমে গেছে। পর্যটক কমে আসার কারণ কেবল অর্থনৈতিক দুরবস্থা নয়, ইতালীর রেস্টুরেন্ট ও হোস্টেল গুলোতেও পর্যটক সেবার মান খারাপ হয়ে গেছে, তার কারণে এই ঘটনা ঘটেছে। তার সাথে পর্যটকরা তাদের পকেট অথবা মোবাইল ফোন নিয়ে চিন্তিত, কারণ অতিরিক্ত দাম। ফলে জাপানী পর্যটকরা এখন অন্য কোন নিরাপদ গন্তব্যের সন্ধানে ছুটছে।

কয়েক সপ্তাহ আগে এক সংবাদে প্রকাশিত হয় যে, জাপানী এক দম্পতি রোমের কেন্দ্রস্থলের এক বিখ্যাত রেস্টুরেস্ট প্রতারিত হয়েছে। এই রেস্টুরেন্ট এক সাধারণ মানের দুপুরের খাবারের জন্য ৭০০ ইউরো বিল করেছে। জাপানের নাগরিকরা এখন বিরক্ত। কারণ সবাই ভাবে তার খুব ধনী, তাদের সহজেই প্রতারিত করা যায়, যেন সহজে দুধ দোয়ানো যায়।

japroma

ইতালীর রাজধানী রোমের বিএন্ডবির ম্যানেজার মোশিমোশি এক জাপানী নাগরিক। উক্ত রেস্টুরেন্টেই এই দুর্ভাগা জাপানী দম্পতিকে আতিথ্য দিয়েছিল। মোশিমোশি ব্যাখা করেন সেদিন কি ঘটেছিল এবং তার লেখার শিরোনাম দেন, “কোন ভাবেই আমি যা সহ্য করতে পারি না”(絶対に許せない!!)।

今日警察に行ってきました。というのも最近B&Bのお客様が被害にあわれて、その再確認に行ってまいりました。

その被害とは、簡単に説明すると二人でランチを食べたら700ユーロ、(約10万円)という法外な値段をぼったくられた、という被害です。

আজকে আমি পুলিশের কাছে গিয়েছিলাম,
আমার কয়েকজন গ্রাহক, বাজে খাবারের বেশী দামের শিকার এবং আমি তা যাচাই করতে সেখানে যাই।

খুব সাধারণ ভাষায় ব্যাখা দিতে গেলে বলতে হবে যে সেখানে প্রতারণার ঘটনা ঘটেছে, এই দুজনের কাছ থেকে মাত্রাতিরিক্ত বেশী দাম রাখা হয়েছে এবং সেই টাকা তাদের প্রদান করতে বাধ্য করা হয়। কেবল দুপুরের একবেলা খাবারের জন্য তাদের ৭০০ ইউরো (১০০.০০ ইয়েন/৬৯৩০০ টাকা প্রায়) ধরা হয়েছে।

信じられます?700ユーロですよ!!
許せない!!という事で警察に行き調書をとりました。
しかもそのレストランはガイドブックにのっており、「日本語のメニューがあり、良心的な値段!!」なんて書いてあります。
確かにそのお客様は、メニューも見ずにおまかせで料理を持ってきてもらったそうです。
でもそれにしても700ユーロって・・・・
イタリア人みんなに言われました「どうして払ってしまったんだ?」と。でも想像してください、食べたのに払わずにレストランの外に出たりできますか?私自身は文句を言うにしても、最終的に払わずに外に出たりできないと思います。

আপনি কি এটা বিশ্বাস করতে পারেন? ৭০০ ইউরো!!!
আমি এই বিষয়টি সহ্য করতে পারছি না। কাজেই আমি এ ব্যাপারে অভিযোগ করতে পুলিশের কাছে গিয়েছিলাম। আর কি? এই রেস্টুরেন্টের একটা গাইড বইয়ে লেখা রয়েছে এখানে জাপানী খাবার পাওয়া যায়, ন্যায় মুল্যে! এটা সত্য যে ওই সমস্ত গ্রাহকেরা খাবারের দামের তালিকা যাচাই করে না এবং রেস্টুরেন্ট তাদের যা খেতে পরামর্শ দেয় তাই আনতে বলে, কিন্তু তাই বলে ৭০০ ইউরো…

ইতালীর লোকজন আমাকে বলেছে, কেন উক্ত দম্পতি খাবারের বিল পরিশোধ করলো?
কল্পনা করার চেষ্টা করুন, আপনি কি কোন খাবারের দোকান থেকে, খাওয়ার পর বিল না দিয়ে বের হয়ে আসতে পারবেন? যদিও আমি ব্যাক্তিগতভাবে অভিযোগ করেছি, কিন্তু এই ধরনের ঘটনায়, আমিও টাকা প্রদান না করে বের হয়ে আসতে পারতাম না।

私がそう言うとイタリア人は口をそろえて「だから日本人はぼられるんだ!!」
と言います。でもそんな事が許されていいのでしょうか?
「黙っているから、だましてもいい」なんて国があっていいのでしょうか?私は断じて戦います。そんな事が許されていいと全く思いません。今日私を呼び出した警察も、「観光客のイタリアの思い出がそんなに醜いものになるのは一イタリア人として許せない!!彼らはイタリアの恥だ!!」とそのレストランを厳しく罰する事を誓ってくれました。

এবং তারা আমাকে বলেছে যে, কেন জাপানী লোকদের কাছে বেশী টাকা রাখা হয়!!

কিন্তু আপনি কি তা সহ্য করতেন? এই দেশের লোকদের জন্য এই চিন্তা কি ভালো যে, “যেহেতু তারা কোন অভিযোগ করছে না, তাহলে আমি তাদের ঠকাতে পারি”? আমি এই ধরনের মানসিকতার বিরুদ্ধে লড়াই করবো, কারণ আমি বিশ্বাস করি এই ধরনের ঘটনা সহ্য করা অসম্ভব। এছাড়াও পুলিশ অফিসার আমাকে আজ বলছে যে ওই রেস্টুরেন্টেকে বিশাল অংকের টাকা জরিমানা করা হবে। একজন ইতালিয়ান হিসেবে আমি সহ্য করতে পারি না যে, ওই সমস্ত পর্যটকরা তাদের স্মৃতিতে ইতালী সমন্ধে এক ভয়াবহ ধারনা নিয়ে যাবে! ওই লোকেরা ইতালীর জন্য লজ্জা!!”

তবে এক জাপানী ব্লগার ওই সমস্ত পর্যটকদের দিকে আঙ্গুল তুলেছেন, যারা ভাবেন, বিদেশে তারা জাপানের মতো মানসম্পন্ন পণ্য ও সেবা পাবেন, যা জাপান নিশ্চিত করেছে।

まあ、ありえる話かな、って感じ。
日本は今こんな不景気だから減って不思議でないし、日本人が言う「イタリアのサービスの悪さ」はなにも今に始まったことじゃないから。。。
ただ「サービス悪い」のは何もイタリアだけじゃないと思う。

আমি ততটা বিস্মিত নই। এই অর্থনৈতিক মন্দার সময়ও এটা কোন অদ্ভুত ব্যাপার নয় যে জাপানী পর্যটকের সংখ্যা হ্রাস পেয়েছে। জাপানীরা যে এই খারাপ ইতালিয়ান সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে অবদান রাখছে তা নতুন বা সাম্প্রতিক কোন ঘটনা নয়। তরেচেয় বড় কথা এই খারাপ সেবা কেবল ইতালীর (সমস্যা) একার বিষয় নয়।

[…]

それに、、、
海外行って、「日本のようなサービスを受けよう」と思ってるのが、根本的に間違ってると思うよ。
で、サービスの点で、日本と外国の認識の違い、ぜったいあるはず。
日本は「黙っていても何かしてもらえる」と思うのがサービス。
(いわゆる「お客様は神様です」的に・・・)
でも、あちらへ行ったら、、、
「自分で欲することを自分で要求」した上で「相手に仕事をしてもらう」のがサービス(の一つ)。
この他にも相違点たくさんあるのに、あちらのことを知らずに、、[…]
そんな認識で海外行かれちゃうのが、ウチらには恥ずかしいわいっ!

এর বাইরে… আমি বিশ্বাস করি যে “বিদেশেও আমরা জাপানের মতো সেবা পাবো” এই মৌলিক ভাবনায় একটা সমস্যা রয়েছে।
এই বিষয়ে জাপান ও অন্য সব দেশের মধ্যে অবশ্যই বেশ পার্থক্য রয়েছে। জাপানে সেবাকে বিবেচনা করা হয় “কোন কথা না বলে সকল কাজ করা হিসেবে” (এই প্রবাদ অনুসারে, “গ্রাহকেরাই ঈশ্বর”…)

কিন্তু বিদেশ (অনেক তাই মনে করে) সেবা হচ্ছে “এমন কিছু যা কোন কিছু অনুরোধ করার পর পালন করা হবে”।
এবং তার সাথে অনেক দিক রয়েছে যার মধ্যে সেবার পার্থক্য রয়েছে, ওই সমস্ত দেশে যাওয়ার সময় এই বিষয়গুলো হিসেব না করে যাওয়া…
[…] এবং যারা এই সমস্ত [সামান্য] ধারণা নিয়ে বিদেশ যায়, তারা জাপানীদের জন্য লজ্জা।

বিদেশী পর্যটকদের কাছ থেকে বেশী দাম নেওয়া ইতালীর লোকদের জন্য নতুন কোন বিষয় নয়। দুভার্গ্যজনক ভাবে, বিশেষ করে তাদের জন্য, যারা পর্যটন নগরীতে বাস করে যেমন, রোম।

এই জন্য নয় যে, সারা বিশ্বে ইতালিয়ানদের কম লজ্জিত জাতি হিসেবে বিবেচনা করা হয়, যারা কলোসাসের সামনে প্রতারনা করে।

লা’ইজোলা ডে রিওত্তোসি একজন ইতালিয়ান ব্লগার এবং এই বিষয়ে তিনি তার হতাশা ব্যাক্ত করেছেন।

Ci stiamo rovinando con le nostre stesse mani. Come dico spesso, la meschinità sta diventando uno dei capisaldi del nostro popolo. Tanto che il turismo rischia di sentirne. E parecchio. In particolare, il numero di turisti giapponesi che si recano a Roma si è dimezzato rispetto al 1997. Motivi? Le strade dell'Urbe sono sporche, e specialmente c'è un ricchissimo business delle Truffe! […]E giustamente queste cose non passano inosservate, dato che ne parlano pubblicamente all'estero, in questo caso il Giappone, dove adesso Roma viene vista come una bellissima città d'arte ma anche come un “macchina succhia soldi”.

আমরা নিজে নিজেদেরকে চালাই। আমি যা বলতে চাই, সাধারণভাবে জাতি হিসেবে আমাদের সমন্ধে খারাপ ধারণা তৈরী হচ্ছে, এটা বাড়তে থাকলে এর কারণে পর্যটন ব্যবসা ক্ষতিগ্রস্থ হবে। অনেক বেশী ক্ষতিগ্রস্থ হবে। বিশেষত বিশাল সংখ্যাক জাপানী পর্যটকের সংখ্যা। যারা ১৯৯৭ সালের পর থেকে রোমে বেড়াতে আসতো তাদের সংখ্যা অর্ধেক হয়ে গেছে, কেন? কারণ ইতালীর রাস্তাগুলো নোংরা ও সেখানে খাবারে মাত্রাতিরিক্ত দাম রাখা হয়, যা কিনা অনেক লাভজনক ব্যবসা! […] এবং অবশ্যই এই সমস্ত বিষয়কে উপেক্ষা করা যায় না। এই সমস্ত বিষয় নিয়ে বিদেশে আলোচনা করা হয়। এই ক্ষেত্রে রোম, জাপানে কেবল এক সুন্দর শহরই নয়, সে “টাকা চুষে নেবার এক যন্ত্র” বিশেষ।

আরেকজন ইতালিয়ান ব্লগার, আইডি:ড্রাগোর পরিস্কার করেন, রোমের দোকানদাররা একজন পর্যটককে কি দৃষ্টিতে দেখে।

PER GLI ITALIANI gli stranieri sono una massa d’imbecilli che aspettano soltanto di farsi fregare. Si considerano molto furbi e credono che tutti gli altri siano ingenui. La loro fantasia per tirare la botta è incredibile. […] Ma il massimo della fantasia si esercita nella fregatura individuale, che in molti casi si manifesta con il prezzo ad hoc. In un bar di Roma, mia moglie ha ordinato un caffè in francese. Le è stato fatturato 5 euro. Quando ho fatto notare nella lingua di Dante che era un furto, ho ricevuto questa risposta: “Dovevi dirlo subito che sei italiano. Quello è il prezzo per gli stranieri.”

ইতালিয়ানদের চোখে পর্যটকরা একদল বোকা মানুষ, যারা ঠকার অপেক্ষায় রয়েছে। দোকানদাররা নিজেদের খুব চালাক মনে করে ও ভাবে, যে অন্যরা একেবারে সাদামাটা। যে চিন্তা তাদের মাথায় আসে যে কাউকে ঘুরিয়ে আনা এক অশ্রদ্ধায়। […] কিন্তু সবচেয়ে সেরা যে চিন্তাটা তাদের মাথায় আসে একজনের কাছ থেকে গলা কাটা দাম নেওয়া, যার ফলাফল, এ রকম যে, পণ্যের দামের কোন স্থায়িত্ব থাকে না।

রোমের এক পানশালায়, আমার স্ত্রী ফরাসী ভাষায় কফির আদেশ দেয়। তারা তাকে এর জন্য পাঁচ ইউরোর এক বিল দেয়। কাজেই যখন আমি তাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করি, দান্তের ভাষায় যে এটা একটা প্রতারণা, আমি এই উত্তরই পেলাম: “তারা আমাকে বললো যে তুমি প্রথমেই বলতে যে তুমি ইতালিয়ান। আমারা বিদেশীর কাছ থেকে এই মুল্যই নিয়ে থাকি”।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .