- Global Voices বাংলা ভার্সন - https://bn.globalvoices.org -

মুইসকা ভাষাকে ধ্বংসের হাত থেকে ফিরিয়ে আনতে উদ্যোগঃ কেবল একটি শব্দ করে

বিষয়বস্তু: কলম্বিয়া, আদিবাসী, নাগরিক মাধ্যম, ভাষা
Muisca Observatory - Photo by amanderson2 and used under a CC BY 2.0 license. [1]

মুইসকা মানমন্দির – ছবি: এমেন্ডারসেন২ এবং সিসি বাই ২.০ লাইসেন্সের অধীনে ব্যবহৃত।

আনুষ্ঠানিকভাবে মুইসকা ভাষাটি [2] বিলুপ্ত হয়েছে। ভাষাটি চিবচা ভাষাতত্ত্ব পরিবারের একটি অংশ। মুইসকা লোকেরা আগে এ ভাষায় কথা বলত। কলম্বিয়ার কেন্দ্রীয় উচ্চভূমির চারপাশে ছিল এদের বসবাস। বর্তমানে বগোটা নামে পরিচিত অঞ্চলের আশেপাশের এলাকাটিও এতে অন্তর্ভুক্ত। ভাষাটির বেশিরভাগ ইতিহাসের বিভিন্ন বই এবং ১৬ ও ১৭ শতকের ভাষা বিষয়ক বিভিন্ন দলিলপত্র থেকে খুঁজে পাওয়া গেছে। এগুলো আর্কাইভ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। সেখানে এগুলো অব্যবহৃত অবস্থায় পড়ে ছিল। স্পেনের রাজা তৃতীয় চার্লসের [3]শাসনামলে ভাষাটির বিলুপ্ত হওয়ার পথ ত্বরান্বিত হয়। তাছাড়া আদিবাসী জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণের একটি উপায় হিসেবে রাজা তৃতীয় চার্লস এ ভাষার ব্যবহার নিষিদ্ধ করে দেন। ১৯৯১ সালে কলম্বিয়ার সংবিধান পাস হওয়ার পূর্ব পর্যন্ত আইনটি বহাল ছিল।

যদিও ভাষাটি সক্রিয়ভাবে ব্যবহৃত হয় না, তবুও এটি এখনও টিকে আছে এবং কলম্বিয়ানদের কারও কারও মুখে নিত্যনৈমিত্তিক জীবনে ভাষাটির কিছু কিছু শব্দ বেশ ভালোভাবেই বিরাজ করছে। এই শব্দগুলো মুইসকা ভাষা থেকে এসেছে। স্থানীয় বিভিন্ন পশু, গাছ এবং ফলমূলের বর্ননায় সাধারণত এই শব্দগুলো ব্যবহৃত হচ্ছে। শব্দগুলোকে “মুইসকুইসমস” [4] বলা হয়। আর বগোটা এবং তাঁর আশেপাশের অধিবাসীরা প্রায়ই এই শব্দগুলো ব্যবহার করে থাকেন। যদিও শব্দগুলোর উৎস না জেনেই তারা সেগুলো ব্যবহার করছেন।

Logo of the Muysccubun project.

মুইসকুবান প্রকল্পের লোগো।

এই বিলুপ্তপ্রায় ভাষাটির ঐতিহাসিক গুরুত্ব কলম্বিয়া জুড়ে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষাবিদ্যা এবং নৃতত্ত্ব বিষয়ে পড়াশুনা করছেন এমন একদল শিক্ষার্থীদের উৎসাহিত করে তুলছে। তারা ভাষাটিকে আবার ধীরে ধীরে পুনর্জীবিত করার কাজ করছেন। এক্ষেত্রে তারা ডিজিটাল বিভিন্ন টুল, এ্যাপ এবং নানা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোর সুবিধাগুলোকে কাজে লাগাচ্ছেন। তারা প্রকল্পটির নাম দিয়েছেন “মুইসকুবান” [5]। ইন্টারনেটে ভাষাটিকে লিপিবদ্ধ করতে এবং শেয়ার করতে এই প্রকল্পের অধীনে তারা কাজ করছেন। তাদের কার্যক্রমের মধ্যে রয়েছে, মুইসকা ভাষার প্রাথমিক উৎস উপকরণগুলোর প্রতিলিপি তৈরি করা এবং একটি উইকিতে [6] তা আপলোড করা। তারা একটি স্প্যানিশ-মুইসকা অনলাইন অভিধান তৈরি করেছেন। অভিধানটি একটি বিনামূল্য এ্যান্ড্রয়েড এ্যাপ [7] হিসেবেও পাওয়া যাচ্ছে।

গ্রুপটির ফেসবুক পেইজের [8] মাধ্যমেও এই সামগ্রীগুলো শেয়ার করা হয়েছে। উইকিতে উল্লেখিত নথিপত্র থেকে পেইজটিতে দিনে একটি করে মুইসকা শব্দ শেয়ার করা হয়। উদাহরণস্বরূপঃ [9]

Palabra del día:

iaia [10]

Fon. Gonz. */iaia/
Fon. Cons. */iaia/

1. Red *de pesca.
2. Despeinado.

আজকের শব্দঃ

iaia [10]

Fon. Gonz. */iaia/
Fon. Cons. */iaia/

১. মাছ ধরার জাল।

২. অপরিচ্ছন্ন।

মুইসকা ভাষার সাথে যুক্ত থাকার প্রযুক্তি ব্যবহারের এই অভিজ্ঞতা মুইসকুবান দলটিকে অনুরূপ উদ্যোগগুলোকে নেতৃত্ব দিতে অনুপ্রাণিত করছে। সেগুলোর মধ্যে রয়েছে, একটি অনলাইন সালিবা ভাষা-স্প্যানিশ অভিধান তৈরি করা। ক্যারো এবং কুয়েরভো ইন্সটিটিউটের সংযোগে একটি এ্যান্ড্রয়েড এ্যাপ [11] হিসেবেও এটি পাওয়া যাচ্ছে। তারা কলম্বিয়ান আদিবাসী ভাষাতে ফায়ারফক্স ব্রাউজারের স্থানীয়করণের প্রচার ঘটাতে [12] মজিলা কলম্বিয়ার সাথেও সহযোগীরূপে কাজ করে যাচ্ছে।

বগোটার পাশাপাশি বেশ কয়েকটি গ্রামীণ বিদ্যালয়ের [13] বিভিন্ন শ্রেণীতে মুইসকা ভাষা শেখানোর আরও কিছু নতুন উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। মুইসকা ভাষার নথিপত্র তৈরিতে এবং ভাষাটিতে নবজীবন সঞ্চার করতে ডিজিটাল প্রচার মাধ্যমে তাদের কাজগুলো ভাষাটিকে ছড়িয়ে দিতে সহায়ক হবে বলে প্রকল্পটি আশাবাদ ব্যক্ত করেছে।