বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

বাংলাদেশের ক্রিকেটে নতুন যুগের সূচনা হয়েছে

বাংলাদেশের ক্রিকেটে স্মরণীয় মুহূর্ত এটি। বাংলাদেশ ক্রিকেট দল ট্রফি নিয়ে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে গ্রুপ ছবি তুলছেন। ছবি তুলেছেন এমডি মানিক। স্বত্ত্ব: ডেমোটিক্স (২৪/০৪/২০১৫)

বাংলাদেশের ক্রিকেটের স্মরণীয় মুহূর্ত এটি। বাংলাদেশ ক্রিকেট দল ট্রফি নিয়ে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে গ্রুপ ছবি তুলছেন। ছবি তুলেছেন এমডি মানিক। স্বত্ত্ব: ডেমোটিক্স (২৪/০৪/২০১৫)

বাংলাদেশের ক্রিকেটে এমন মুহূর্ত আর আসেনি। সম্প্রতি শেষ হওয়া বিশ্বকাপে কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠা, তারপর ঘরের মাঠে টি-টোয়েন্টি এবং একদিনের সিরিজে পাকিস্তানকে হোয়াইটওয়াশ করা, সবমিলিয়ে বাংলাদেশের ক্রিকেটে যেন এক নতুন যুগের সূচনা হয়েছে।

এতদিন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বাংলাদেশকে ছোট দল হিসেবেই ধরা হতো। তবে অবস্থার পরিবর্তন হয়েছে। আগে যেমন খেলতো, এখন সেই বাংলাদেশ বদলে গেছে, বিশেষ করে ২০১৫ সালে দলটির রেকর্ড দুর্দান্ত। বাংলাদেশি ফ্যান থেকে শুরু করে বিশ্ববিখ্যাত সাবেক ক্রিকেটার, কোচ, ক্রীড়া সাংবাদিক, ক্রিকেট ভাষ্যকার সবাই বলছেন সেই কথা।

বাংলাদেশ ক্রিকেট দল কেমন বদলে গেছে, তার একটা উদাহরণ তুলে ধরেছেন মিনহাজ উদ্দিন খান:

Gone are the days when Bangladesh depended on a couple of star players in order to eke out a win. The emergence of several performers have given new hope to the supporters and the series win over Pakistan has no doubt ushered in a new era for Bangladesh cricket.

বাংলাদেশের সেইদিন চলে গেছে। জিততে সে সময়ে আমাদের গুটিকয় তারকা খেলোয়াড়দের ওপর নির্ভর করতো হতো। বাংলাদেশ দলে এখন বেশ কয়েকজন পারফর্মার রয়েছে। তারাই সমর্থকদের মনে এমন আশার বীজ বপন করেছে। এবং পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সিরিজ জয় এটাই বলে দেয়, বাংলাদেশের ক্রিকেটে নতুন যুগের সূচনা হয়েছে।

বাংলাদেশের ক্রিকেটের বদলে যাওয়া নিয়ে খুবই গর্বিত রিম:

পাকিস্তান একেবারে ধসে গেছে। সম্মানিত ভদ্রমহিলা ও মহোদয়গণ, বাংলাদেশ গর্জে উঠেছে। #বাংলাওয়াশ #গর্বিত

বাংলাদেশের পারফর্মেন্সে মুগ্ধ হয়ে বাপ্পি মন্তব্য করেছেন:

বাংলাদেশের এই টিম ক্রিকেট বিশ্বের যেকোনো দলতে হারাতে পারবে। বাংলাদেশ দল খুব ভালো খেলেছো।
#রাইজঅবটাইগার্স

ব্লগার ইশতিয়াক রউফ বাংলাদেশ দলকে এমন একটা জায়গায় নিয়ে যাওয়ার জন্য শ্রীলংকান কোচ হাথুরুসিংহেকে কৃতিত্ব দিয়েছেন:

Said it during the World Cup, saying it again. I am absolutely amazed at how Hathurusinghe and his coaching staff have transformed Bangladesh. There is a bit of Lankan doggedness in this team. Everyone is pulling in the same direction, the team is greater than the sum of its parts. […]

বিশ্বকাপের সময়ই আমি বলেছিলাম, এখনো বলছি। আমি আসলেই অবাক হয়েছি, হাথুরুসিংহে এবং তার কোচিং সহযোগীরা বাংলাদেশকে কীভাবে বদলে দিয়েছে। এই দলের মধ্যে লংকা দলের মতো একটা গোঁয়াতুর্মির ভাব আছে। দলের প্রত্যেকেই যেন একই মন্ত্র মেনে চলছে। দলের একটা অংশ নয়, সবাই যার যার পজিশনে ভালো করছে আর সম্মিলিতভাবে এটি আরও ভাল করছে[…]

শুধু বাংলাদেশ নয়, বিভিন্ন দেশের দর্শক ও ক্রিকেট বোদ্ধারাও বাংলাদেশের খেলার প্রশংসা করেছেন। রমেশ আরিয়াল নামের একজন নেপালি ক্রিকেট ফ্যান মন্তব্য করেছেন:

চমৎকার, মনে রাখার মতো খেলা খেলেছে বাংলাদেশ। ক্রিকেটে নতুন যুগে সূচনা হয়েছে।

ব্যাটে, বলে বাংলাদেশ এখন অনেক সামর্থ্যবান একটি দল। সেটার উল্লেখ করে আন্তজার্তিক ক্রিকেট কাউন্সিল আইসিসি’র টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে টুইট করা হয়েছে:

ব্যাটে, বলে চমৎকার পারফর্মেন্সে বাংলাদেশ দল প্রথম ওযানডেতে ৭৯ রানে জয় পেল।

বিশ্বকাপ থেকেই যে বাংলাদেশ দলের আত্মবিশ্বাসী সেটার প্রতিধ্বনি করে ভারতের সাবেক ক্রিকেট তারকা ভিভিএস লক্ষণ টুইট করেছেন:

সবদিকে সামর্থ্যের পুরোটা দেখিয়ে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সিরিজ জয় করায় বাংলাদেশ দলকে অভিনন্দন জানাই। বিশ্বকাপের সময় থেকেই তাদের ভিতরে আত্মবিশ্বাসের ছটা দেখা যাচ্ছে। #হোয়াইটওয়াশ

বাংলাদেশের এমন সাফল্যে ভারতীয় ক্রিকেট সাংবাদিক আয়াজ মেমন অবাক হয়েছেন:

পাকিস্তানের বিরুদ্ধে মধুর জয়। কে ভেবেছিল এমন হবে? বাংলাদেশ খুব ভালো খেলেছে।

বাংলাদেশ এমন খেলতে থাকলে আগামীতে বিশ্বকাপ জিততে পারে বলে মনে করেন উইজডেন ইন্ডিয়ার প্রধান সম্পাদক দিলীপ প্রেমাচন্দ্রন:

বাংলাদেশ যেভাবে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ৩-০ তে জিতেছে, তা সত্যিই মুগ্ধ করার মতো। তারা বিশ্বকাপও জয় করতে পারে।

ক্রিকেট ধারাভাষ্যকার হর্ষ বোগলে টুইট করেছেন:

বাংলাদেশের টাইগাররা পাকিস্তানকে শুরু মার-ই দেয়নি, একেবারে নাস্তানাবুদ করে ছেড়েছে। মনে করেছিলাম বিশ্বকাপেই বাংলাদেশ সেরা খেলাটি খেলেছিল।

তবে বাংলাদেশকে আরো অনেকদূর যেতে হবে বলে মনে করেন শ্রীলংকার সাবেক ক্রিকেটার আরনল্ড রাসেল:

আশা করছি বাংলাদেশের টাইগাররা সময়টাকে উপভোগ করছে। তবে তাদের অনেকদূর যেতে হবে… ব্যাপক পরিশ্রম এবং নিষ্ঠা নিয়ে কাজ করতে হবে।

বাংলাদেশ দলের সাবেক বোলিং কোচ এবং সাবেক ইংলিশ ক্রিকেটার ইয়ান পন্ট সন্দেহবাদীদের উদ্দেশ্যে বলেছেন:

হ্যাঁ, বাংলাদেশের টাইগাররা আবারো প্রমাণ করলো, সন্দেহ করার কোনো অবকাশ নেই। দলে নতুন নতুন মুখ এসেছে। তারাও ভালোও করছে। আলহামদুল্লিলাহ।

উইকিপিডিয়ার তথ্য মতে, ১৯৭৯ সালে ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত আইসিসি ট্রফিতে অংশ নিয়ে বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রবেশ করে। বাংলাদেশ প্রথম একদিনের ম্যাচ খেলে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে, ১৯৮৬ সালে। তাছাড়া ১৯৯৭ সালে মালয়েশিয়ায় অনুষ্ঠিত আইসিসি ট্রফি জয় করে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ ক্রিকেটে খেলার সুযোগ অর্জন করে। প্রথম টেস্ট ম্যাচ খেলে ২০০০ সালে ভারতের বিরুদ্ধে। বর্তমানে বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)-এর পূর্ণ সদস্য (১০ জনের মধ্যে র‍্যাঙ্কিং এ ৯ তে অবস্থান করছে)।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .