বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

উইকিলিকসে ফাঁস হওয়া সৌদি নথিপত্রে ইরান বার বার উঠে এসেছে

Iran and Saudi Arabia have long challenged each other for geopolitical influence in the region, most recently during the 'proxy war' in Yemen. Wikimedia image.

ইরান এবং সৌদি আরব দীর্ঘ সময় ধরে এই উপসাগরীয় অঞ্চলে প্রভাব বিস্তার নিয়ে একে অন্যকে চ্যালেঞ্জ করে এসেছে, যার সাম্প্রতিক তম সময়ে যা ঘটেছে ইয়েমেনের “ছায়া যুদ্ধের” সময়। উইকিমিডিয়ার ছবি।

উইকিলিকসে ফাঁস হওয়া নতুন একগুচ্ছ সৌদি আরবের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নথি গভীরভাবে ইরানের সাথে দেশটির তীব্র আঞ্চলিক শত্রুতার বিষয়টি ধরেছে।

এখন পর্যন্ত ইরানী পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ফাঁস হয়ে যাওয়া উক্ত নথি গুচ্ছ থেকে প্রতিদিন ২৩টি করে বর্ণনা করেছেঃ

সৌদি আরবের ফাঁস হয়ে যাওয়া নথি থেকে ৬, ১০, ১১ তারিখ–এ দৈনিক বর্ণনা করা ২৩টি নথি থেকে দারুণ আকর্ষণীয় কিছু তথ্য পাওয়া গেছে।

স্যোশাল মিডিয়া ব্যবহারকারীরা ইরানের সাথে সৌদি আরবে এই গভীর লড়াই-এর বিষয়টি উল্লেখ করেছে। এখন পর্যন্ত ফাঁস হওয়া ৬০,০০০ নথির মধ্যে প্রায় ১,৫০০ টি নথিতে ইংরেজি অথবা আরবিতে ইরান বা ইরানের নাগরিকদের কথা উল্লেখ রয়েছে। যত এ সকল নথি বিশ্লেষণ করা হচ্ছে, ততই সৌদি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ইরানের সাথে সম্পর্ক স্থাপনে উদ্বেগের বিষয়টি ধরা পড়ছে।

ফাঁস হয়ে যাওয়া নথিতে দেখা যাচ্ছে সৌদি আরব ইরানের নিজস্ব উৎপাদিত যুদ্ধ বিমান নিয়ে উদ্বিগ্ন।

সৌদি আরব, মিশরের রাষ্ট্রপতি মুরসির সময় ইরান ও মিশরের সম্পর্ক নিয়ে সন্দিহান ছিল।

এ সব নথিতে দেখা যাচ্ছে ইরান এবং শিয়া সম্বন্ধে সৌদিদের আগ্রহ প্রচণ্ড।

সৌদি কেবল থেকে প্রাপ্ত প্রকৃত তথ্যঃ আরব বসন্তের সময় ইরানকে নিয়ে সৌদি আরব যে আতঙ্কে ছিল তা এই সব নথিতে স্পষ্ট প্রদর্শিত হয়েছে, আর এতে স্বাক্ষর রয়েছে সে সময়কার সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফয়সাল-এর।

ফাঁস হয়ে যাওয়া সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর নথিতে উল্লেখ রয়েছে আইআরআইবি [ইরান রেডিও]-এর সম্প্রচারে হস্তক্ষেপ করার বিষয়টি।

ফাঁস হয়ে যাওয়া নথিতে দেখা যাচ্ছে সৌদি আরব ইরানের নিজস্ব উৎপাদিত যুদ্ধ বিমান নিয়ে উদ্বিগ্ন।

সৌদি আরবের কয়েকজন স্যোশাল মিডিয়া ব্যবহারকারী দাবি করেছে যে এই সমস্ত নথি ফাঁস হয়ে যাওয়ার পেছনে ইরানের হ্যাকররা দায়ী। তবে অন্যের দ্রুত এই দাবীতে পানি ঢেলে দিয়েছেঃ

আর কারণ, এটা আপনি এই বিষয়টি জানতেন না, সৌদি আরব সরকারের কম্পিউটার থেকে ইরান নথি চুরি করেছে এবং হাজার হাজার নথি উইকিলিকসের কাছে পাঠিয়ে দিয়েছে, যা সে অনলাইনে সেগুলো পোস্ট করেছে

আরব উদারনৈতিকেরা সৌদি নথি ফাঁস হয়ে যাওয়া নিয়ে ক্ষুব্ধ। সৌদি শাসকদের ধ্বংসাত্মক রাজনীতির বিষয়ে তাদের কোন মন্তব্য নেই। তারা কেবল, ইরান, ইরান, ইরান করছে।

উইকিলিকসে ফাঁস হওয়া সৌদি নথি নিয়ে: আমাদের বিশেষ সংবাদ পাঠ করুন।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .