গল্পগুলো আরও জানুন আইভরি কোস্ট

আফ্রিকাঃ কাপ অফ নেশনস ২০১২ অনেক বিস্ময় উপহার দিচ্ছে

  7 ফেব্রুয়ারি 2012

আফ্রিকান কাপ অফ নেশনস ২০১২ নামক ফুটবল প্রতিযোগিতা একের পর এক বিস্ময় উপহার দিয়ে চলেছে, যেমন শিরোপার অন্যতম দাবীদার সেনেগাল এবং মরোক্কো, এই প্রতিযোগিতা থেকে বিদায় নিয়েছে। আফ্রিকার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে করা টুইটে এই বিষয়টি প্রদর্শীত হচ্ছে যে পুরো মহাদেশে এই প্রতিযোগিতায় আচ্ছন্ন হয়ে আছে।

আইভোরি কোস্ট: সাংবাদিক গ্রেপ্তারে গোয়েন্দা সংস্থাকে হ্যাকারদের হুমকি

  5 ফেব্রুয়ারি 2012

আইভোরি কোস্টের সাংবিধানিক আদালতের উপর এক বিতর্কিত প্রবন্ধ প্রকাশের কারণে আইভোরি কোস্টের সংবাদপত্র লে পেত্রিওতের ব্যবস্থাপনা সম্পাদক চার্লস সাঙ্গাকে সে দেশের গোয়েন্দা বিভাগ গ্রেপ্তার করে। পরেরদিন বেনামী এক হ্যাকার হুমকি দেয় যে যদি সাঙ্গাকে ছেড়ে না দেওয়া হয়, তাহলে তারা উক্ত প্রতিষ্ঠানের গোপন নথি প্রকাশ করে দেবে।

আফ্রিকা: কাপ অফ নেশনস২০১২- নামক প্রতিযোগীতার শুরু

  27 জানুয়ারি 2012

শনিবার, ২১ জানুয়ারি ২০১২-এ, ইকুয়োটোরিয়াল গিনির বাটায় কাপ অফ নেশনস নামক এক দুর্দান্ত ফুটবল প্রতিযোগিতার শুরু হয়েছে, যা তিন সপ্তাহব্যাপী চলবে। এই প্রতিযোগিতা আফ্রিকার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ আন্তর্জাতিক ফুটবল প্রতিযোগিতা।

আইভরি কোস্টঃ বিশ্ববিদ্যালয় আবার কখন খুলবে?

নির্বাচন পরবর্তী সঙ্কটের সময় থেকে আইভরি কোস্টের তিনটি বিশ্ববিদ্যালয় সাময়িক বন্ধ ঘোষণা করা হয় এবং ছাত্রাবাস থেকে এর বাসিন্দাদের চলে যেতে বলা হয়। এখন বিশ্ববিদ্যালয়সমূহ খোলা নিয়ে যে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে অনেকে তা নিয়ে প্রশ্ন করছে।

আইভরি কোস্ট: বাগবোকে গ্রেফতারের পর চলমান নৃশংসতা

২০১১ সালের ১১ এপ্রিলে বন্দী হবার পর থেকেই আইভরি কোস্টের সাবেক প্রেসিডেন্ট লরা বাগবো, তার স্ত্রী এবং তার অনুসারীদের নানান ছবি ইন্টারনেট আর আন্তর্জাতিক পত্রপত্রিকার মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। বিশেষ করে সাবেক ফার্স্ট লেডিকে আপত্তিকর অবস্থায় দেখানো হয়েছে এমন একটি ছবি নিয়ে অনেকে আপত্তি তুলেছে।

আইভরি কোস্ট: রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন আরটিআই কার নিয়ন্ত্রনে?

  17 এপ্রিল 2011

বর্তমানে আইভরি কোস্টের জাতীয় সম্প্রচার স্টেশন রেডিও টেলিভিশন আইভোরিয়েন (আরটিআই) কার নিয়ন্ত্রনে আছে তা নিয়ে দ্বন্দ্ব দেখা দিয়েছে।

আইভরি কোস্ট: গাবাগাবো প্রতিরোধ করছে, আফ্রিকা প্রতিবাদ

আইভরি কোস্টের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি লরা গাবাগাবো এখনো দেশটির এক বাঙ্কারের মধ্যে অবস্থান করে আছে। সে ২০১০-এর রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে নিজের পরাজয়ের বিষয়টিকে অস্বীকার করে নিজের গ্রেফতার হওয়াকে প্রতিরোধ করে যাচ্ছে। তাকে ক্ষমতা থেকে বিতাড়িত করার লক্ষ্যে ফ্রান্সের সেনাবাহিনী এক অভিযানে অংশগ্রহণ করেছে। বিষয়টি ফরাসী রাজনীতিবীদ এবং নাগরিকদের মধ্যে প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করেছে [ফরাসী ভাষায়], একই সাথে তা ফ্রান্সে বাস করা আফ্রিকার নাগরিক সম্প্রদায়ের মধ্যেও প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করেছে।

আইভরি কোস্ট: টুইটার হ্যাশট্যাগের মাধ্যমে মানবিক সাহায্যের জন্য আবেদন

আইভরি কোস্টের এই বিপর্যয়ের মাঝেও টুইটার হ্যাশট্যাগ # সিভ২০১০ দেশটির প্রয়োজনীয় তথ্য সরবরাহের এক উৎসে পরিণত হয়। তবে অনেক টুইটার ব্যবহারকারী জোরালো কণ্ঠে অভিযোগ করছে যে এই হ্যাশট্যাগটি দ্রুত টু্ইটারে উভয় দলের সমর্থকদের পরস্পরকে হামলার এক ক্ষেত্রে পরিণত হয়। এই প্রেক্ষাপটে মানবিক সাহায্যের আবেদনের জন্য #সিভসোশাল নামে নতুন এক হ্যাশট্যাগ তৈরি করা হয়েছে।

আইভরি কোস্ট: বিদেশী হস্তক্ষেপ কি বৈধ?

  6 এপ্রিল 2011

আইভরি কোস্টের ক্ষমতার দ্বন্দ্ব হয়ত শীঘ্রই আবিদজানে শেষ হবে, যেখানে আলাসানে ওয়াট্টারার অনুগত বাহিনী রিপাবলিকান ফোর্স (এফআরসিআই) ৪ এপ্রিল, সোমবার লরা গাবাগাবোর বাহিনীর নিয়ন্ত্রণাধীন এই শহরটি দখলের জন্য এক আক্রমণের সূচনা করে। জাতি সংঘ এবং ফরাসী বাহিনী এই দ্বন্দ্বে হস্তক্ষেপ করেছে, আর বিষয়টির বৈধতা নিয়ে ওয়েবে এক লম্বা বিতর্ক শুরু হয়েছে।

আইভরি কোস্ট: আবিদাজানে গাবাগাবোর শাসনামলের অন্তিম মূহূর্তগুলো

গত দুইদিন আইভরি কোস্ট নানা ঘটনা এবং পাল্টা ঘটনা ঘটেছে। ওয়াট্টারার অনুগত বাহিনী দেশটির দেশটির দক্ষিণ এবং পশ্চিমে এক আক্রমণ পরিচালনা শুরু করেছে। তিন দিনের কম সময়ে তারা ডুয়েকোউয়ে এলাকার শহরগুলো দখল করে নেবার মত সফলতা অর্জন করে এবং মার্চের ৩০ তারিখে এই বাহিনী ইয়ামোউসোউক্রু পর্যন্ত পৌঁছে যায়। আবিদজানের কারগার থেকে বন্দীদের পালিয়ে যাওয়া, আরটিআই নামক রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন চ্যানেলের বন্ধ হয়ে যাওয়া এবং গাবাগাবো কোথায় রয়েছে, সেই সব খবরের উপর আইভরি কোস্টের নাগরিকরা তাদের প্রতিক্রিয়া প্রদর্শন করেছে।