বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

মিয়ানমারে তীব্র গরমের পর ৫০ বছরের মধ্যে সবচে’ ভয়ংকর শিলাঝড় আঘাত হেনেছে

Kakku pagodas in southern Shan State damaged after strong winds. Photo by Myanmar Army Commander-in-Chief Office / Facebook. Photo taken from The Irrawaddy, content partner of Global Voices.

দক্ষিণের শান রাজ্যের কাক্কু প্যাগোডা। প্রচণ্ড শিলাঝড়ে প্যাগোডার ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। সেনাপ্রধানের অফিসের ফেসবুক পেইজ থেকে ছবিটি নেয়া হয়েছে। গ্লোবাল ভয়েসেস-এর কনটেন্ট পার্টনার ইরাবতি’র থেকে ছবিটি নিয়ে ব্যবহার করা হয়েছে।

সম্প্রতি মিয়ানমারের কয়েকটি রাজ্যে ব্যাপক শিলাঝড় হয়েছে। শিলাঝড় এমন একটি সময়ে হয়েছে, যখন দেশটিতে তীব্র গরম বিরাজ করছে। তাছাড়া তাপমাত্রা বৃদ্ধির কারণে দেশটি দীর্ঘায়িত খরার মুখে পড়েছে। শিলাবৃষ্টির সময় মান্দালয়, শান এবং সিন রাজ্যে প্রচণ্ড বাতাস বয়ে গেছে।কোনো কোনো শিলার আকার ছিল গলফ বলের সমান।

সারাদেশে ১৭০০’র বেশি প্যাগোডা এবং ৭৫০০’র বেশি ঘরবাড়ির ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ৫০ বছরের মধ্যে এমন ভয়াবহ শিলাঝড় আর হয় নি।

গ্রীষ্মের মাঝামাঝি সময়ে শিলাবৃষ্টি হওয়ায় অনেকে অবাক হয়েছেন। সাম্প্রতিক সময়ে এল নিনোর বিরূপ প্রভাবের কারণে ফসল উৎপাদন করতে গিয়ে মিয়ানমার হিমশিম খাচ্ছে। গ্রাম এবং শহর সবখানেই পানি সংকট দেখা দিয়েছে। গ্রামীণ জনপদের মানুষ যারা বৃষ্টির উপর নির্ভর করে ফসল উৎপাদন করেন, সেই কৃষকরাও তীব্র পানি সংকটে ভুগছেন। হাসপাতাল সূত্র থেকে জানা গেছে, তীব্র গরমের কারণে হিট স্ট্রোকের ঘটনা বৃদ্ধি পেয়েছে।

আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন, তীব্র গরমের সাথে দেশটির “বায়ুমণ্ডলীয় অস্থিতিশীলতা”র সম্পর্ক রয়েছে।

মিয়ানমারের ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা শিলাবৃষ্টির কিছু ছবি অনলইনে শেয়ার করেছেন:

মিয়ানমারের শিলাখণ্ড

মান্দালয় রাজ্যের সিন্টকাই এলাকার কয়েকটি গ্রামে তীব্র ঝড়ো হাওয়ার সাথে শিলাবৃষ্টি আঘাত হেনেছে। সূত্র: মিজ্জিমা নিউজ

মিয়ানমারের মান্দালয় এবং সাগাইনে শিলাঝড় আঘাত এনেছে। এটা ছিল রোমাঞ্চকর। আমার জীবনে এরকম শিলাঝড় দেখিনি।

#Hailstones at my home back door Photo taken by Dad. (23Apr16)

A photo posted by WinLei Phyu (@winleiphyu) on

আমাদের ঘরের পিছনের দরজায় সামনে পড়ে আছে শিলাখণ্ড। আমার বাবা সেটার ছবি তুলেছেন (২৩ এপ্রিল ২০১৬)।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .