বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

আঞ্চলিক ভাষা নিয়ে ফরাসী সরকারের উল্টো হাঁটা

বাস্ক প্রদেশে নিমগ্ন শিক্ষণের সমর্থনে প্রতিবাদ-বিক্ষোভ দেখানো একটি ইউটিউব ভিডিওর পর্দাছবি

ফ্রান্সের ভাষা নীতিমালা দেশজুড়ে ২০ টিরও অধিক সংখ্যালঘু ভাষার ব্যবহার উপেক্ষা বা নিষিদ্ধ করে দীর্ঘকাল ধরে ফরাসিকে একমাত্র “প্রজাতন্ত্রের ভাষা” বানিয়ে রেখেছে। একবিংশ শতাব্দীতে দ্রুত এগিয়ে যাওয়ার সময় আঞ্চলিক সংস্কৃতিতে নতুনভাবে আগ্রহ সৃষ্টির পাশাপাশি কিছু কিছু আইনী ব্যবস্থা গ্রহণের কারণে মনোভাব বদলেছে। ফ্রান্সের আঞ্চলিক ভাষাগুলি রক্ষা করার লক্ষ্য নিয়ে এ বছরের মে মাসে একটি নতুন আইন পাস এই বিতর্কটিকে আবার উস্কে দিয়েছে।

নতুন আইনটির নাম আঞ্চলিক ভাষা সুরক্ষা ও প্রচারের উদ্দেশ্যে আইন, ২১ মে ২০২১। আঞ্চলিক ভাষা ব্যবহারের ক্ষেত্রে কিছু অগ্রগতিকে উৎসাহিত করা এই আইনটির নেতৃত্ব দেওয়া এমপি সাংসদ পল মোলাক এর নামানুসারে এটি মোলাক আইন নামেও পরিচিত। আইনটি প্রথমত “জাতীয় সম্পদ” হিসেবে মর্যাদা দিয়ে এবং দ্বিতীয়ত, আঞ্চলিক ভাষাগুলির শিক্ষাকে সমর্থন করার মধ্য দিয়ে এই ভাষাগুলির সামগ্রিক গুরুত্বকে স্বীকৃতি প্রদান করেছে। এই আইনটি এমনকি স্থানীয় কর্তৃপক্ষগুলিকে “দ্বিভাষিক শিক্ষার বেসরকারি স্কুলগুলির শিক্ষা খরচে অবদান রাখতে বাধ্য করে থাকে।”

তবে এই আইনটিতেও বেশ কয়েকটি ত্রুটি রয়েছে এবং আঞ্চলিক ভাষাগুলির দুটি ক্ষেত্রে বৈষম্য অব্যাহত রেখেছে: নিমগ্ন শিক্ষা এবং বিশেষভাবে আঞ্চলিক ভাষাগুলির পরিচয়মূলক নথিগুলিতে ডায়াক্রিটিক্স (উচ্চারণ পরিবর্তনের জন্যে অক্ষরের উপরে বা নীচে সংযুক্ত একটি দাগ) ব্যবহারের ক্ষেত্রে।

নিমগ্ন শিক্ষার মাধ্যমে ফ্রান্সে ছোট বাচ্চাদের এমন একটি শিক্ষার পরিবেশের মধ্যে রাখা হয় যেখানে লক্ষিত ভাষায় প্রায় সমস্ত বিষয় শেখানো হয়। উদাহরণস্বরূপ, ব্রেটন বা বাস্ক ভাষায় ইতিহাস বা গণিত শেখানো হয়। ফ্রান্সে বর্তমানে ১৪,০০০ শিশু এই ধরনের শিক্ষা গ্রহণ করে। স্ংখ্যাটি স্থিতিশীলভাবে বাড়তে থাকলেও এটি সমস্ত ফরাসি শিক্ষার্থীদের ০.১ শতাংশের প্রতিনিধিত্ব করে।

ব্রিটানি ১৯৭৭ সালে প্রথম এই অঞ্চলজুড়ে ৫০টিরও বেশি স্কুলে দ্বিভাষিক শিক্ষার সুযোগসম্পন্ন দিওয়ান স্কুল তৈরি করে এই পথ দেখায়। এরপরে চালু হয় অক্সিটেনে শিক্ষা দেওয়া দক্ষিণ ফ্রান্সের দ্বিভাষিক ক্যালান্ড্রেটা স্কুল, পাশাপাশি অ্যালসেশীয়, কর্সিকীয় এবং বাস্কের মতো অন্যান্য ভাষার স্কুলও রয়েছে। এগুলি সম্প্রদায়য়ের কমিউনিটি স্কুল হিসেবে স্বীকৃত এবং রাজ্য ও শিক্ষার্থীদের পরিবারের অর্থায়নেপরিচালিত। স্কুলগুলি ফ্রান্সের শিক্ষা মন্ত্রণালয় দ্বারা অনুমোদিত একটি পাঠ্যক্রম অনুসরণ করে এবং বেশিরভাগ বেসরকারি ক্যাথলিক স্কুলগুলির মতোই “চুক্তিবদ্ধ বেসরকারি শিক্ষা” শ্রেণীর মর্যাদা লাভ করে।

২১ মে আইনের চূড়ান্ত খসড়ায় সাংবিধানিক পর্ষদ ফরাসি সংবিধানের অনুচ্ছেদ-২-এ বিধৃত “ফরাসি প্রজাতন্ত্রের ভাষা ফরাসি” এর উল্লেখ করে আঞ্চলিক ভাষায় তাদের নিমগ্ন শিক্ষা প্রত্যাখ্যানকে সমর্থন করেছে।

এক জাতি, এক ভাষা

ফরাসি রাষ্ট্রের ক্ষেত্রে কেন্দ্রিকতা হলো এর পরিচয়ের একটি মৌলিক অংশ, যাতে ফরাসি ভাষার ভূমিকা রয়েছে।

ফরাসি হলো লাতিন থেকে উদ্ভূত একটি রোমীয় ভাষা । মধ্যযুগে লাতিন ভাষা বর্তমান ফ্রান্সের বিভিন্ন অঞ্চলে কথিত দুটি ভাষাগোষ্ঠী: দক্ষিণাঞ্চলে ব্যবহৃত লং ড'ক (অক্সিটীয় ভাষা) এবং উত্তরাঞ্চলে কথিত লং ড'ইল (অইল ভাষা)-তে বিবর্তিত হয়।

১৫৩৯ সালের ফ্রান্সের প্রথম ফ্রান্সিস স্বাক্ষরিত আইন ভিল্যাখ-কোতোঘ্যা অধ্যাদেশই হলো প্রথম নথি যেখানে সরকারি সকল নথির ভাষা হিসেবে লাতিনের পরিবর্তে ফরাসি ব্যবহারের ঘোষণা করা হয়েছিল। প্রথমদিকে অন্যান্য ভাষার পাশাপাশি ফরাসি সংখ্যালঘু ভাষা হলেও ধীরে ধীরে এটি জনজীবনের সমস্ত: শাসন, মামলার আইন, শিক্ষা, বাণিজ্য, ধর্ম, সাহিত্য এবং গণমাধ্যমের ক্ষেত্রে প্রভাবশালী এবং একচেটিয়া ভাষাতে পরিণত হয়।

ঊনবিংশ শতকে বিশেষত তৎকালীন শিক্ষামন্ত্রী জুল ফেরির সময় শাস্তির ভয় দেখিয়ে স্কুলগুলিতে আঞ্চলিক ভাষার ব্যবহার নিষিদ্ধ করলে শিক্ষাব্যবস্থায় আঞ্চলিক ভাষার এই প্রত্যাখ্যান আরো শক্তিশালী হতে শুরু করে। দেশজুড়ে রাষ্ট্রীয় স্কুলগুলি বর্তমানে প্রচলিত বিখ্যাত উক্তি: “মাটিতে থুতু ফেলবেন অথবা  ব্রেটন ভাষায় কথা বলবেন না” (অথবা বাস্ক, অক্সিটীয় বা অন্য কোন আঞ্চলিক ভাষাসহ) এর বিভিন্ন লক্ষণ প্রদর্শন করে।

ভাষাগত বৈচিত্র্যের তীব্র অবনমন

বর্তমানে সরকারি একটি বিভাগ ফরাসি ভাষা ও ফ্রান্সের অন্যান্য ভাষার সাধারণ প্রতিনিধি (ডিজিএলএফএলএফ) ফ্রান্সে কথিত সকল ভাষার দায়িত্বে রয়েছে। ডিজিএলএফএলএফ ফরাসি ব্যতীত অন্য সকল ভাষাকে তিনটি: মূল ভূখণ্ড ফ্রান্সে কথিত আঞ্চলিক ভাষা, ইহুদী, রোমানি বা ইশারা ভাষার মতো  ভূখণ্ডের বাইরের ভাষা, এবং কানাক, তাহিতীয় ও ক্রিওলসহ  ৫০টির বেশি ফ্রান্সের বৈদেশিক অঞ্চলের ভাষায় বিভক্ত করেছে।

সরকারিভাবে স্বীকৃত ২৩টি আঞ্চলিক ভাষা ফ্রান্সের বিশাল ভাষাগত বৈচিত্র্যের প্রতিনিধিত্ব করে। এর মধ্যে রোমীয় (কাতালান, কর্সিকীয়, অক্সিটীয়, ফরাসি-প্রাদেশিক), জর্মন (ফ্লেমীয়, অ্যালসেশীয়), কেল্টিক (ব্রেটন) এবং বাস্কের মতো অ-ইন্দো-ইউরোপীয় ভাষা রয়েছে।

তবে এই ভাষাগুলি ১৯ শতক পর্যন্ত কোটি কোটি ফরাসি মানুষের মাতৃভাষা হলেও আজকে এই ভাষাগুলিতে কথাবলা মানুষের সংখ্যা মাত্র ২০ লক্ষ বা মূল ভূখণ্ড ফ্রান্সের জনসংখ্যার ৩ শতাংশের নিচে। এই কারণে এই পতন রোধে প্রদেশগুলিকে পদক্ষেপ নিতে এবং বৈচিত্র্য ভিত্তিক ভাষাগত পুনর্জাগরণকে উৎসাহিত করতে হবে।

নিয়মিত ভাষা বহুত্বের স্বীকৃতিকে অস্বীকার করে ফরাসি ভাষাকে রক্ষা করার একটি চির-পরিবর্তিত নীতিমালা

এতোকিছু স্বত্ত্বেও ফরাসি রাষ্ট্রটি ভাষাগত বৈচিত্র্য এবং ফরাসি ভাষার প্রতি অত্যধিক সুরক্ষার মধ্যে দোদুল্যমানতা নিয়ে আঞ্চলিক ভাষা বিষয়ে একটি দ্ব্যর্থবোধক অবস্থান বজায় রেখেছে। আপাতদৃষ্টিতে ইংরেজি বর্ধিত ব্যবহারের ফলে ঝুঁকির মধ্যে থাকা ফরাসি ভাষার সুরক্ষার জন্যে ১৯৯২ সালে ফরাসি রাষ্ট্র প্রথমবারের মতো ফরাসি ভাষাকে সরকারি মর্যাদা দেওয়ার জন্যে উপর্যুক্ত অনুচ্ছেদ ২ উদ্ধৃত করে পঞ্চম প্রজাতন্ত্রের সংবিধান সংশোধন করতে আগ্রহী হয়।

উপরন্তু, ফ্রান্স স্বাক্ষর করলেও তার সংবিধানের ২ নং অনুচ্ছেদের উল্লেখ করে আবারো আঞ্চলিক বা সংখ্যালঘুদের ভাষাসমূহের জন্যে ইউরোপীয় সনদের ৩৯টি অনুচ্ছেদ অনুস্বাক্ষর করতে অস্বীকার করে। ১৯৯২ সালের ইউরোপীয় পর্ষদ চুক্তিটিতে “সুরক্ষার জন্যে আঞ্চলিক বা সংখ্যালঘু ভাষাগুলির প্রচারের জন্যে দৃঢ় পদক্ষেপ গ্রহণের প্রয়োজনীয়তা; সরকারি ও বেসরকারি জীবনে আঞ্চলিক বা সংখ্যালঘু ভাষাগুলির মৌখিক এবং লিখিত ব্যবহারকে সুবিধা এবং/অথবা উৎসাহ প্রদান; সকল উপযুক্ত পর্যায়ে আঞ্চলিক বা সংখ্যালঘু ভাষার শিক্ষা ও অধ্যয়নের জন্যে পর্যাপ্ত সংস্থান ও উপায়ের বিধান”সহ ইউরোপের ভাষাগত বৈচিত্র্য রক্ষার লক্ষ্য রয়েছে।

২০০৮ সালে সাংবধানিক পর্যালোচনার সময় এই ভাষাগুলি অন্তর্ভুক্ত করার জন্যে ফ্রান্সের সংবিধান সংশোধন করা হয়। নতুন অনুচ্ছেদ ৭৫-১ এ বলা হয়েছে “আঞ্চলিক ভাষাগুলি ফ্রান্সের ঐতিহ্যের অংশ।” এই ক্ষেত্রেও রাষ্ট্রের পক্ষ থেকে আপেক্ষিকভাবে শুধু যা দেখা গেছে তা হলো বেসরকারি উদ্যোক্তাদের পাশাপাশি মূলত অ্যালসেশীয়, বাস্ক, ব্রেটন, কর্সিকীয় এবং অক্সিটীয়দের জন্যে রেডিও ও টিভি কর্মসুচিগুলির জন্যে আর্থিক সহায়তার প্রতিশ্রুতি।

বিক্ষোভ এবং সাংবিধানিক পর্ষদের পশ্চাদপসরণ

২১ মে আইন কার্যকর করার পরে মে মাসে মূলত রাষ্ট্রের আর্থিক সহায়তার উপর নির্ভর নিমগ্ন শিক্ষা সেন্সরের নিন্দা করার জন্যে ফ্রান্স জুড়ে অনেক বিক্ষোভ-সমাবেশ হয়। ইংরেজির আগ্রাসন থেকে ফরাসি ভাষা সুরক্ষার একটি পদ্ধতি হিসেবে সংবিধানের ২ নং অনুচ্ছেদটি তৈরি এবং উপস্থাপন করা হয়েছিল সেটা উল্লেখ করে অনেক আবেদন চালু হয়। লক্ষ্যণীয় যে ফ্রান্সের অনেক ফরাসি-ইংরেজি দ্বিভাষিক স্কুল ভাষা নিমজ্জন পদ্ধতি চর্চা করলেও তারা এই আইনের অধীন বলে মনে হয় না।

নেতাকর্মীরা আরো মনে করিয়ে দেয় যে ফরাসি রাষ্ট্রপতি ইমানুয়েল ম্যাক্রঁ ২৬ মে আঞ্চলিক ভাষাগুলি সুরক্ষার পক্ষ নিয়ে সংবিধানিক পর্ষদের সিদ্ধান্তের পরিষ্কার বিরোধিতা করেন। পর্ষদ পরে নিমগ্ন শিক্ষা শুধু রাষ্ট্রীয় শিক্ষায় অসাংবিধানিক হলেও বেসরকারি ক্ষেত্রে তা অনুমোদিত বলে স্পষ্ট করে ১৬ জুন তারিখে এর জবাব দেয়

সম্প্রদায়গত স্কুলগুলিকেও সরকারি হিসেবে ব্যাখ্যা করা যেতে পারে বলে  সক্রিয় কর্মীরা এখন ‘সম্প্রদায়গত স্কুল‘ শব্দটির সংজ্ঞাটির দিকে মনোনিবেশ করেছে। রাজনৈতিক ও আইনসভার মধ্যে এই পিং পং খেলাটি চলতেই থাকবে বলে মনে হচ্ছে। আগামী ২ সেপ্টেম্বর স্কুলে ফিরে আসার পরে অ্যালসেশীয়, বাস্ক, ব্রেটন, কর্সিকীয় এবং অক্সিটীয় শিক্ষার্থীরা এসব ভাষায় শিক্ষা গ্রহণ করতে পারে কীনা সেটা এখনো দেখার বাকি আছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .