বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

তিউনিশিয়ার কিশোর ফেসবুকে বিদ্যালয়ের বাজে পরিস্থিতির নিন্দা জানিয়ে নিজেকে বহিষ্কারের ঝুঁকির মধ্যে ফেলে দিয়েছে

Garbage accumulates outside of a secondary school in Bizerte, Tunisia. Photo by Hamza Batti via Facebook.

তিউনিশিয়ার বিজেরতে-এর এক মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বাইরে আবর্জনার স্তুপ, হামজা বাত্তি-এর তোলা ছবি। ফেসবুকের মাধ্যমে পাওয়া।

তিউনিশিয়ার উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এক ছাত্র হয়ত বিজেরতে অবস্থিত তার স্কুলের নোংরা নিয়ে ফেসবুকে নিন্দা জানানোর কারণে তিনদিনের বহিষ্কারের মুখোমুখি হওয়ার মত শাস্তি পেতে যাচ্ছে। ৩০ সেপ্টেম্বর তারিখে হামজা বাত্তি চারটি ছবি প্রকাশ করেছে যেখানে দেখানে হয় বিদ্যালয়ের বাস্কেটবল খেলার মাঠে অসমাপ্ত নির্মাণ কাজ এবং প্রবেশ দ্বারের সামনে জমে থাকা আবর্জনার স্তূপ।

ছবির সাথে সে নীচের এই মন্তব্যটি পোস্ট করেছে :

এটাকে বিজেরতে–এর এক উন্নত “বিদ্যালয়” বলা যায়, যা এমন এক প্রতিষ্ঠান হওয়ার কথা যেখানে পড়ালেখার পরিবেশ হবে মানসম্মত এবং অসাধারণ সাফল্যের সবচেয়ে মৌলিক উপাদান সমূহ যেখানে হবে সহজলভ্য।
[…]
…দ্বিতীয় প্রবেশদ্বারের পাশে সবজায়গায় আবর্জনা ছড়িয়ে আছে যা আমাদের এই উন্নত স্কুলের এক অসাধারণ ছবি তুলে ধরছে…আরেক রূপে বিদ্যালয়ের ভেতরেও আবর্জনা দৃশ্যমান, যেমন ভেতরে সব জায়গা, বিশ্রাম কক্ষ (এমনকি আমি সেগুলোর বর্ণনাও দিতে চাই না), ভাঙ্গা জানালা এবং দরজা সবখানে ধুলার স্তর, আর দেওয়ালগুলো প্রতি চার বছরে একবার রং করা হয়।
[…]
যাইহোক, আপনি প্রতিদিন উন্নত এই বিদ্যালয়ে এই সকল এবং আরো অনেক কিছু আবিস্কার করবেন, যা উত্তর আফ্রিকার তিউনিশিয়ার বিজেরতের এক সাধারণ চিত্র।

এক বেসরকারি মালিকানাধীন রেডিও স্টেশনকে বাত্তি জানায় যে ৫ অক্টোবর তারিখে স্কুল কর্তৃপক্ষ তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে, যারা অভিযোগ আনে হামজা স্কুলের বিরুদ্ধে নোংরা এবং বিকৃত প্রচারণা চালাচ্ছে”। রেডিও স্টেশনকে প্রদান করা এক সাক্ষাৎকারে হামজা তার উদ্দেশ্য পরিষ্কার করে:

আমি কেবল স্বাধীন ভাবে আমার মনোভাব প্রকাশ করেছি,আর বিদ্যালয়ের পরিস্থিতির উন্নতির জন্য এ সব ছবি পোস্ট করার অধিকার আমার রয়েছে। আর এটা ছিল আমার লক্ষ্য।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .