বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

গ্রীন মুভমেন্ট নামক সরকার বিরোধী আন্দোলনের নেতার পুত্র ইরানের পারমাণবিক চুক্তির সমর্থনে এগিয়ে এসেছে

ইরান এবং বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাশালী ছয়টি রাষ্ট্রের মাঝে স্বাক্ষরিত চুক্তির সমর্থনে ইরানের ভিন্ন মতাবলম্বী একদল নাগরিক এগিয়ে এসেছে।

আর এক্ষেত্রে সাম্প্রতিকতম ব্যক্তিটি হচ্ছে মোহাম্মদ তাগহি কারোবি, যিনি ২০০৯ সালে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী এবং গ্রীন মুভমেন্ট নামক আন্দোলনের নেতা মেহেদি কারোবির পুত্র। ইরানে অনুষ্ঠিত ২০০৯ সালে নির্বাচন পরর্বতী অস্থিরতায় তার ভূমিকার কারণে ২০১১ সাল থেকে মেহেদি কারোবি গৃহবন্দী অবস্থায় রয়েছে।

মোহাম্মদ তাহগি কারোবি, সে প্রায়শ তার পিতার অনানুষ্ঠনিক মুখপাত্র হিসেবে কাজ করে। সে আইনের এক অধ্যাপক এবং ইরানের অভ্যন্তরে শিক্ষাদানে তার প্রতি নিষেধাজ্ঞা রয়েছে,আর এখন সে নির্বাসনে রয়েছে এবং সে এক গণতন্ত্রপন্থী একটিভিস্ট। সে এই চুক্তির প্রতি তার সমর্থন প্রদান করেছে এবং আশা করছে যে এটি ইরানিদের জন্য এক উজ্জ্বল ভবিষ্যতের বয়ে আনবে, এই কামনা করে ৩০ সেকেন্ডের এক ভিডিও প্রকাশ করেছে।

ইরানের নাগরিকদের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করার জন্য তার ফেসবুকের পোস্টের নিচে তাকে ধন্যবাদ জানিয়ে অনেকে মন্তব্য করেছে

চার বছর ধরে গৃহবন্দী গ্রীন মুভমেন্ট আন্দোলনের নেতার মেহেদি কারোবির পুত্র পারমাণবিক চুক্তির প্রতি তার সমর্থন প্রদান করেছে।

কারোবি, ইরানে ক্রমশ বাড়তে থাকা সেই সব গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের দলের যোগ দিল যারা এই পারমাণবিক চুক্তির পক্ষে। ১৪ জুলাই-এ ২০১৫ তারিখে ভিয়েনায় অনুষ্ঠিত শান্তি চুক্তি যাতে স্বাক্ষরিত হয় এই উদ্দেশ্যে ইরানে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার বিষয়ক প্রচারণার সাথে মিলে গ্লোবাল ভয়েসেস ইরানের সুশীল সমাজের উল্লেখযোগ্য সংখ্যক সদস্যদের স্বাক্ষর সংগ্রহে নেতৃত্ব প্রদান করে।

গত সপ্তাহে ইরানের ৯০ দশকের প্রখ্যাত সংস্কারপন্থী ব্যক্তিত্ব আহমেদ বাতেবি চুক্তি বিরোধী উন্মুক্ত চিঠিতে স্বাক্ষর করে এবং এই চুক্তির নিন্দা জানানোর এক বিজ্ঞাপন হিসেবে আবির্ভুত হয়। এর সাথে আরেকটি ভিডিও যুক্ত করা হয়েছে যে ভিডিওতে মোহাম্মদরেজা জালেইপোরকে তুলে ধরা হয়েছে, যিনি ২০০৯ সালে রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী মীর হোসেন মুসাভির এক সমর্থক এবং প্রচারক ছিলেন , গ্রীন মুভমেন্ট–এর সাথে সম্পৃক্তার কারণে যাকে দুবার গ্রেফতার করা হয়েছে।

রাজনৈতিক ভিন্নমতাবলম্বী ব্যক্তিরা ইরানের পারমাণবিক চুক্তির প্রতি তাদের সমর্থন প্রকাশ করছে। এক নাম্বার ভিডিও, মোহাম্মদ জালেইপোর-এর ভিডিও।

 

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .