বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

নাইজেরীয় রাজনীতিবিদরা ধর্মঘটরত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের ভুলে নির্বাচনী প্রচারে মশগুল

নাইজেরিয়ার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি স্নাতক সমাপনী অনুষ্ঠান। ফ্লিকারের ছবি রাজমুন্ড দাব্রোস্কি/এএনএন, ৭ জুন, ২০০৯। (সিসি বাই-এনসি-এনডি ২.০)।

নাইজেরিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়গুলির একাডেমিক কর্মী ইউনিয়ন (এএসইউইউ) ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২২ থেকে একটি “সম্পূর্ণ এবং ব্যাপক” ধর্মঘটে রয়েছে, যা নাইজেরিয়ার কেন্দ্রীয় অর্থায়িত সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে বন্ধ করতে বাধ্য করেছে। গত দুই মাস ধরে অনেক নাইজেরীয় শিক্ষার্থী তাদের একাডেমিক ক্যালেন্ডারে বাধা কমানোর জন্যে বাড়িতে বসে লড়াই করছে।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রভাষকদের দাবিতে ইউনিয়ন ও সরকার ঐকমত্যে পৌঁছাতে না পারায় ধর্মঘটের ঘটনা ঘটে।

নাইজেরিয়ার ১৭০টি বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে কেন্দ্রীয় সরকার ৪৩টি চালায়, ৪৮টি রাজ্য সরকারের মালিকানাধীন ও পরিচালিত এবং বাকি ৭৯টি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সঙ্গে ২০০৯ সালের চুক্তি বাস্তবায়নে সরকারের অক্ষমতাই এই ধর্মঘটের অন্যতম প্রধান কারণ। এএসইউইউ সরকারকে “বিশ্ববিদ্যালয়গুলির পুনরুজ্জীবনের জন্যে প্রায় ৮৮ হাজার কোটি নায়রা ” (প্রায় ১৯ হাজার কোটি টাকা) অর্থ প্রদানের প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ  এবং ২০২২ সালের বাজেটে প্রতিশ্রুত অর্জিত একাডেমিক ভাতাগুলিকে মূলধারায় নিতে অস্বীকার করার দায়ে অভিযুক্ত করেছে

একজন এএসইউইউ প্রধান অধ্যাপক আয়ো আকিনওল আরো দুঃখ প্রকাশ করে বলেছেন যে ” নাইজেরিয়ার রাজনীতিবিদরা বিশ্বের সবচেয়ে বেশি বেতনপ্রাপ্তদের মধ্যে থাকলেও নাইজেরিয়ার প্রভাষকরা বিশ্বে একেবারে ন্যূনতম বেতনপ্রাপ্তদের মধ্যে রয়েছেন। আর অধ্যাপকরা মাসে ১,০০০ মার্কিন ডলারেরও কম আয় করেন।” নাইজেরিয়ার আইনপ্রণেতারা বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ বেতনভোগী যাদের একেকজনের এক বছরের আয় ১,৫০,০০০ থেকে ১,৯০,০০০ ডলার (প্রায় ১ কোটি ৩০ থেকে ৬৫ লক্ষ টাকা) এর মধ্যে।

শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রী ক্রিস এনগিজের মাধ্যমে সরকার বলেছে যে ধর্মঘটকারী শিক্ষকদের দাবি মেটাতে তাদের কাছে তহবিলের অভাবের কথা বললেও অচলাবস্থা নিরসনের অভিপ্রায়ে ২ মার্চ শিক্ষা মন্ত্রণালয় এএসইউইউ এর সাথে আলোচনার জন্যে একটি কমিটি গঠন করে

অনেক বেশি এএসইউইউ ধর্মঘট?

এএসইউইউ এর প্রথম ধর্মঘটটি ছিল তৎকালীন শাসক সামরিক শাসনের স্বৈরাচারী বাড়াবাড়ির বিরুদ্ধে যার ফলশ্রুতিতে ৭ আগস্ট, ১৯৮৮ তারিখে ইউনিয়নটিকে নিষিদ্ধ করা হয়। তখন থেকে এএসইউইউ সরকারের সাথে আলোচনার উপায় হিসাবে ক্রমাগত ধর্মঘট করতে শুরু করে।

একটি নাইজেরীয় অনলাইন সংবাদপত্র প্রিমিয়াম টাইমসের প্রতিবেদন অনুসারে নাইজেরিয়া গণতান্ত্রিক বেসামরিক শাসনে ফিরে আসার পর ১৯৯৯ সাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা ৫০ মাসের সমতুল্য ১৫ বার ধর্মঘটে গেছেন। ২০২০ সালে এএসইউইউ এর ধর্মঘট একটি পূর্ণ একাডেমিক সেশনের সমতুল্যনয় মাস স্থায়ী হয়েছিল। একটি স্থানীয় সংবাদপত্র নাইজেরীয় ট্রিবিউনের একটি সম্পাদকীয় আরো জোর দিয়ে বলেছে যে “১৯৯৯ এবং ২০২০ সালের মধ্যে এএসইউইউ মোট ১,৪৫০ দিনের জন্যে ১৭ বার ধর্মঘট করেছে। এর মানে হলো এএসইউইউ প্রতি ১৫ মাসে একবার ধর্মঘট করেছে এবং তা ২১ বছরে প্রায় চারটি পূর্ণ পঞ্জিকা বছর।”

সাকুল্যে এই ধর্মঘটের প্রভাব দেশের বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার উপর একটি বিধ্বংসী প্রভাব ফেলেছে। “শিক্ষার্থীদের একাডেমিক কর্মক্ষমতা প্রতিকূলভাবে প্রভাবিত এবং সমগ্র শিক্ষা ব্যবস্থা প্রায় বিকল। এর ফলে অর্ধপ্রস্তুত শিক্ষার্থী এবং বেকার স্নাতক যাদের নাইজেরিয়া ও বাকি বিশ্বের গতিশীল পরিবেশে বেঁচে থাকার জন্যে প্রয়োজনীয় মৌলিক দক্ষতা নেই,” একটি অনলাইন সংবাদপত্র দ্য ক্যাবল এভাবেই বিলাপ করেছে

সংবেদনশীলতাহীন ও নির্বোধ একটি সরকার?

এএসইউইউ ধর্মঘট নাইজেরীয় সরকারের নিছক “সরকারি শিক্ষার প্রতি আগ্রহের মৌলিক অভাব” এর একটি প্রতিফলন, এমন যুক্তি করেছেন বৈদেশিক সম্পর্ক পর্ষদের (সিএফআর) আফ্রিকা শিক্ষার অধ্যাপক ও সিনিয়র ফেলো ইবেনেজার ওবাদারে।

সরকারি শিক্ষার প্রতি সরকারের অসংবেদনশীলতার এই দাবি নাইজেরিয়ার অন্যান্য সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইউনিয়নগুলির ধর্মঘটেও স্পষ্ট।

বিশ্ববিদ্যালয়গুলির নন-একাডেমিক কর্মী ইউনিয়ন (এনএএসইউ) এবং নাইজেরীয় বিশ্ববিদ্যালয়গুলির জ্যেষ্ঠ্য কর্মীদের ইউনিয়ন (এসএসএএনইউ) ২০২২ সালের ২৭ মার্চ তারিখে একটি সতর্কতামূলক ধর্মঘট শুরু করে। অভিযোগের ভিত্তি ছিল সরকারের কর্মীদের কল্যাণে ইউনিয়নগুলির সাথে অক্টোবর, ২০২০ এবং ফেব্রুয়ারি, ২০২১-এ করা চুক্তিগুলো না মানা। ২১ এপ্রিল তারিখে “ইউনিয়নের দাবিগুলোর প্রতি নাইজেরীয় সরকারের অব্যাহত নীরবতার” পরে ধর্মঘট একমাসের জন্যে বাড়ানো হয়েছিল।

ধর্মঘটের স্রোত নাইজেরিয়ায় সরকারি শিক্ষার দুর্বল তহবিলের সাথে সংযোগহীন নয়। ২০২১ সালের বাজেটে শিক্ষার জন্যে বরাদ্দ করা ১ লক্ষ ৯ হাজার কোটি নায়রা (প্রায় ২৪ হাজার ২০০ কোটি টাকা) ছিল এক দশকের মধ্যে সর্বনিম্ন। একটি নাইজেরীয় নাগরিক সংস্থা বাজ_আইটি-এর একটি বিশ্লেষণে বলা হয়েছে যে এটি “শিক্ষার জন্যে দেশের বাজেটের ১৫ থেকে ২০ শতাংশ” প্রতিশ্রুত বরাদ্দের ইউনেস্কো মানদণ্ডের নিচে নেমে গেছে।

নাইজেরীয় সরকার বিশ্ববিদ্যালয়গুলির তহবিলকে গুরুত্ব সহকারে নেওয়ার আশা করলে শিক্ষা বাজেট ” ১ লক্ষ ৯ হাজার কোটি নায়রা (প্রায় ২৪ হাজার ২০০ কোটি টাকা) নয়, ২ লক্ষ ৩ হাজার কোটি থেকে ২ লক্ষ ৭০ হাজার কোটি নায়রার (প্রায় ৪২ হাজার ২৮৭ থেকে ৫৬ হাজার ২৪৪ কোটি টাকা) মধ্যে থাকা উচিৎ,” একটি নাইজেরীয় অর্থনৈতিক থিঙ্ক ট্যাঙ্ক বাজ_আইটি জোর দিয়ে বলেছে

নির্বাচনী প্রচারণার জন্যে সুশাসন স্থগিত

এনগিগে এবং তার সমকক্ষ শিক্ষা উপমন্ত্রী এমেকা নওয়াজিউবা উভয়েই ধর্মঘটকারী এএসইউইউ’র সাথে আলোচনায় কেন্দ্রীয় সরকারের প্রতিনিধিত্ব করছেন। উভয় মন্ত্রীই নাইজেরিয়ার শীর্ষ রাষ্ট্রপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার অভিপ্রায়ও ব্যক্ত করেছে।

এএসইউইউ ধর্মঘটে থাকাকালীন শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী ১০ কোটি নায়রা (প্রায় ২ কোটি ৮ লক্ষ টাকা) মূল্যের রাষ্ট্রপতি পদের একটি নির্বাচনী ফর্ম কিনেছেন৷ শ্রম ও উৎপাদনশীলতা মন্ত্রীও রাষ্ট্রপতি হতে চান। শিক্ষার মূল মন্ত্রী ভৈতিক কর্মীর মতো হলেও ৭ বছর যাবৎ তিনি চাকরি ধরে রাখতে পেরেছেন। বিয়োগান্তক হাস্যরস।

দুঃখজনকভাবে এটি নাইজেরিয়ায় সুশাসন স্থগিত করা হয়েছে এমন ধারণা দেয়। নাইজেরীয় শিক্ষার্থীরা সারা বছর বাড়িতেই কাটালেও মন্ত্রীরা তাদের নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে।

এএসইউইউ একটি বধির সরকারের সাথে আলোচনা করার সময় নাইজেরীয় ট্রিবিউন পত্রিকার সম্পাদকীয় থেকে ইউনিয়নের কৌশলটি পুনর্বিবেচনা করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। তা না হলে “অনেকেই এএসইউইউ ধর্মঘটকে পেশা হিসেবে গ্রহণ করেছে বলে মনে করা”র ঝুঁকিতে থাকবে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .