বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

হলুদ জ্বর ভীতি ও প্রেস সেন্সরশীপের মধ্যে রিও ডি জেনিরো

কাইয়ো বেজেরার সমর্থনে বিক্ষোভ। ছবি: থিয়াগো ডেজেন/ রূখো ব্রাজিল, অনুমতি নিয়ে ব্যবহৃত।

হলুদ জ্বরের একটি প্রাদুর্ভাবের প্রতি পৌর প্রশাসনের প্রতিক্রিয়া নিয়ে  সমালোচনামূলক একটি গল্প লেখার পর রিও ডি জেনিরোর একটি সংবাদপত্র থেকে একজন প্রতিবেদককে বরখাস্ত করা হয়েছে। তার বরখাস্তের ব্যাপারে শহরটির মেয়র মার্সেলো ক্রিভেলা সরাসরি অনুরোধ করেছিলেন বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

১৬ মার্চ তারিখে ও দিয়া (দিন) সংবাদপত্রে কাইয়ো বারবোসার রিও ডি জেনিরো জনস্বাস্থ্য ক্লিনিকগুলোতে অপর্যাপ্ত হলুদ জ্বরের টিকার কারণে লম্বা লাইনের গল্পটি প্রকাশিত হয়। সেখানে পার্শ্ববর্তী মিনা জেরাইস এলাকায় হলুদ জ্বরের একটি প্রাদুর্ভাব শুরু হয়েছে। এপর্যন্ত  ১১৭ জন মারা গিয়েছে  জেনে রিও ডি জেনিরোর নাগরিকদের মধ্যে আতংক সৃষ্টি হওয়ার ফলে তারা জরুরী ভিত্তিতে নিজেদের এবং সন্তানদের জন্যে টিকার খোঁজে ঠেলাঠেলি শুরু করে দিয়েছে।

বারবোসার বরখাস্ত রিও ডি জেনিরোর বাসিন্দাদের মধ্যে ক্ষোভের সঞ্চার করেছে। বরখাস্তের পর পুলিশ প্রধান অরলান্দো জাকোন ১৯৬৪ থেকে ১৯৮৫ পর্যন্ত চলা ব্রাজিলের সামরিক শাসনের কথা স্মরণ করেন। জাকোন তার ফেসবুক পাতায় লিখেছেন:

O que resta da ditadura? Tudo, menos a ditadura.
[…] Temos que nos mobilizar urgentemente para produzir uma vacina contra o arbítrio do poder político em nosso país, democratizando os meios de comunicação.

একনায়কতন্ত্রের আর কী বাকী রইলো? সবকিছু, শুধু একনায়কতন্ত্রটি ছাড়া।
[…] আমাদের গণমাধ্যমকে গণতন্ত্রায়ণের মাধ্যমে আমাদের দেশের রাজনৈতিক ক্ষমতার ইচ্ছার বিরুদ্ধে একটি টিকা উত্পাদন করতে জরুরীভাবে একত্রিত হতে হবে।

বারবোসার বরখাস্তের সংবাদটি নিয়ে প্রথম এগিয়ে আসেন সাংবাদিক সিড বেঞ্জামিন। তিনি জানিয়েছেন তিনি ফোনে বরখাস্ত হওয়া সাংবাদিকের সঙ্গে কথা বলেছেন। বেঞ্জামিন তার ফেসবুক পাতায় পোস্টের একটি ধারাবাহিক  প্রকাশ করে তাতে বারবোসাকে উদ্ধৃত করে বলেছেন এখন ও দিয়া’র ওয়েবসাইট থেকে নামিয়ে নেওয়া গল্পটির কারণে ক্রিভেলা বারবোসাকে বরখাস্ত করার জন্যে সংবাদপত্রটির মালিককে সরাসরি অনুরোধ করেছিল।

আবারো বারবোসাকে উদ্ধৃত করে বেঞ্জামিন বলেছেন লেখাটিকে নামিয়ে ফেলার আগেই ইতোমধ্যে তার মূল সংস্করণ থেকে পরিবর্তন করে ফেলা হয়েছে। তবে মূল লেখাটি হে দিয়া’র মুদ্রণ সংস্করণে এখনো চললেও পরিবর্তিত সংস্করণটি অন্যান্য সংবাদমাধ্যম যেমন অ্যাজেন্সিয়া ব্রাজিলে পুনঃপ্রকাশিত হয়েছে। ফেসবুক ব্যবহারকারী মারিয়ানা ক্লডিনো অবশ্য গুগল ক্যাশেতে এর মূল সংস্করণটিতে ঢুকে তার ফেসবুক পাতায় কিছু পর্দাছবি (স্ক্রিনশট) পোস্ট করেছেন

সিড বেঞ্জামিন (বামে) এবং কাইয়ো বারবোসা (ডানে) – রিও ডি জেনিরোতে বিক্ষোভকারীদের দ্বারা পরিবেষ্টিত। ছবি: থিয়াগো ডেজেন/ রূখো ব্রাজিল, অনুমতি নিয়ে প্রকাশিত।

মার্সেলো ক্রেভিলো রিও ডি জেনিরো প্রদেশের সাবেক সিনেটর এবং ব্রাজিলের সর্ববৃহৎ ধর্মপ্রচারক মণ্ডলী সর্বজনীন গির্জার সঙ্গে শক্তিশালী সম্পর্ক থাকা একটি দল থেকে ২০১৬ সালে শহরটির নির্বাচিত মেয়র। ক্রিভেলা ধর্মপ্রচারক মণ্ডলীর একজন বৃত মন্ত্রীও। রবিবারে ক্রিভেলা যে কোনো ধরনের অন্যায়কে অস্বীকার করে একটি বিবৃতি প্রকাশ করেছেন:

“É falsa a informação divulgada nas redes sociais atribuindo a mim o pedido de demissão do jornalista Caio Barbosa do Jornal O Dia. Jamais faria isso. Declaro de forma veemente que respeito os profissionais de comunicação e a liberdade de imprensa. Repudio, tenho desprezo e nojo a perseguições políticas, e no meu primeiro discurso depois de eleito, roguei a Deus que nos livrasse da praga maldita da vingança.

আমার উপর আরোপিত হে দিয়া সংবাদপত্রের সাংবাদিক কাইয়ো বারবোসাকে পদচ্যুতির অনুরোধ সামাজিক গণমাধ্যমের নেটওয়ার্কে ফাঁস করা একটা মিথ্যা তথ্য। আমি কখনো এটা করতে পারি না। আমি জোর দিয়ে ঘোষণা করছি যে আমি গণমাধ্যমের পেশাজীবীদের এবং সংবাদপত্রের স্বাধীনতাকে সম্মান করি। আমি রাজনৈতিক নিপীড়নকে প্রত্যাখ্যান, তুচ্ছজ্ঞান এবং বিরক্তবোধ করি এবং আমার নির্বাচিত হওয়ার পর আমার প্রথম বক্তৃতায় প্রতিহিংসার জঘন্য অভিশাপ থেকে আমাদের রক্ষা করার জন্যে আমি ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা করেছি।

বারবোসা তার ফেসবুক পাতায় ক্রিভিলার নোটের প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন:

A nota oficial do prefeito é uma mentira. Não apenas sobre mim. Sobre ele. Mente do início ao fim. Uma pena. Mentir é pecado. Deve ter sido escrita por um assessor. Espero.
Errar e reconhecer o erro é virtude que Deus perdoa. Insistir na mentira é feio.

মেয়রের দেয়া সরকারি বিবৃতিটি একটি মিথ্যাচার। শুধু আমার সম্পর্কে নয়।  তার নিজের সম্পর্কেও। তিনি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত মিথ্যা বলেছেন। মিথ্যা একটি পাপ। এটা অবশ্যই কোন একজন সহায়তাকারী লিখেছে। আমি আশা করি। ভুল করে সেটা স্বীকার করা (একটা) পুণ্য, যা ঈশ্বর ক্ষমা করে দেন। মিথ্যার ওপর জেদ বিশ্রী ব্যাপার।

মেয়র মার্সেলো ক্রিভিলা। ছবি: মিডিয়া নিনজা, মুক্ত ব্যবহা্রের জন্যে।

বারবোসার জন্যে সমর্থন সারা সপ্তাহান্ত জুড়ে বিভিন্ন ব্লগে  এবং সামাজিক গণমাধ্যমে ঢেলে পড়েছে  এবং ২০ মার্চ কেন্দ্রীয় রিওতে ও দিয়া কার্যালয়ের সামনে প্রায় ৫০ জন লোক তাকে সমর্থন দিয়ে একটি জরুরী প্রতিবাদ অনুষ্ঠান করেছে।

সমর্থকদের মধ্যে অধ্যাপক মরিসিও সান্তোরো ফেসবুকে বলেছেন:

O prefeito do Rio de Janeiro mandou demitir um repórter do Dia, Caio Barbosa. O jornal seguiu a ordem. Ambos os gestos são inaceitáveis e perigosos em país que se esforça em ter maior transparência e prestação de contas de políticos, mas cujos líderes insistem em não entender essas demandas sociais.

রিও ডি জেনিরোর মেয়র হে দিয়ার একজন প্রতিবেদক কাইয়ো বারবোসাকে বরখাস্ত করিয়েছেন। সংবাদপত্রটি আদেশটি পালন করেছে। দু'টি সংকেতই রাজনীতিবিদদের বৃহত্তর স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা আদায়ের চেষ্টারত একটি দেশের জন্যে অগ্রহণযোগ্য এবং বিপজ্জনক – যে দেশের নেতারা এসব সামাজিক চাহিদা বুঝতে চেষ্টা করেন না।

সাংবাদিক সিসিলিয়া ওলিভেইরা ক্রিভেলার প্রচারাভিযানের স্লোগান [চলুন জনগণের যত্ন নিই] বাজিয়ে আরো জানিয়েছেন:

Vamos cuidar das pessoas, desde que elas digam o que vc permite. Certo, Marcelo Crivella?
INADMISSÍVEL.

চলুন জনগণের যত্ন নিই যেন তারা যা বলতে চায় তাদের তাই বলার অনুমতি দেয়া হয়। ঠিক কিনা মার্সেলো ক্রিভেলা?
অগ্রহণযোগ্য।

হে দিয়া সংবাদপত্রটির শেয়ারের একটি বড় খণ্ড পর্তুগীজ গোষ্ঠী অনগোয়িং (চলমান)-এর দখলে চলে যাওয়ায় এটি বিতর্কের মধ্যে নিমজ্জিত হয়ে গেছে। মিডিয়া কনগ্লোমারেটটি গণমাধ্যম কোম্পানিতে বিদেশি পুঁজি বিনিয়োগের উপর ব্রাজিলের সীমারেখাটি প্রতারিত করার জন্যে এর প্রেসিডেন্টের স্ত্রীর ব্রাজিলীয় জাতীয়তাকে ব্যবহার করছে। অনগোয়িং বর্তমানে একটি অর্থনৈতিক সংকটে ভুগছে এবং ও দিয়া এখন দেউলিয়াত্বের দ্বারপ্রান্তে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .