বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

জিভি অভিব্যক্তিঃ ইউরোপের শরণার্থীদের মতো বাঁচতে তিনি ব্রাজিল ছেড়েছেন

ব্রাজিলিয়ান মানবধিকার কর্মী ও অপরাধ বিষয়ক আইনজীবী এডগার্ড রাউল সাও পাওলোর একটি আইনি পরামর্শ দানকারী সংস্থায় কাজ করেন। অসহায়ত্ব নিয়ে কয়েক মাস ধরে সিরিয়া থেকে পলায়নপর মানুষ ও ইউরোপে তাঁদের বিপজ্জনক যাত্রার ছবি এবং ভিডিও দেখার পর তিনি তাঁর চাকরী থেকে অব্যাহতি নিয়েছেন এবং এর পেছনেই জীবন ব্যয় করার চিন্তা করেছেন।

ইউরোপে পালিয়ে যাওয়ার মাধ্যমে শরণার্থীরা কী রকম তিক্ত অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হয়েছিল তিনি তা অনুভব করতে চেয়েছিলেন। তিনি তুরস্ক দিয়ে তার যাত্রা শুরু করেন। এরপর গ্রিক দ্বীপ লেসভস, এথেন্স ও ইডিমনি হয়ে ম্যাসাডোনিয়া, সার্বিয়া, স্লোভেনিয়া, ক্রোয়েশিয়া, অস্ট্রিয়া এবং জার্মানিতে গিয়েছেন। তাঁর এই সমস্ত যাত্রাপথে তিনি শরণার্থীদের সাথে বসবাস করেছেন।

আমাদের মধ্যপ্রাচ্য প্রদায়ক ফাতেন বুশেরি অ্যামস্টারডামে এডগার্ডের একটি সাক্ষাৎকার নিয়েছেন। সেখানে তিনি বর্তমানে যাত্রার বিরতি দিয়ে মধ্যপ্রাচ্যে তাঁর ভ্রমণের প্রস্তুতি গ্রহণ করছেন। তিনি বলেছেন যে তিনি বুঝতে চান শরণার্থীরা আসলে কোথা থেকে আসে।

জিভি অভিব্যক্তির এই পর্বে আমরা এডগার্ডকে জিজ্ঞাসা করেছিলাম, জীবনকে সেই পথে নিতে কি তাঁকে প্রেষণা জুগিয়েছে এবং শরণার্থীদের সাথে সাক্ষাৎ ও বসবাস করে তিনি কি কি শিখলেন?

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .