বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

রাইজা রুইজ এর কাহিনী, যখন সে দিব্যি বেঁচে আছে, তখন তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়েছে

Raiza Ruiz. Imagen tomada de Radio Ambulante.

রাইজা রুইজ, ছবি রেডিও আম্বুলান্তে থেকে গ্রহণ করা

রাইজা রুইজ এক বিচিত্র অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হয়েছেন, যখন তিনি দিব্য বেঁচে আছেন তখন আইনগত ভাবে তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়েছে।

শেষ লাইনটি থেকে কি আরো একবার পড়তে চান? এক্ষেত্রে আপনি একমাত্র ব্যক্তি নন। তবে রাইজা রুইজ এর জন্য এটা একটা এক বিচিত্র বাস্তবতা, যে কিনা ভেনেজুয়েলার আমাজানিয়া প্রদেশে যাওয়ার পথে সংঘঠিত এক বিমান দুর্ঘটনার একমাত্র বেচে যাওয়া যাত্রী। সে সময় রুইজা এই রাজ্যের রাজধানী পুয়ের্টো আয়াকুচোর উদ্দেশ্যে যাত্রা করেছিলেন। এই দুর্ঘটনার ঘটনার সময় রাইজার বয়স ছিল ২৬ বছর এবং সে তখন উক্ত এলাকার এক আদিবাসী সম্প্রদায়ের এক শিক্ষানবিস চিকিৎসাবিদ হিসেবে কাজ করছিল:

Decía yo en la selva: ‘Aquí no me muero, aquí no me muero. A mi que me encuentren. Yo me muero en Caracas y cuando yo quiera.’ Imagínate tú qué osada, qué necia, qué horror.

রেইন ফরেস্টে-এ আমি নিজেকে বললাম,, “আমি এখানে মারা যেতে চাই না, আমি এখানে মারা যেতে চাই না। তারা আমাকে খুঁজে বের করবে। আমি যখন চাইব, তখন আমি কারাকাসের মারা যাব”। এর মাঝে যে সাহসিকতা, মূঢ়তা, এবং যে আতঙ্ক রয়েছে সে বিষয়টি কল্পনা করুন…

এই বেদনাদায়ক ঘটনা আজীবনের জন্য তার মাঝে ছাপ ফেলে গেছে। এই দুর্ঘটনার পর রুইজ নিজেকে বেশ কিছু অদ্ভুত পরিস্থিতির মাঝে আবিষ্কার করে, যার মধ্যে রয়েছে পুলিশ কর্তৃক তার বিবৃতিকে খারিজ এবং বাতিল করে দেয়া, কারণ পুলিশ কোন একজন জানিয়েছিল যে আসলে রুইজ মারা গেছে।

নীচে আপনারা তার সম্পূর্ণ সাক্ষাৎকারটি শুনতে পাবেন, যা স্প্যানিশ ভাষায় প্রদান করা হয়েছে, আর এর শিরোনাম “এক মৃতের উপাখ্যান, ভুলক্রমে যা ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়েছে”, এটি তৈরি করেছে রাফায়েল ডেভিড সুলবারিয়ান,যিনি প্লামাভালোটিল.কমের সাংবাদিক এবং নির্দেশক, যার সাথে ছিলেন আমাদের সিলভিয়া ভিনাস, যিনি ল্যাটিন আমেরিকার গ্লোবাল ভয়েসেস-এর প্রাক্তন সম্পাদিকা। এই সাক্ষাৎকারের ইংরেজিতে অনুবাদের প্রতিলিপি এখানে রয়েছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .