বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

কি ভাবে বিদ্যালয়ের দুপুরের খাবার জাপানের শিক্ষা ব্যবস্থায় এক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে

যারা জাপানের বিদ্যালয়ে গমন করেছেন কিংবা সেখান থেকে শিক্ষা গ্রহণ করেছেন, তারা বলতে পারবেন, সেখানকার বিদ্যালয়গুলোর দুপুরের খাবার বা কীয়ুশোকু হচ্ছে সেদিনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অংশ।

এটা কেবল পুষ্টি প্রদান করে না, একই সাথে এটি শিক্ষক এবং ছাত্রদের একসাথে বসে খাওয়ার এক মাধ্যমে এক বন্ধন তৈরি করার শিক্ষা প্রদান করে।

সাধারণত এই সব খাবার বিদ্যালয়ের এক বিশাল রান্নাঘরে কিংবা কেন্দ্রীয় এক এলাকা যেখানে সমগ্র বিদ্যালয়ের প্রতিটি বিভাগে জন্য সেবা প্রদান করা হয় সেখানে বিদ্যালয়ের নিয়মিত কর্মী (বাবুর্চি) এই রান্না করে থাকে, আর প্রতিষ্ঠানের ছাত্রছাত্রী তাদের সহপাঠীদের খাবার সরবরাহের দায়িত্ব নিয়োজিত থাকে।

নিউ-ইয়র্ক ভিত্তিক ক্যাফেটরিয়ার কালচার (ক্যাফকা) নামক প্রতিষ্ঠান, যারা সৃষ্টিশীল ভাবে সরকারি বিদ্যালয়ের ক্যাফে এবং পরিবেশ সচেতন সম্প্রদায় যাতে বিন্দুমাত্র খাবার নষ্ট না করে সে বিষয়টি অর্জন করার এক লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করেছে, যা দর্শকদের যুক্ত করে এমন এক ভিত্তিক তথ্য বিষয়ক ভিডিও তৈরি করেছে। কি ভাবে বিদ্যালয়ের দুপুরের খাবার শিক্ষার এক মৌলিক অংশ হতে পারে সে বিষয়ে এই ভিডিওটি দারুন এক উপলব্ধি প্রদান করেছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .