বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

নিকারাগুয়া: সাম্প্রতিক নির্বাচনে প্রতারণা নিয়ে উদ্বেগ

সম্পাদকের টীকা: নীচেরটা আলভারো বেরোটেরানের ব্লগ নিকারিয়াগুয়া ঈ সু ব্লগে একটি লেখার সারসংক্ষেপের ভাষান্তর এবং লেখকের অনুমতি নিয়ে ব্যবহৃত।

Election

গত ৯ই নভেম্বরের সাধারণ নির্বাচনের সময়ে মানাগুয়ার রাস্তাই একমাত্র জায়গা ছিল না যেখানে নিকারাগুয়ার দুই প্রধান রাজনৈতিক দলের সমর্থকরা অবস্থান নিয়েছিল। তাদেরকে সরব উপস্থিতি সামাজিক নেটওয়ার্কিং সাইট যেমন ফেসবুক আর টুইটারেও পাওয়া যাচ্ছিল। কিছু ক্ষেত্রে তারা কার্যত মুখোমুখী হয়েছে, যেখানে লেখার শব্দ অপর দলের বিরুদ্ধে অস্ত্র হিসাবে ব্যবহৃত হয়েছে আর ব্লগাররাও এক্ষেত্রে পেছনে থাকেননি। তবে আশার বিষয় অনলাইনে হয়েছে বলেই এসব সংঘর্ষের ফলে কোন হতাহতের দেখা পাওয়া যায়নি।

কিছু ব্লগার মিউনিসিপাল নির্বাচনের ফলাফলের উপর তাদের মতামত জানিয়েছেন, যেমন ঈ আহোরা দে কু ভামোস আ হাব্লার? ব্লগ লিখেছে বিরোধী দলের পরাজয় নিয়ে:

Sorpresa para mucha gente, el partido de gobierno ha ganado las elecciones municipales, obteniendo el control de una gran mayoría de alcaldías por todo el país, con un porcentaje total de votos a nivel nacional mucho mayor que el que obtuvo en las pasadas elecciones.

অনেকের জন্য এটা বিষ্ময়কর ছিল যে সরকারী দল মিউনিসিপাল নির্বাচন জিতেছে দেশের অনেক জায়গার মেয়রের দায়িত্বের বিশাল সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়ে, যেখানে মোট ভোটের শতকরা ভাগ জাতীয় পর্যায়ে নির্বাচনে পাওয়া ভোটের থেকে অনেক বেশী।

কিন্তু একটা বিষয় যা অনেক ব্লগে বারবার উঠে আসছিল হচ্ছে সরকারী দল এফএসএলএন কর্তৃক প্রতারণার অভিযোগ। এটি যারা দাবী করে তেমন একটি ব্লগ হচ্ছে চেপে ভেলেজ যেটি লিখেছে:

La transparencia con la que se desarrollaron estas elecciones municipales dió la razón al Magistrado de Rivas cuando este se negó a acreditar observadores nacionales. En Nicaragua no necesitamos más observadores, con nosotros basta y sobra. Miles de ciudadanos de todos los rincones del país denuncian con nombres y apellidos, algunos con actas y boletas en las manos, el fraude que llevará a los candidatos danielistas a las sillas del poder local. La serie de trucos es larga y va desde la negación de entrega de cédulas a ciudadanos independientes, la emisión de tales documentos a menores de edad relacionados con “el partido”, la múltiple votación de militantes de la dictadura, anulación de boletas no afines, cierre anticipado de juntas receptoras, hasta llegar a la apertura de juntas clandestinas o virtuales. El fraude fue claro y lo observamos todos. A pesar del fraude quedó la evidencia de lo que realmente fue una abrumadora derrota al danielismo. Con tantos trucos aun se nota la grandeza del rechazo a la dictadura de la familia Ortega Murillo.

যে স্বচ্ছতার মধ্য দিয়ে নির্বাচন হয়েছে তা প্রমান করে যে বিচারক রিভাজ সঠিক ছিলেন, যখন তিনি জাতীয় পর্যবেক্ষকদের জন্য সম্মতি দেননি। নিকারাগুয়ায় আমাদের আরো পর্যবেক্ষকদের প্রয়োজন নেই, আমরা নিজেরাই যথেষ্ট। সারা দেশের বিভিন্ন কোনা থেকে নাগরিকরা অভিযোগ করে প্রথম আর শেষ নাম নিয়ে, কেউ কেউ হাতে ব্যালট নিয়ে। প্রতারণার মাধ্যমে ড্যানিয়েল ওরতেগার প্রার্থীরা ক্ষমতায় যাওয়ার চাবিকাঠি স্থানীয় আসনগুলো পেয়েছে। তাদের চালাকির তালিকা লম্বা আর শুরু হয়েছে স্বাধীন নাগরিকদের পরিচয়পত্র দিতে মানা করার মাধ্যমে। আইডি বিতরণ করা হয়েছে ভোটের উপযোগী হবার চেয়ে কম বয়সীদের মধ্যে, যাদেরকে ‘দলের’ সাথে সম্পৃক্ত করা হয়েছিল; একানায়কতন্ত্রের দলের সদস্যদের মিউনিসিপালে ভোট দান, ব্যালট বাতিল করা, কেন্দ্র তাড়াতাড়ি বন্ধ করে দেয়া, এমনকি লুকানো বা কার্যত ভোট কেন্দ্র খোলা। প্রতারণা পরিষ্কার ছিল আর আমরা সবাই তা দেখেছি। প্রতারণা সত্বেও ডানিয়ালিসমোর পরাজয় বিষ্ময়কর ছিল। এতো কৌশল সত্তেও এটা পরিষ্কার ছিল যে অর্তেগা মুরিল্লোর একানায়কতন্ত্রের পরিবারকে জনগণ বাতিল করেছে।

আর এখন, লিওনেল ডেলগাডো নোটাস রিগোরোসাস ব্লগে লিখেছেন যে বেশীরভাগ প্রতিবেদন প্রচারণা রাজধানী ভিত্তিক:

Managua se traga toda la atención, los medios hablan de y desde Managua. Managua bendice o maldice y así fabrica verdades.

A la mitad de la población del país, más o menos, no le interesan las elecciones municipales, la otra mitad tiende a estar polarizada entre sandinistas y liberales.

মানাগুয়া সমস্ত মনোযোগ কেড়ে নিয়েছে, মানাগুয়া নিয়ে আর থেকে মিডিয়া কথা বলছে। মানাগুয়া দোয়া বা বরদোয়া দিচ্ছে, আর সত্য তৈরি করছে।

দেশের অর্ধেক জনসংখ্যা, কম বেশী মিউনিসিপাল নির্বাচন নিয়ে চিন্তিত করেনা, বাকি অর্ধেক সান্দিনিস্টাস আর লিবারেলদের মধ্যে বিভক্ত।

আর একটা ব্লগ যে সুর মিলিয়েছে যে মিউনিসিপাল নির্বাচনে প্রতারণা হয়েছে হচ্ছে কন্ট্রা লা দিক্তাদুরা (একানায়কতন্ত্রের বিরুদ্ধে)। এই ব্লগ আর একটা ব্লগের উল্লেখ করেছেন যে আগে থেকে সম্ভাব্য প্রতারণার কথা বলেছিল আর লিখেছে যে নাগরিকদের বিদ্রোহ করা উচিত নাহলে তারা বিপদে পড়বে:

El 19 de octubre en el post “Cracking the code” un bloguero amigo escribía, entre otras cosas, lo siguiente:

Estoy convencido que en las próximas elecciones habrá fraude y que el momento crítico para desmontar el pacto habrá de empezar el segundo después de anunciado el resultado electoral. Si aceptamos el fraudulento resultado de las elecciones sin protestar, por miedo a que nos garroteen los elementos paramilitares al servicio de Daniel Ortega, tendremos entonces dictadura para rato y en lugar de este temor que ahora nos invade, en los años siguientes estaremos aterrorizados, inmóviles, como el pajarito frente al ojo de la serpiente. Por capearnos hoy un garrotazo estaremos condenando a nuestra descendencia a una vida en el oscurantismo, en el terror.

অক্টোবরের ১৯ তারিখে ‘ক্র্যাকিং দ্যা কোড‘ পোস্টে একজন ব্লগার বন্ধু লিখেছিল:

আমি নিশ্চিত যে পরবর্তী নির্বাচনে প্রতারণা হবে, আর নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণার পরের মুহূর্তে চুক্তি ভঙ্গ হবে সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্ত। আমরা যদি প্রতারণার নিবাচনের ফলাফল কোন প্রতিবাদ ছাড়া মেনে নেই এই ভয়ে যে ডানিয়েল ওরতেগার সংসদীয় সত্বা হয়ে যারা কাজ করছে তারা আমাদেরকে আক্রমণ করবে, তাহলে আমাদের একনায়কতন্ত্রের জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে। আর এখন যে ভীতি আমাদেরকে আক্রমণ করছে তার স্থলে পরবর্তী বছরে আমরা ভীত, চলৎশক্তিহীন হয়ে পড়ব, সাপের সামনে পাখীর মতো। আক্রমণ থামানোর জন্য আমরা আমাদের পরবর্তী প্রজন্মকে ভীতি ও অন্ধকারাছন্ন একটা জীবন দেব।

নির্বাচনের খবর দেয়ার জন্য ব্যবহার করা হয়েছিল হচ্ছে আর একটা টুইটার অ্যাপ্লিকেশন (যেটি উপরের ছবিতে দেখা যাচ্ছে), যেখানে কি ওয়ার্ডগুলো যেমন এফএসএলএন (সান্দিনিশ্তা দল), আলেক্সিস আরগুয়েলো (মানাগুয়ার মেয়র) আবীর্ভুত হয়েছিল ইগোরের সৃষ্টিতে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .