বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

নেটনাগরিক প্রতিবেদন: উগান্ডার ‘হোয়াটসঅ্যাপ কর’ এবং সিম কার্ড বিধিমালা সংযুক্ত থাকা কঠিন করবে

উগান্ডার কাম্পালায় একটি গাড়িতে টেলকোর বিজ্ঞাপন। ফ্লিকারের মাধ্যমে ফিউচারএ্যাটলাস.কম-এর ছবি (সিসি বাই ২.০)

অ্যাডভক্স নেট-নাগরিক প্রতিবেদন বিশ্বজুড়ে ইন্টারনেট অধিকারগুলির ক্ষেত্রে বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতা, সমস্যা থেকে উত্তরণ এবং উদীয়মান প্রবণতাগুলির একটি আন্তর্জাতিক আলোকপাত উপস্থাপন করে।

উগান্ডার সরকার ফেসবুক এবং হোয়াটসঅ্যাপের মতো মোবাইল অর্থ হিসাব এবং সামাজিক গণমাধ্যম পরিষেবাগুলোসহ নানা ধরনের পণ্য ও পরিষেবাদির উপর প্রযোজ্য একটি নতুন কর আইন অনুমোদন করেছে।

নীতিনির্ধারকরা প্রথমবার “হোয়াটসঅ্যাপ কর” প্রস্তাব করার পর প্রেসিডেন্ট ইওয়েরি মুসেভেনির মতো সমর্থকরা এটি সামাজিক মিডিয়াতে “গপ্পো” সহায়তা করবে বলে যুক্তি দেখিয়েছিলেন। করটি অবশ্য হোয়াটসঅ্যাপের মতো মাথার “উপর-দিয়ে-চলে-যাওয়া” বিদেশভিত্তিক পরিষেবাদির ব্যবহার থেকে সরাসরি সুবিধা না পাওয়া স্থানীয় টেলিযোগাযোগ সরবরাহকারীদের কাছে বেশ পছন্দের।

উগান্ডার ব্লগার এবং গ্লোবাল ভয়েসেস লেখক প্রু ন্যামিশানা একটি সাক্ষাৎকারে বাজফিডকে বলেছেন:

ইন্টারনেট প্রশাসনে আমাদের মুখোমুখি হওয়া বৃহত্তম দু’টি চ্যালেঞ্জের একটি হলো প্রবেশাধিকার। এই করটি মানুষকে আটকে রাখছে…. এছাড়াও এটিকে আমরা উগান্ডাবাসীদের সেন্সর করার এবং বিরোধী কণ্ঠস্বর দমনের একটি ইচ্ছাকৃত পদক্ষেপ মনে করি।

সাম্প্রতিক হত্যাকাণ্ড ও অপহরণ বৃদ্ধির উদ্ধৃতি দিয়ে উগান্ডার সরকার সিম কার্ড বিক্রির উপর একটি দুই মাসের স্থগিতাদেশ শেষ করার অব্যবহিত পরই টেলিযোগাযোগ কোম্পানিগুলিকে জাতীয় বায়োমেট্রিক ডাটা কেন্দ্রে সকল নতুন মোবাইল সিম কার্ড নিবন্ধন করার নির্দেশ দিয়েছে। এছাড়াও সরকার ঘষে তুলতে পারা যায় এমন রিচার্জ কার্ড বিক্রয় নিষিদ্ধ করেছে।

কর্তৃপক্ষ বলছে যে ভয়ঙ্কর অপরাধীরা সনাক্ত না হয়ে হামলা পরিকল্পনার সময় যোগাযোগ করার জন্যে অনিবন্ধিত সিম কার্ড ব্যবহার করে।

সিম কার্ড বিক্রয়ের উপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার পর থেকে নতুন বিধিমালা অনুসারে কেনার সময়ে যাতে ব্যক্তিগত তথ্য ইলেকট্রনিক কার্ড পঠনযন্ত্রে যাচাই করতে পারা যায় এজন্যে বিক্রয়কারীদের কাছে উগান্ডাবাসীদের তাদের জাতীয় সনাক্তকরণ কার্ড সরবরাহ করতে হবে। ১ জুলাই থেকে কার্যকর হওয়া নতুন বিধিমালা অনুসারে গ্রাহকদের এখন তাদের সিম কার্ডগুলি রিচার্জ করার জন্যেও মোবাইল অর্থ হিসাব ব্যবহার করতে হবে।

একটি প্রেস বিবৃতিতে উগান্ডার ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ সমিতি জানিয়েছে যে সিম কার্ড নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা অপরাধের হার কমাবে না। নতুন কর আইন সম্পর্কে লিখতে গিয়ে পূর্ব ও দক্ষিণ আফ্রিকার আন্তর্জাতিক আইসিটি নীতি সহযোগিতা (সিআইপিইএসএ)-এর জুলিয়েট ন্যানফুকা “নাগরিকদের ইন্টারনেটে প্রবেশধিকারের প্রতি ধারাবাহিক সরকারী হুমকির সর্বশেষ” হিসেবে এটিকে অভিহিত করেছেন

একসঙ্গে নেওয়া এই নতুন নীতিমালা উগান্ডাবাসীদের জন্যে এটি আরো ব্যয়বহুল করে তুলবে, বিশেষ করে মোবাইল যন্ত্র ব্যবহার করে যোগাযোগ এবং দৈনন্দিন কর্মকাণ্ড সম্পাদনকারী দরিদ্রদের জন্যে।

বিক্ষোভকারীদের গণহত্যার পর ভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যে ইন্টারনেট বন্ধ

ভারতের দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্য তামিলনাড়ুতে একটি প্রকাশ্য বিক্ষোভে পুলিশের গুলিতে ১৩জন বেসামরিক নাগরিক নিহত হওয়ার পর স্থানীয় কর্তৃপক্ষের নির্দেশে স্থায়ী এবং মোবাইল নেটওয়ার্ক বন্ধ করে দেয়া হয়। বিক্ষোভকারীরা তাদের এলাকাগুলোতে তাদের স্বাস্থ্য ঝুঁকি তৈরী করছে এমন বায়ু এবং পানি দূষণকারী একটি তামা কারখানার সম্প্রসারণের প্রতিবাদ করছিল। পুলিশের সহিংস বা নির্মম আচরণগুলোর ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে প্রচারিত হতে থাকায় অনেকেই সরকারের ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার উদ্দেশ্য সম্পর্কে সন্দেহ করছে।

নয়া দিল্লীর সফটওয়্যার স্বাধীনতা আইন কেন্দ্র-এর মতে ২০১৮ সালে ভারতে এপর্যন্ত ৫৫বার আঞ্চলিকভাবে ইন্টারনেট বন্ধ করা হয়েছে।

‘ভূয়া ব্যবহারকারী’ অজুহাতে একমাসের জন্যে ফেসবুক নিষিদ্ধ করেছে পাপুয়া নিউ গিনি

দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের দ্বীপপুঞ্জ পাপুয়া নিউ গিনির কর্মকর্তারা তাদের মতে মিথ্যা তথ্য ছড়িয়ে দেওয়ার অনুঘটক হিসাবে মঞ্চটিকে আরও ভালভাবে বোঝার চেষ্টার জন্যে এক মাস দীর্ঘ ফেসবুক নিষেধাজ্ঞা জারি করবেন।

গার্ডিয়ান পত্রিকার সঙ্গে একটি সাক্ষাৎকারে ডিজিটাল মিডিয়া পণ্ডিত এবং গ্লোবাল ভয়েসেস লেখক আইম সিনপেং নিষেধাজ্ঞাটির বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করার সঙ্গে সঙ্গে এটাও উল্লেখ করেছেন যে সেদেশে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা কম থাকায় সেখানে বিশ্বের অন্যান্য অঞ্চলের তুলনায় খুব কমই প্রভাব পড়বে। পাপুয়া নিউ গিনির জনসংখ্যা মাত্র ৮০ লক্ষ এবং সেখানকার জনসংখ্যার মাত্র ১২ শতাংশ ইন্টারনেট ব্যবহার করে।

সামাজিক মাধ্যমে সক্রিয়তার জন্যে আমীরাতের মানবাধিকার কর্মীর দশ বছর কারাদণ্ড

আমীরাতের মানবাধিকার কর্মী আহমেদ মনসুরকে সামাজিক মাধ্যমে “ঘৃণা ও সাম্প্রদায়িকতা” এবং “মিথ্যা তথ্য” ছড়ানো্র কথিত দায়ে  দশ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আবুধাবির একটি আপিল আদালত। “আরব আমীরাতের অবস্থান ও সম্মানকে ক্ষুন্ন” করার দায়ে তাঁকে আরও দশ লক্ষ দিরহাম (প্রায় ২ কোটি ২৮ লক্ষ ৭৩ হাজার বাংলাদেশী টাকা) জরিমানা করা হয়েছে।

২০১৭ সালের মার্চ থেকে অন্তরীণ মনসুর উপসাগরীয় দেশগুলোর হাতেগোণা সক্রিয় মানবাধিকার কর্মীদের একজন যিনি ২০১৫ সালে মানবাধিকার কর্মীদের জন্যে মার্টিন এনালস পুরস্কার পেয়েছেন। এছাড়াও ২০১১ সালে আরব আমীরাতে গণতান্ত্রিক সংস্কারের পক্ষে প্রচারণা চালানো এবং গণতন্ত্রপন্থী পিটিশন স্বাক্ষর করানোর দায়ে তাকে জেলে পাঠানো হয়েছিল। এবারে তার একেবারে সাম্প্রতিক গ্রেপ্তারের পূর্ব পর্যন্ত অনলাইন এবং অফলাইনে তিনি হয়রানি এবং নজরদারির সম্মূখীন হয়েছিলেন।

মার্কিন নাগরিকদের নজরদারিতে নতুন সফটওয়্যার দিয়ে সরকারগুলিকে আমাজন.কম-এর সাহায্য

আমাজন.কম তাদের নিজস্ব চেহারা সনাক্তকারী সফ্টওয়্যার রিকগনিশন তৈরী করে নিয়েছে। কোম্পানি বলছে যে তাদের এই পণ্যটি “বাস্তব সময়ে  কোটি মুখের মাঝ থেকে চেহারা সনাক্ত এবং কঠিন ভিড়যুক্ত ছবিগুলি থেকে ১০০টি পর্যন্ত মুখ সনাক্ত করতে পারে।”

আমাজন যে যুক্তরাষ্ট্রের অ্যারিজোনা, ক্যালিফোর্নিয়া এবং ওরেগন রাজ্যের স্থানীয় সরকারগুলির কাছে সফটওয়্যারটি বিক্রি করছে এবং আমাজনের করা একটি অপ্রকাশযোগ্য চুক্তির অধীনে কোম্পানিটি সরকারি কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ দিয়েছে এবং তাদের সঙ্গে সাথে পরামর্শ করেছে সেটা তথ্য স্বাধীনতা আইনে করা অনুরোধের মাধ্যমে আমেরিকান নাগরিক স্বাধীনতা ইউনিয়নের প্রাপ্ত এবং প্রকাশিত বিভিন্ন ইমেইল থেকে প্রমাণিত।

সংস্থাটি দেশ জুড়ে গ্রাহক এবং সম্প্রদায়গুলোর জন্যে মারাত্মক হুমকি সৃষ্টিকারী সরকারের নজরদারি অবকাঠামোকে ক্ষমতায়ন বন্ধ করার” দাবি করে আমাজনের সিইও জেফ বেজোসকে সহযোগিতার একটি চিঠি লিখেছে। এতে স্বাক্ষর করেছে মার্কিন-ইসলামী সম্পর্ক বিষয়ক পর্ষদ, ইলেক্ট্রনিক সীমান্ত ফাউন্ডেশন এবং হিউম্যান রাইটস ওয়াচ।

নতুন গবেষণা

নেট-নাগরিক প্রতিবেদনের গ্রাহক হোন

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .