বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ইরানের মৌসুমের প্রথম তুষারপাতের আলোকচিত্র

ছবি কৃতজ্ঞতা @গ্যারিলুইসইউএন। তুষারে জমাটবদ্ধ তেহরান।

গত ৭ ডিসেম্বর, সোমবার ইরানে মৌসুমের প্রথম তুষার পড়েছে। দেশটির উত্তরাঞ্চলের অধিবাসীরা সকালে ঘুম থেকে জেগে উঠে দেখলেন তুষারে ঢেকে গেছে চারপাশ।

ইরান সম্পর্কে বেশিরভাগ মানুষের ভুল ধারনা রয়েছে। সবাই মনে করে এটি মরুভুমির দেশ। এখানে খুব গরম পড়ে। কিন্তু বাস্তবতা হলো, চার ঋতুর দেশ ইরান। রাজধানী শহর তেহরান আলবুর্জ পর্বত দিয়ে ঘেরা। যার ফলে শীত মৌসুমে স্কেটিংয়ের জন্য এটি একটি আদর্শ জায়গা হয়ে উঠে।

আনুষ্ঠানিকভাবে শীত শুরুর আগে ডিসেম্বর মাসে তুষার পড়ার ঘটনা ইরানে বিরল। সর্বশেষ অতি তুষারপাতের ঘটনা ঘটেছিল ২০১৪ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে। এতে রাস্তাঘাট পর্যন্ত চলার অনুপযুক্ত হয়ে পড়েছিল। অবশ্য প্রতিবছরই ব্যাপক তুষারপাত হয় এমন না। ২০১৪ সালের আগে আরেকবার অতি তুষারপাতের ঘটনা ঘটেছিল ২০০৮ সালে। সেসময়ে দেশটিতে দু’দিনের জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছিল। রাজধানী তেহরান তুষারে আটকে গিয়েছিল।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারীরা মৌসুমের প্রথম তুষারপাতের দৃশ্য তুলে ধরেছেন। ইরানে জাতিসংঘের আবাসিক প্রতিনিধি গ্যারি লুইস ইরানের বাইরে বসবাসকারী তার বন্ধুদের জন্য তুষারপাতে ছবি টুইটারে পোস্ট করেছেন। ছবিগুলোতে তুষারাবৃত ইরানে সৌন্দর্য ফুটে উঠেছে।

আবার কয়েকদিনের মধ্যে তুষারপাতের ঘটনা ঘটলো। তেহরানকে এমন রূপে আমি আগে কখনো দেখিনি। প্রবাসী বন্ধুরা উপভোগ করুন তুষারপাতের আলোকচিত্র।

১৯৭৯ সালে ইরানের ইসলামী বিপ্লবের প্রতিষ্ঠাতা আয়াতুল্লাহ রুহুল্লাহ খোমেনি’র ছেলের ঘরের নাতি আহমদ খোমেনি তেহরানের তুষারাবৃত গাছের ছবি পোস্ট করেছেন। তিনি ছবি’র ক্যাপশনে লিখেছেন, মৌসুমের প্রথম তুষার, ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য আনন্দের দিন।

• برف نو ، روز دانشجو مبارك…

A photo posted by سيد احمد خمينى (@ahmadkhomeini) on

৭ ডিসেম্বর ইরানের ইতিহাসে এক বেদনাদায়ক দিন। ১৯৫৩ সালের এইদিনে তেহরান বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা দাবি আদায়ে রাস্তায় নেমেছিল। এ সময় পাহলভী সরকারের পুলিশ গুলি করে কয়েকজন শিক্ষার্থীকে হত্যা করে।

বাবাক রাহিমি নামের আরেকজন ইনস্ট্রাগ্রাম ব্যবহারকারী তেহরানের মিলাদ টাওয়ারের একটি ছবি পোস্ট করেছেন। ছবি’র ক্যাপশনের সাথে তিনি তুষার, ফলি হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করেছেন।

  #برف #پاييز ى! #❄️ #🌨   A photo posted by Babak Rahimi (بابک رحیمی) (@babakrahimi) on

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আপলোড করা ইরানের মৌসুমের প্রথম তুষারপাত দেখতে ইনস্ট্রাগ্রামের তুষার (স্নো) হ্যাশট্যাগ অনুসরণ করতে পারেন।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .