বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

বেলারুশ, টর এবং অন্যান্য এনোনিমাইজার নিষিদ্ধ করেছে

Images mixed by Tetyana Lokot.

ছবি মিশ্রণ তাতিয়ানা লোকোট-এর।

বেলারুশ দেশটির ইন্টারনেটে সকল এ্যানোনিমাইজার-এ (পরিচয় গোপন রেখে কোন সাইটে প্রবেশ রাখার প্রক্সি সার্ভার) প্রবেশ বন্ধ করে দিয়েছে, যার মধ্যে টরও রয়েছে। দেশটির তথ্য যোগাযোগ মন্ত্রণালয় এক নতুন আদেশ জারী করেছে, যার মাধ্যমে ইন্টারনেট সেবা প্রদানকারী সংস্থাগুলো বিশেষ অনলাইন সাইটে প্রবেশ-এর সুযোগ রাষ্ট্রের অনুরোধে সীমাবদ্ধ করতে বাধ্য। এ্যানোনিমাইজার-এ প্রবেশের বেলায় সরাসরি যে সকল বিষয়ে কাজ করবে তার কয়েকটি হচ্ছে

Государственная инспекция при выявлении интернет-ресурсов, средств обеспечения анонимности (прокси-серверы, анонимные сети типа Tor и другие), позволяющих пользователям интернет-услуг получать доступ к интернет-ресурсам, идентификаторы которых включены в список ограниченного доступа, добавляет в список ограниченного доступа идентификаторы этих интернет-ресурсов, средств обеспечения анонимности.

রাষ্ট্রীয় অনুসন্ধানে, ইন্টারনেটে উৎস খুঁজে বেড়া করার সময়, এ্যানোনিমাইজিং সাইটগুলো (প্রক্সি সার্ভার, এ্যানোনিমাস নেটওয়ার্ক, যেমন টর এবং অন্যান্য) ব্যবহারের ক্ষেত্রে এই সকল সীমাবদ্ধতা আরোপ করা হবে , যা ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের অনলাইন নাম পরিচয় গোপন রেখে তাদের সেই সকল সাইটে প্রবেশের সুযোগ করে দেয় যেগুলো তালিকায় অর্ন্তভুক্ত, সাথে সাথে সেবা প্রদানকারী সংস্থাগুলো পরিচয় চিহ্নিত করার উপাদান এবং নাম গোপন রেখে ইন্টারনেটে প্রবেশের সাইটগুলোকে (এ্যানোনিমাইজার) তালিকাভুক্ত করতে হবে।

বেলারুশের অভ্যন্তরে সরকারের আরোপিত সেন্সরশিপ এবং অনলাইন রিসোর্সের উপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞা এড়িয়ে সেগুলোতে প্রবেশের জন্য দেশটির ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা এ্যানোনিমাইজার সেবা ব্যবহার করে থাকে, বিরোধী দলের অনেক ওয়েবসাইটও নিষিদ্ধ এই সব সাইটের তালিকায় অর্ন্তভুক্ত ।

টর এর পরিসংখ্যান থেকে জানা যাচ্ছে যে বেলারুশে সরাসরি টর ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রায় ৬০০০ থেকে ৮০০০-এর মাঝামাঝি। দেশটির এক সেন্সরশিপ বিরোধী একটিভিস্ট আন্তন নেস্তেরভের মতে, যাতে ব্যবহারকারীরা টরে প্রবেশ করতে না পারে, তার জন্য কর্মকর্তারা তথাকথিত গার্ড নোড বন্ধ করে দেওয়ার প্রচেষ্টা চালিয়েছিল, এটি একটি সার্কিটের প্রথম নোড, যার মাধ্যমে একজন ব্যবহারকারী সঙ্কেত ভেঙ্গে এক বিশেষ পথে এই সকল সাইটে প্রবেশ করতে পারে। নেস্তেরভে বলেন, “তারা হয়ত কেবল টরপ্রজেক্ট.অর্গ বন্ধ করতে পারে এবং কারো প্রবেশ সেখানে থামিয়ে দিতে পারে, কিন্তু যদি তারা টর বন্ধ করে দেওয়ার কথা বলে, তার মানে হচ্ছে তারা নোড বন্ধ করে দেওয়ার কথা বলছে”।

একই সাথে রাশিয়াও ভিপিএন ও এ্যানোনিমাইজার বন্ধ করার কথা বিবেচনা করছে। ফেব্রুয়ারি মাসে শুরুতে, রাশিয়ার তথ্য নীতি ও যোগাযোগ ব্যবস্থা বিষয়ক সংসদীয় কমিটির প্রধান এক সংসদ সদস্য পরামর্শ প্রদান করেছেন যে এ্যানোনিমাইজার এবং সেন্সরশিপ পাশ কাটিয়ে যাওয়ার টুলস, যেমন টর, ভিপিএন এবং প্রক্সি সার্ভারের ব্যবহার বন্ধ করে দেওয়া উচিত।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .