বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

মিশর: ডাক্তাররা হাসপাতালে ব্লাক আউটের সময়কার ভিডিও চিত্র ধারন করেছেন

ইদানিং দেখা যাচ্ছে যে ক্রমবর্ধমান হারে হাসপাতাল গুলো রুগীদের জন্য স্বাস্থ্যসেবা দেবার পরিবর্তে বড় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মতো তাদেরকে মক্কেল হিসেবে ভাবছে। ডাক্তাররা যারা নিজেদের শপথ রক্ষা করতে চায় তাদেরকে দেখতে হবে তাদের হাসপাতাল কর্তৃপক্ষেরও রোগীদের ভালমন্দের চিন্তা যেন সর্বাগ্রে থাকে। মিশরের আল মাত্রায়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গত সপ্তাহের উল্লেখযোগ্য ঘটনা ছিল যে ৪টি শিশু আর ২ জন প্রাপ্ত বয়স্ক যারা জীবন রক্ষাকারী যন্ত্রের উপর নির্ভরশীল ছিল তারা ভোরবেলায় ২ ঘন্টা বিদ্যুত না থাকায় আর ব্যাকআপ জেনারেটর কাজ না করার কারনে মারা যায়। জেইনোবিয়া লিখেছেন:

গত ২২ মে ২০০৮ আল মাত্রায়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বিদ্যুত বিভ্রাটের ফলে একটি দুর্ঘটনা ঘটেছে। হ্যা বিদ্যুত বিভ্রাট হয় ২ ঘণ্টাব্যাপী যার ফলে ৪টি শিশু জন্ম পরবর্তী ইন্টেন্সিভ কেয়ারে মারা যায়।

আপনাদের হয়ত জানেন যে এই ঘটনার তিন সপ্তাহ আগে এই হাসপাতালে এমন একটা বিভ্রাট ৫ মিনিটের জন্য হয়েছিল আর তখনও ইলেক্ট্রিক জেনারেটর কাজ করে নি!!

আপনাদের জন্যে গুরুত্বপূর্ণ আরেককটি তথ্য হল স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় পরিচালিত এই হাসপাতালের প্রশাসন ব্যাপারটি জানত। আর হাসপাতাল প্রশাসন বাচ্চাদের মৃত্যুর সময় বিদ্যুৎ বিভ্রাটের ৩ ঘণ্টা আগে লিপিবদ্ধ করেছে আইনগত জটিলতা এড়ানোর জন্য!!

ডঃ আক্রুত যিনি ইউটিউবে আক্রুত৪এভার নামে পরিচিত এবং তার সাথে আর যেসব ডাক্তার ডিউটিতে ছিলেন তারা তাদের সেলফোনের মাধ্যমে ব্লাক আউটের সময় বাচ্চাদের বাঁচানোর চেষ্টার ভিডিও ধারন করেছেন ও ইউটিউবে প্রকাশ করেছেন। তিনি ভিডিওর বর্ণনাতে বলেছেন (আরবী ভাষায়) যে হাসপাতাল প্রশাসন জানত যে ৩ সপ্তাহ ধরে জেনারেটর কাজ করছে না এবং আগের বার যখন ৫ মিনিটের জন্য বিদ্যুত চলে গিয়েছিল আর জেনারেটর শুরু হতে পারে নি সেটি কোনক্রমেই স্বাভাবিক ছিল না। এই অবহেলার ফলে ২২ শে মে ভোর ৩টায় যখন দুর্ঘটনা হল তখন লাইফ সাপোর্ট মেশিনে বিদ্যুত ছিল না (জেনারেটর কাজ করে নি) আর এর ফলে শিশু গুলো মারা যায়।

নীচের ব্লাক আউটের সময় ডাক্তারদের ধারন করা দুই ভিডিও দেয়া হল যা মেশিনের শব্দ, বাচ্চাদের কান্না আর ডাক্তারদের দুর্দশাগ্রস্ত কথার সাথে বাচ্চাদের বাঁচানোর জন্য এই ডাক্তারদের আপ্রাণ চেষ্টার চিত্র আছে।(১ম এবং ২য় পর্ব- আরবী ভাষায়)

আক্রুত৪এভার এর আপ্লোড করা একটি ভিডিওতে একজন রোগীকে মনিটরের সাথে যুক্ত দেখা যায় যেখানে রোগীর জীবনের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দেখা যাচ্ছে… একমাত্র সমস্যা হল মনিটর ডেমো মোডে দেখাচ্ছে এবং একজন সুস্থ্য রোগীর জন্য আদর্শ মাপকাঠি দেখানো হচ্ছে, আর এই মনিটরের সাথে যুক্ত রোগী আগেই মারা গেছে বেশীর ভাগ কর্মীর অগোচরে:

ইজিপ্সিয়ান ক্রনিকলস ব্লগের জেইনোবিয়া জানাচ্ছেন ড: আক্রুতের পক্ষে সবার জোড়াল সমর্থন রয়েছে। এই ডাক্তার দলের প্রশংসা করা হচ্ছে বাচ্চাদের জীবন বাঁচাতে তাদের আপ্রাণ চেষ্টার জন্য এবং এই হাসপাতালে সত্যিকারের কি হয়েছে তা প্রকাশ করার সাহস থাকার জন্য।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .