বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

আমি কেন নওরোজ উৎসব পছন্দ করি

Tori Egherman explains Norooz traditions, and why she loves it.  Photo by Ehsan Khakbaz H. via Flickr (CC BY-ND-SA 2.0)

টরি এগারম্যান নওরোজ উৎসবের প্রচলিত রীতিনীতির ব্যাখ্যা দিয়েছেন। এবং তিনি কেন উৎসবটি পছন্দ করেন, তাও বলেছেন। এহসান খাকবাজের ফ্লিকার অ্যাকাউন্ট থেকে ছবিটি নেয়া হয়েছে (সিসি বিওয়াই-এনডি-এসএ ২.০)।

পোস্টটি লিখেছেন আরসেহ সেভমের অনুষ্ঠান সমন্বয়ক টরি এগারম্যান। পোস্টটি প্রথম প্রকাশিত হয়েছে আরসেহ সেভম ওয়েবসাইটে

নওরোজ ইরানের জন্য একটি চমৎকার সময়। মহাবিষুবের (যেদিন দিন-রাত সমান) আগের মঙ্গলবারে আতশবাজির মধ্যে দিয়ে নওরোজ উদযাপন শুরু হয়। আতশবাজি পুড়িয়ে জনতা চিৎকার করে বলে, আগুনে দূর হয়ে যাক অমানিশার অন্ধকার ও অমঙ্গল বারতা, নওরোজ সবার জীবনে নিয়ে আসুক আনন্দ ও সুস্থতা। দু’সপ্তাহব্যাপী চলা উৎসব শেষ হয় পিকনিকের মধ্যে দিয়ে।

ইরান ছাড়াও এই অঞ্চলের অন্যান্য দেশের মানুষজনও নওরোজকে নববর্ষ হিসেবে পালন করে।

তবে ইরানে উৎসবটি ব্যাপক আকারে পালিত হয়। এ সময়ে নানা শ্রেণি, ধর্ম ও জাতিসত্ত্বার মানুষ পারস্পারিক ভেদাভেদ ভুলে একত্রে উৎসবটি পালন করে থাকেন। দু’সপ্তাহের ছুটি সবাই যে একইভাবে উদযাপন করেন, তা কিন্তু নয়। অন্য সব অভাবনীয় উপায়েও উদযাপন করা হয়ে থাকে। আমি ইরানে থাকার সময়ে নওরোজকে সাদরে বরণ করে নেয়ার উত্সব হিসেবে দেখেছি। দু’সপ্তাহের জন্য তারা আমাকে একজন ইরানিয়ান হিসেবেই দেখেছেন। কোনো ধরনের নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া ছাড়াই আমাকে রুমে ঢুকতে দিয়েছেন। নওরোজ উদযাপন সবার জন্য উন্মুক্ত। এজন্য কোনো কিছুতে বিশ্বাস রাখতে হবে এমন নয়। ব্যক্তিগত এবং উন্মুক্তভাবে উৎসবটি পালন করা হয় বিধায়, যে কেউ উৎসবটি উপভোগ করতে পারেন।

সাধারণত মার্চের ২১ তারিখে মহাবিষুবের দিনে নওরোজ উৎসব পালন করা হয়ে থাকে। মহাবিষুব সারা পৃথিবী জুড়ে একই সময়ে সংঘটিত হয়। তাই এ সময়ে বছর পরিবর্তন হয়। লস অ্যালেঞ্জসে যখন রাত ৩টা, তেহরানে তখন বেলা আড়াইটা। এ সময়ে নতুন বর্ষ শুরু হয়। নতুন বছর উদযাপনের নানা ঐতিহ্য রয়েছে। এ সময়ে তারা ঘরদোর পরিষ্কার করেন, দান-খয়রাত করেন, নতুন কাপড়-চোপড় কেনেন, উপহার প্রদান এবং বন্ধুবান্ধব ও আত্মীয়স্বজনের বাড়িতে দেখা করতে যান। বেশিরভাগ পরিবারই তাদের বাড়িঘর হাফতসিন (সাতটি এস) দিয়ে সাজান। টেবিলে যতো আইটেম থাকে, তাদের সবগুলোই ‘এস’ দিয়ে শুরু। টেবিলের আইটেমগুলোতে নতুন বছরের সাধারণ থিমগুলো থাকে। যেমন: নব জীবন, প্রজ্ঞা, স্বাস্থ্য ও সমৃদ্ধি। আপনি সাধারণত স্প্রাউট, পুডিং, কয়েন, ডিম-সহ আরো কিছু আইটেম দেখতে পাবেন।

আপনি যদি নওরোজ উৎসব নিয়ে আরো কিছু জানতে চান, তাহলে গুগলে অনুসন্ধান করুন। দেখবেন নওরোজ সম্পর্কে একগাদা তথ্য আপনার সামনে হাজির হয়েছে। শিক্ষার্থীদের জন্য হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গাইডলাইন পিডিএফ আকারে দেয়া আছে। তাছাড়া এই লিংকে সিজদেহ বেদার সম্পর্কে বলা আছে। এটি এক ধরনের পিকনিক। এর মধ্যে দিয়েই দু’সপ্তাহব্যাপী চলা নওরোজ উৎসব শেষ হয়ে যায়।

যারা যারা নওরোজ উদযাপন করছেন, তাদের সবাইকে শুভ নববর্ষ। আর যারা নওরোজ উদযাপনে যোগ দেননি, তাদেরকে বলছি, উদযাপনে যোগ দেয়ার সময় কিন্তু ফুরিয়ে যায়নি।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .