বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

‘গ্রিক বেইল আউট’ ব্যর্থ হওয়ার পর গঠিত নতুন জনতার তহবিল প্রচারাভিযানে অনুদানের স্রোত

A screenshot of the new Indiegogo campaign "Greek Crowdfund."

“গ্রিক ক্রাউডফান্ড” নামের নতুন ইন্ডিয়েগোগো জনতার তহবিল গঠন প্রচারণার একটি স্ক্রিনশট

নগদ অর্থের সংকটে পড়া গ্রীসের জন্য অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারের (বেইল আউট) একটি প্রচারাভিযান শুরু হয়েছিল। ক্রাউডফান্ড বা জনতার তহবিল নামের এই নির্দিষ্ট প্রচারাভিযানের সময়সীমা গতকালই শেষ হয়ে গেছে। কিন্তু এর ১.৬ বিলিয়ন ইউরো (প্রায় ১.৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার) সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়নি।

গত আট দিনের মধ্যে “গ্রিক বেইল আউট তহবিল” সারা বিশ্বের ১,০৮,৬৫৪ জন মানুষ থেকে ১৯,৩০,৩৬৬ ইউরো সংগ্রহ করতে সক্ষম হয়েছে, যা সত্যিই অসাধারণ। কিন্তু যেহেতু এটা তার লক্ষ্য পূরণ করতে পারেনি, তাই প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী সব টাকা ক্রাউডফান্ডিং প্ল্যাটফর্ম ইন্ডিয়েগোগো’র “ফিক্সড ফান্ডিং” নিয়মানুযায়ী ফেরত দেওয়া হবে।

কিন্তু এটাই গ্রীসের জন্য থম ফেনি’র জনতার তহবিল গঠনের প্রচেষ্টার শেষ নয়। প্রচারাভিযানের মূল উদ্যোক্তা যুক্তরাজ্যের ২৯ বছর বয়সী জুতার দোকানের এই কর্মচারী, একটি নতুন প্রচারণার ঘোষণা দিয়েছেন। এই নতুন প্রচারাভিযানটি ডেসমস নামের একটি গ্রিক দাতব্য ফাউন্ডেশনকে সহায়তা করবে, যার মাধ্যমে “১৬-২৪ বছর বয়সীদের কাজ পেতে সেটা যথা সম্ভব কাজ করবে”:

আমি চাই অল্প বয়সী যুবারা আশা নিয়ে বাঁচুক, দক্ষতা অর্জন করুক, তাদের অর্থনীতিকে সামনের দিকে এগিয়ে নিক এবং গ্রীসে এসে তাদের বেতন বিনিয়োগ করুক। এইসব অল্প বয়স্ক যুবারা তাদের দেশে বিদ্যমান অবস্থায় সাহায্য করার জন্য দাতব্য, প্রযুক্তি এবং অন্যান্য যোগ্য স্থানে কাজ করবে।

গ্রীসের এক-চতুর্থাংশ জনগণ বেকার, কিন্তু ২৫ বছরের কম বয়সীদের জন্য তা প্রায় ৫০ শতাংশেরও কাছাকাছি পৌঁছে গেছে।

এই দ্বিতীয় অভিযানের নাম দেওয়া হয়েছে “গ্রীস ক্রাউডফান্ড”, যেটির শর্তগুলো প্রথম বারের চেয়ে ভিন্ন। এটা ১৪ দিনে উত্থাপিত যেকোনো পরিমাণ টাকা গ্রহণ করবে, এমনকি সেটা এই সময়ে তাঁর কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে না পৌঁছালেও। তবে এই সময়ের মধ্যে এর লক্ষ্য ১ মিলিয়ন ইউরো। এই প্রবন্ধটি লেখার সময় পর্যন্ত গত ৬ ঘণ্টায় ১,১০১ জন মানুষ ২১,৩৬৫ ইউরো অনুদান দিয়েছেন। এর অর্থ প্রচারাভিযানটি এগিয়ে চলছে।

জেরস্টি ওয়াটারলু, যিনি মূল প্রচারাভিযান এবং নতুনটিতে অবদান রেখেছেন মন্তব্য করেছেন, “দ্বিতীয় প্রচারাভিযানটি তার লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারবে বলে আশা করছি!” তিনি আরও বলেছেন, “ইউরোপের বাকি সবার জন্য গ্রীকদের সাহায্য করার সময় এসে গেছে :)”

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .