বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

শিল্পের মাধ্যমে মেক্সিকোতে রাস্তায় সংঘঠিত যৌন হয়রানী বিরুদ্ধে লড়াই করছে দি ডটার অফ ভায়োলেন্স-এর নারীরা

শিরোনামে লেখা রয়েছেঃ যৌন হয়রানকারীঃ বালিকা, “আমি তোমাকে সন্তান উপহার দেব/ আমি তোমাকে গর্ভবতী বানিয়ে ছাড়ব” এই সমস্ত ছোকড়ারা পিতৃতান্ত্রিকতার স্বাস্থ্যবান সন্তান। ২০১৪ সালের আন্তর্জাতিক সড়ক যৌন হয়রানী প্রতিরোধ সপ্তাহে এই ব্যানারটি ব্যবহার করা হয়েছিল। ছবি ফ্লিকারে প্রদর্শন করেন ওসিএসি চিলি (সিস বাই-এনসি ২।০)

রাস্তায় সংঘঠিত যৌন হয়রানী এমন এক বাস্তবতা প্রতিদিন যার শিকার হয় বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নারীরা। এটি হচ্ছে এমন এক উদ্বেগজনক বিষয় যা নিয়ে গ্লোবাল ভয়েসেস অতীতে একাধিকবার লেখা হয়েছে। মেক্সিকোতে নারীবাদী দল লাস হিজাস ডে ভিওলেন্সে (লড়াকু নারীরা) প্রতিদিন মৌখিক যে আক্রমণের শিকার হয়, তার বিরুদ্ধে লড়াই করছে শিল্পের মাধ্যমে:

Las hijas de Violencia […] Buscamos, a través del arte performático, el punk y el video, abordar la violencia machista legitimada socialmente.
[…]
Así nació la idea de realizar un proyecto artístico que además de buscar una propuesta estética, sea un grito público que invite a la reflexión de los temas que abordamos.
[…].
Nosotras somos las hijas de Violencia, cargamos años de transitar en un espacio público hostil que no da cabida al cuerpo femenino como un cuerpo transitante sino un cuerpo para el goce y disfrute externo.

আমরা সহিংসতার কন্যা, […] আমরা বীরপুরুষের সামাজিক ভাবে বৈধ হামলার বিষয়ে কথা বলার জন্য আমরা শিল্প, পাঙ্ক রক গান এবং ভিডিওর সাহায্য গ্রহণ করেছি।
[…]
আর এই কারনে এই চিন্তা থেকে এই শৈল্পিক প্রকল্পের জন্ম হয়েছে, যে কেবল শৈল্পিক দৃষ্টিভঙ্গি নয়, এটা জনতার মাঝে হয়ত শোরগোল ফেলে দেবে যা যে বিষয়ে আমরা কথা বলতে চাইছি সে বিষয়ে দৃষ্টিভঙ্গি প্রদানে আহ্বান জানায়।
[…].
আমরা দি ডটার অফ ভায়োলেন্স (সহিংসতার কন্যা), আমরা বছরের পর বছর একাকি এমন এক বৈরী গণপরিবেশে হেঁটে গেছি যেখানে নারীদের দেহ যেন বেড়ানোর উপযোগি কোন শরীর নয় বরঞ্চ এমন একটা কিছু বাহিক্য উল্লাস এবং আনন্দ প্রদানের উপাদান।

তারা হচ্ছে দি ডটার অফ ভায়োলেন্স (সহিংসতার কন্যা), মেক্সিকোর বালিকা যারা রাস্তায় সংঘঠিত যৌন হয়রানী রোধে উঠে দাড়িয়েছে/ প্রতিবাদ মুখর হয়েছে

এই দলের সদস্য হচ্ছে আনা কারেন, আনা বিয়েত্রিজ, এলিসা গুতিয়ারেজ, ভেরিনিকা ব্রাভো, বেতজাবেথ টরেস এবং প্যাট্রিসিয়া রড্রিগুয়েজ এবং এক সাথে মিলে :

[…] han decidido responder al acoso callejero disparando simbólicamente a sus agresores con pistolas de confeti y cantándoles su tema Sexista Punk, en el que denuncian el acoso callejero como acto de agresión machista.

[…] আমরা প্রতীকী ভাবে রাস্তায় সংঘঠিত যৌন হয়রানির বিষয়ে সাড়া প্রদানের সিদ্ধান্ত নিয়েছি যারা তাদের উপর নিপীড়নকারীদের কনফেত্তি বন্দুক নিয়ে হামলা চালাবে এবং তাদের হান সেক্সিয়েস্ট পাঙ্ক গান টি গাইবে। যেখানে তারা বীরপুংদের আক্রমনাত্বক কার্মকাণ্ড হিসেবে এর নিন্দা জানাবে।

তাদের এই গানের কিছু কথা :

Eso que tú hiciste
hacia a mí se llama acoso.
Si tú me haces eso
de esta forma yo respondo.
No tienes derecho y lo que haces es de un cerdo
[…]
Imagino el día en que pueda ir a caminar
Sin cuidarme, sin tener mi cuerpo que ocultar
Sexista, machista ¿Qué es lo que quieres?
¿Mostrar tu hombría? ¡A la mierda de mi vista!

তোমারা আমাদের সাথে
যা করছ তাকে বলে হয়রানী
যদি তোমরা আমার সাথে এই আচরণ করতে থাক
তাহলে এভাবে আমি সাড়া দেব।
তোমাদের এই কাজ করার অধিকার নেই এবং তোমরা যা করছ তা নিছক বোকামী/ কাদা ছোড়া

[…]
আমি কল্পনা করি যখন থেকে আমি হাঁটতে সক্ষম হব
নিজেকে নিজের যত্ন নেওয়া ছাড়া, নিজের দেহকে লুকায়ে রাখা ছাড়া
যৌনাত্মক, বিরপুবং, আপনারা কি মনে করেন
নিজেদের পুরুষত্ব প্রদর্শন করা? গোল্লায় যাও!

প্রতিক্রিয়া প্রদর্শনের সময় দি ডটার অফ দি ভায়োলেন্সের কৌশল হবেঃ

Salen a la calle y esperan a que un tipo les grita ‘mamacita’ o lo que sea. Lo persiguen, le disparan con una pistola de confeti y le gritan una rola que dice, en resumen, ‘eso que tú hiciste hacia mí se llama acoso’. La idea no es mala ]…] sugieren que la víctima se defienda de manera lúdica.

তারা রাস্তায় হেঁটে যাওয়ার সয়য় একটি পুরুষের জন্য অপেক্ষা করে যাকে বলে, ওহে রাজকীয় বান্দা অথবা এ রকম কিছু। তারা এই ব্যক্তিকে অনুসরণ করে, খেলনার বন্দুক দিয়ে তাদের দিকে জরির টুকরা ছুড়ে দিয়ে এমন এক গান গায় যার সারমর্ম তোমরা আমাদের সাথে যা কর তাকে বলে হয়রানী। এটা বাজে কোন চিন্তা নয়[…]। তারা পরামর্শ প্রদান করছে যে এতে ঘটনার শিকার খেলার ছলে প্রত্যাঘাত করে।

দি ডটার অফ ভায়লেন্স সড়কে সংঠিত যৌন হয়রানী বিরুদ্ধে লড়াই এই হাস্যরসাত্মক এবং শান্তিপুর্ণ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার চিন্তায় সকল নারীদের যোগ দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছে:

[…] recomiendan que la respuesta ante estas situaciones tiene que ser divertida ‘para que no te quedes con la sensación de la violencia que acabas de sentir, para que tu te vayas tranquila y sepas que puedes seguir teniendo un día increíble’.

[…] তারা পরামর্শ প্রদান করছে যে এই ধরণের পরিস্থিতির বিষয়ে উত্তরগুলো হবে মজার, আর এ কারণে আপনি হয়ত সেই অনুভুতির মধ্যে দিয়ে নাও যেতে পারেন যার মধ্যে বাস্তবে আপনি যান/যা সহিংসতার মধ্যে দিয়ে কেবল আপনি গিয়েছেন, কাজে আপনি শান্ত হয়ে আপনার মত করে যেতে পারবেন এবং এটা জানবেন যে আপনার এক চমৎকার দিন রয়েছে। .

তার ব্লগ পরনুকোপিয়া, এস্তেফানিয়া ভেলা বারবার আমাদের সামনে একটি প্রতিচ্ছবি তুলে ধরেছে যেটি দেখা যাচ্ছে যে মেয়েরা একা নয় এবং অসহায়ও নয়:

¿Por qué al discutir la violencia sexual, siempre nos imaginamos a un hombre que es más fuerte que una mujer —a quien siempre nos imaginamos desarmada, inútil, frágil—, en un callejón oscuro, vacío y sin salida? Sí. Este escenario es posible. Pero no es el único. No lo es. El performance de Las hijas de Violencia es extraordinario precisamente porque nos demuestra otra posibilidad: no nos presenta a una mujer, indefensa, aislada, presa del pánico que no puede más que sucumbir a la fuerza desmedida de un hombre.

কেনই বা এটা ঘটে যখন যৌন হয়রানী নিয়ে আলোচনার সময় কেন আমরা সবসময় ভাবি একজন পুরুষ একজন নারীর চেয়ে বেশী বলবান- আর নারী যাদের আমরা সবসময় কল্পনা করেছি নিরস্ত্র, অসহায়, ভঙ্গুর-এমন এক অন্ধগলিপথে যার থেকে বের হওয়ার কোন রাস্তা নেই? হ্যাঁ, সেটাই সম্ভব্য দৃশ্য। কিন্তু এটাই একমাত্র বিষয় নয়। দি ডটার অফ ভায়োলেন্স –এর প্রদর্শন অসাধারণ কারণ এটি দেখাচ্ছে এক ভিন্ন সম্ভাবনার। এটা অসহায়, বিছিন্ন নারীর তুলে ধরে না, যে উদ্বিগ্ন আর কোন পুরুষের মুখোমুখি হওয়ার ক্ষেত্রে নিজেকে আত্মসমর্পন করে ফেলে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .