বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

কোভিড-১৯ তহবিল নিয়ে প্রতিবেদনকারী দুই সাংবাদিককে ‘বিশ্বাস করা যায় না’: পাপুয়া নিউ গিনির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী জেমস মারাপে কথিত কোভিড-১৯ তহবিল অপব্যবহার নিয়ে গণমাধ্যম এবং জনসাধারণের উদ্দেশ্যে বক্তব্য রাখছেন। ইউটিউবে আপলোড করা ইএমটিভির অনলাইন প্রতিবেদনের পর্দাছবি।

কোভিড-১৯ এর বৈশ্বিক প্রভাব সম্পর্কে গ্লোবাল ভয়েসেসের বিশেষ কভারেজটি দেখুন।

পাপুয়া নিউ গিনির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ব্রায়ান ক্রেমার দুই সাংবাদিককে সরকারের কোভিড-১৯ অর্থায়ন কর্মসূচি সম্পর্কে একটি ভুল প্রতিবেদন প্রকাশের দায়ে অভিযুক্ত করেছেন।

২০২০ সালের ১১ এপ্রিল তারিখে মন্ত্রী তার ক্রেমার প্রতিবেদন ফেসবুক পাতায় লিখেছেন লুপ পিএনজির রাজনৈতিক ও ব্যবসায়িক সম্পাদক ফ্রেডি মৌ এবং প্রবীণ পিএনজির পোস্ট-কুরিয়ার সাংবাদিক গ্যারিথ কেনেথকে পূর্ববর্তী প্রধানমন্ত্রীর সাথে কথিত ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক এবং কথিত “পক্ষপাতদুষ্ট ও বিভ্রান্তিমূলক প্রতিবেদন” প্রকাশের কারণে “বিশ্বাস করা যায় না।”

মৌ এবং কেনেথ কোভিড -১৯ এর প্রতিক্রিয়া সম্পর্কিত সরকারি ব্যয় নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশকারী অর্থমন্ত্রী আয়ান লিং-স্টাকির সাক্ষাৎকার নিয়েছিলেন। সাক্ষাৎকারটিতে কোভিড -১৯ পদক্ষেপের অংশ হিসাবে সরকারের গণমাধ্যম পরামর্শদাতা এবং গাড়ি ভাড়া করার বিষয়টিও উত্থাপিত হয়েছিল।

ক্রেমার বলেছেন যে কোষাধ্যক্ষের কথাগুলিকে প্রসঙ্গের বাইরে টেনে আনা হয়েছেল। তিনি আরো বলেছেন যে সাক্ষাৎকারের সময় উত্থাপিত কিছু বিষয় সামাজিক গণমাধ্যম সূত্রের ‘অসমর্থিত’ উৎস থেকে এসেছে বলে তিনি এই প্রতিবেদনটিকে “চাঞ্চল্যকর ও পক্ষপাতদুষ্ট” “চাঞ্চল্যকর ও পক্ষপাতদুষ্ট” বলে অভিহিত করেছেন। উপসংহারে তিনি বলেছেন:

একটি স্বনামধন্য গণমাধ্যম সংস্থা তার খ্যাতির উল্লেখযোগ্য ক্ষতি সাধন করা একজন সাংবাদিকের বিরুদ্ধে কী পদক্ষেপ নেবে?

গণমাধ্যমে যদি আমাকে ভুলভাবে উপস্থাপন করা হতো তাহলে আমি সাংবাদিক এবং গণমাধ্যম সংস্থাটির বিরুদ্ধে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নিতাম।

লুপ পিএনজি জবাব দিয়েছিল যে এটি কাহিনীটির “মূল সত্যগুলিকে সমর্থন” এবং এর সম্পাদকীয় অখণ্ডতা এবং স্বাধীনতা রক্ষা করে:

দূঃখপ্রকাশযোগ্য কোন ভুল বোঝাবুঝি ইচ্ছাকৃত বা উদ্দেশ্যমূলক ছিল না এবং লুপ পিএনজি সমস্ত বিপরীত দাবিগুলোকে প্রত্যাখ্যান করে।

এছাড়াও লুপ পিএনজি তার সম্পাদকীয় স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপের যে কোন প্রচেষ্টাকে প্রত্যাখ্যান করে যা পাপুয়া নিউ গিনির গণতন্ত্রের অন্যতম ভিত্তি।

বিরোধীদলীয় নেতা বেলডেন নামাহ বলেছেন সরকারের প্রেসের স্বাধীনতাকে সম্মান করা উচিৎ:

আমি সরকারের কাছে এটি স্পষ্ট করে বলতে চাই: আপনারা এই দেশের সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা অবদমন করার কঠোর কোন কৌশল ব্যবহার করবেন না।

আপনার সমালোচনা করা হলে সেই সমালোচনাটি মেনে নিন। আর তহবিলের অপব্যবহারের বিষয়টি সত্যি হলে আমি ন্যায়পাল কমিশন এবং জালিয়াতিবিরোধী পুলিশ স্কোয়াড়ের তদন্তসহ রাষ্ট্রের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ চাই।

প্রধানমন্ত্রী জেমস মারাপে তার ফেসবুক পাতায় জোর দিয়ে বলেন যে প্রতিবেদনটিতে অর্থমন্ত্রীকে ভুলভাবে উদ্ধৃত করা হয়েছে। তিনি জনসাধারণকে আশ্বাস দিয়েছেন যে কোভিড-১৯ -এর বিরুদ্ধে লড়াইয়ের তহবিল ব্যবহারে তার সরকার স্বচ্ছ হবে:

এগিয়ে যাওয়ার জন্যে সুশাসনের চর্চা হিসেবে আমরা জনসাধারণের তদন্তকেও জবাবদিহি করব কারণ এই প্রয়োজনীয় কাজের জন্যে আরো  তহবিল প্রয়োজনীয় আসবে।

আমি জনগণের ঘাড়ে চেপে অর্থের অপব্যবহার করতে এবং এর থেকে সুবিধা নিতে দেব না। তবে এ পর্যন্ত যা হয়েছে ভাল হয়েছে। আমি জরুরি সেবায় একজন স্বেচ্ছাসেবীর ঝাঁপিয়ে পড়ার চেতনা থেকে কাজটি প্রত্যক্ষ করেছি।

রাজনৈতিক কর্মী নোয়েল অ্যাঞ্জো ফেসবুকে লিখেছেন কোষাধ্যক্ষ ক্রেমার এবং প্রধানমন্ত্রীর উপস্থাপিত সংখ্যায় অসামঞ্জস্য রয়েছে বলে প্রতীয়মান হচ্ছে। তিনি আরো বলেন প্রধানমন্ত্রীর কোষাধ্যক্ষকে এই বিষয়ে কথা বলতে দেওয়া উচিৎ:

কোষাধ্যক্ষ মূক ও বধির বা প্রতিবন্ধীও নন যে তার পক্ষে দু’জনকে কথা বলতে হবে। কোষাধ্যক্ষের উপর কিছু শ্রদ্ধা রাখুন এবং তাকে ছাপানো ও পরিশোধ করা চেকগুলির অনুলিপিগুলি গণমাধ্যমকে সরবরাহ করতে দিন। পরবর্তীকালে আপনার নিজের মন্ত্রণালয়ের কাজের সাথে লেগে থাকুন এবং পরস্পরকে সম্মান করুন।

সীমান্ত বিহীন প্রতিবেদক (আরএসএফ) এর এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের প্রধান ড্যানিয়েল বাস্টার্ড দুই সাংবাদিককে বরখাস্ত করার পরামর্শ দেওয়া একটি ফেসবুক পোস্ট প্রকাশের জন্যে ক্রেমারের সমালোচনা করেছেন:

বিশেষ করে কোন একটি প্রতিবেদন পছন্দ না করার কারণে সাংবাদিকদের বরখাস্ত করা উচিৎ কিনা তা সরকারের কোন মন্ত্রীর সিদ্ধান্ত নেওয়ার বিষয় নয়।

এটি গণমাধ্যমের প্রয়োজনীয় কাজগুলির উপর একটি অগ্রহণযোগ্য হস্তক্ষেপ।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .