- Global Voices বাংলা ভার্সন - https://bn.globalvoices.org -

ডোনাল্ড ট্রাম্প জানতেন, ইরানীরা আসলেই আগুন নিয়ে খেলা করে

বিষয়বস্তু: মধ্যপ্রাচ্য ও উ. আ., ইরান, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক, নাগরিক মাধ্যম, রাজনীতি
[1]

তেহরান-ভিত্তিক আলোকচিত্রী ফাতেমেহ বেহবুদি ১৬ মার্চ, ২০১৬ তারিখে তেহরানের রাস্তায় কাহারশানবা সুরি (লালচে বুধবার) উদযাপন ধারন করেছেন। তার ইনস্টাগ্রাম পাতায় [2] আরো দেখুন।

কাহারশানবা সুরি [3]  নামে পরিচিত প্রাচীন ইরানী অগ্ন্যুৎসব প্রমাণ করে দিয়েছে যে ডোনাল্ড ট্রাম্প একেবারে সঠিক ছিলেন – না বুঝে বললেও – গত মাসে তিনি ইরান “আগুন নিয়ে খেলছে” বলে অভিযোগ করেছিলেন।

নির্বাহী আদেশে যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণে (অন্যান্যদের সঙ্গে) ইরানী নাগরিকদের নিষিদ্ধ করার পর পর ফেব্রুয়ারির গোড়ার দিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ইরান সম্পর্কে কতগুলো অগ্নিগর্ভ টুইট করেছিলেন।

ইরান আগুন নিয়ে খেলছে – প্রেসিডেন্ট ওবামা তাদের প্রতি কতটা “দয়ালু” ছিল তারা সেটার প্রশংসা করে না। আমাকে না!

ট্রাম্প সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার – একটি পারমাণবিক অস্ত্র চুক্তি এবং ইরানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা উঠিয়ে নেয়ার মাধ্যমে – ইরানের সঙ্গে সম্পর্ক পুনরুদ্ধারের নীতির সমালোচনা করছিলেন।

জানুয়ারি মাসের শেষ দিকে দৃশ্যত: ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার কিছু সুযোগ রেখে ইরানের সঙ্গে করা পরমাণু চুক্তির বিষয়ে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের প্রতিশ্রুতি পরিমাপ করার উদ্দেশ্যে ইরান ৬০০ মাইল পাল্লার পরীক্ষামূলক একটি ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপন [5] করেছে।

উৎক্ষেপণযোগ্য একটি ক্ষেপণাস্ত্র চালানোর জন্যে আনুষ্ঠানিকভাবে ইরানকে একটি নোটিশ দেয়া হয়েছে। ভয়ানক চুক্তিটি করার জন্যে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি (তাদের) কৃতজ্ঞ থাকা উচিৎ।

অনলাইনে ইরানীদের ঐতিহ্যগতভাবে ইরানী নববর্ষের আগের বুধবারের প্রাক্কালে “ফার্সি আগুনের উৎসব” কাহারশানবা সুরি উদযাপনের সঙ্গে পরিচিত অনেকে ট্রাম্পের “আগুন নিয়ে খেলা” কথাটির ব্যবহারে মজা পেয়েছেন।

ট্রাম্প ইরানের আগুন নিয়ে খেলা সম্পর্কে ভুল বলেছেন, কাহারশানবা সুরি তো মার্চের আগে নয়।

@আসলডোনাল্ডট্রাম্প রে অযাচারী, আপনি জানেন কাহারশানবা সুরি কী?
আমরা খেলি না, এটা লাফিয়ে পার হই।

আপনার জীবনে একবার আপনি সত্যি টুইট করেছেন! আমরা আসলেই আগুন নিয়ে খেলি! একে কাহারশানবা সুরি বলা হয় আর এটা একটা সুন্দর প্রাচীন ঐতিহ্য।

ইরানী বর্ষপঞ্জী উত্তর গোলার্ধে বসন্তের শুরুতে ২১ মার্চ তারিখে আরম্ভ হয়। তবে নববর্ষের উদযাপন শুরু হয় বিগত বছরের শেষ বুধবারে। এসময় মানুষ আগুন জ্বালিয়ে তার উপর দিয়ে লাফ দেয় আর আতশবাজি করে।

আগুনের উপর দিয়ে লাফানোর সময় উৎসবকারীরা বলে:

زردی من از تو ک سرخي تو از من

আমার হলুদ নাও, আমাকে তোমার লাল দাও।

অন্য কথায় মানুষ বলছে, “আমার দুর্বলতা নিয়ে গিয়ে আমাকে তোমার শক্তি দাও।” এই শব্দগুচ্ছ নতুন বছরে সৌভাগ্যের আশা প্রকাশ করে।

আসলে ইরানীরা নিজেদের বিগত বছরের বোঝা ঝেড়ে ফেলে নতুনভাবে শুরু করার আশায় “আগুন নিয়ে খেলে।” ওয়াশিংটনে নতুন শাসকগোষ্ঠী থাকায় ইরানে এবছর কাহারশানবা সুরি বিশেষভাবে জনপ্রিয় হতে বাধ্য।