বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

থাইল্যান্ডের রাজনৈতিক নির্যাতনের ধরণ বোঝার জন্য এক সাধারণ ইনফোগ্রাফিক

Infographic published by Prachatai, used with permission

এই ইনফোগ্রাফিকটি প্রকাশ করেছে প্রাচা থাই, অনুমতিক্রমে প্রকাশ করা হয়েছে।

উপরের ইনফোগ্রাফিক স্বাধীন সংবাদ পোর্টাল প্রাচা থাই এর সৃষ্টি, যা এক নজরের থাইল্যান্ডের বর্তমান পরিস্থিতি তুলে ধরছে, যেখানে এক অভ্যুথান ঘটানোর মাধ্যমে সামরিক বাহিনী গতবছরে ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হয়েছে আছে।

জেনালের প্রায়ুত চান ও চায়-এর নেতৃত্বে থাইল্যান্ডের সামরিক বাহিনী গত এক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে গত বছরের মে মাসে দেশটির ক্ষমতা দখল করে, পরে তারা দেশজুড়ে সামরিক শাসন জারি করে। সামরিক শাসকেরা একই সাথে দেশটির সংবিধান স্থগিত করে এবং রাজনৈতিক নেতাদের আটক করে, প্রচার মাধ্যমের উপর কঠোর নিয়ন্ত্রণ আরোপ করে এবং গণ বিক্ষোভ নিষিদ্ধ করে।

সামরিক বাহিনী দাবি করছে যে শৃঙ্খলা ফিরেয়ে আনা এবং রাস্তায় বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের মাঝে চলতে থাকা তীব্র সংঘর্ষ বন্ধের জন্য এই সামরিক অভ্যুত্থান জরুরী ছিল, এটা বেসামরিক শাসন পুনঃপ্রতিষ্ঠার প্রতিশ্রুতি প্রদান করেছে, তবে কেবলমাত্র সুনিদিষ্ট রাজনৈতিক এবং নির্বাচনী সংস্কারের পর তা করা হবে।

গত আগস্টে এক অন্তবর্তীকালীন সংবিধান অনুমোদন করা হয়, এরপর জেনারেল প্রায়ুত–এর নেতৃত্বে সামরিক বাহিনী সমর্থিত এক বেসামরিক সরকারকে নিয়োগ প্রদান করা হয়,যে প্রায়ুত এখন দেশটির প্রধানমন্ত্রী, একই সাথে এক সংসদীয় কাঠামো তৈরী করা হয়, যদিও এদের সকলে সামরিক বাহিনী দ্বারা নিয়োগ প্রাপ্ত। .

অভ্যুথানের প্রথম দিন থেকে, একটিভিস্টরা সামরিক একনায়কতন্ত্রের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলে। একনিষ্ঠ একটিভিস্টদের সাথে সাধারণ নাগরিকরাও পুনরায় নির্বাচন প্রদান এবং অন্যান্য গণতান্ত্রিক অধিকার ফিরিয়ে আনার দাবীতে যোগ দেয়। এর জবাবে জান্তা বিক্ষোভকারীদের কারাগারে বন্দী করে এবং সমালোচকদের “আচরণ মানিয়ে নেওয়ার” শিক্ষা দিতে শুরু করে

কিন্তু থাই নাগরিকরা তাদের বিরোধীতা প্রদর্শনে সৃষ্টিশীল উপায়কে পুনরায় সচল করে। কারণ দেশটিতে পাঁচজন বা তার বেশী নাগরিক সমাবেশ নিষিদ্ধ, ব্যক্তিগত বিক্ষোভকারীরা সূক্ষ্ম উপায়ে তাদের বার্তা তুলে ধরে,যেমন ট্রেনে জর্জ ওরওয়েল-এর উপন্যাস ১৯৮৪ পাঠ করা, দি হাঙ্গার গেম নামক চলচ্চিত্রের অনুকরণে তিন আঙ্গুলে স্যালুট প্রদান করা, এবং ফ্রান্সের জাতীয় সঙ্গীত বাজানো।

গত নয় মাসে কর্তৃপক্ষ যে সকল স্বাভাবিক কর্মকাণ্ড দমনের চেষ্টা করেছে প্রাচা থাই তার এক ইনফোগ্রাফিক তালিকা তৈরী করেছে। যে সমস্ত নাগরিক এই সমস্ত “কর্ম” করেছে তাদের “থাইল্যান্ডের জাতীয় নিরাপত্তায় ক্ষতি সাধনের” অভিযোগ গ্রেফতার করা হয়েছে। জান্তার মানসিক বিকৃতি অনেক গভীরে প্রবেশ করেছে।

  1. সাদা রঙের এফোর সাইজের কাগজ বা অভ্যুথান বিরোধী বার্তা সম্বলিত এ ফোর সাইজের কাগজ সাথে রাখা
  2. চেহারা, চোখ এবং মুখ ঢেকে রাখা
  3. গ্রেফতারকৃত বিক্ষোভকারীকে সাহায্য করা
  4. “দয়া করে শান্তি দাও” নামক টি শার্ট পরা
  5. হাঙ্গার গেম ছবির মত করে তিন আঙ্গুলে সেলুট দেওয়া
  6. ম্যাকডোনাল্ডসে জড়ো হওয়া
  7. জর্জ অরওয়েল-এর উপন্যাস ১৯৮৪ পড়া
  8. জনসম্মুখে স্যান্ডউইচ খাওয়া
  9. ফ্রান্সের জাতীয় সঙ্গীত বাজানো
  10. মুচমুচে ভাজা অক্টোপাস বিক্রির সময় লাল রঙের টি শার্ট পড়া
  11. এই অভ্যুথানের নিন্দা জানিয়ে কোন বিবৃতি প্রকাশ করা
  12. “জনতার” মুখোশ পড়া
  13. “আমার ভোটের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন কর” লেখা টি শার্ট পড়া
  14. সাংবাদিকের দিকে এগিয়ে যাওয়া বা উল্টোটা ঘটা
  15. গণতন্ত্রের জন্য দৌড়ঝাঁপ
  16. “প্লাকার্ড ধরে দাড়িয়ে থাকা কোন অপরাধ নয়” এই লেখা সম্বলিত কোন প্লাকার্ড হাতে দাঁড়িয়ে থাকা
  17. ফেসবুকে সামরিক জান্তা বিরোধী কোন ছবি অথবা “সামরিক আইন চাই না” লেখা পোষ্ট করা
  18. রাজনৈতিক পরিস্থিতি বিষয়ে কোন শিক্ষা সেমিনারের আয়োজন করা
  19. হাঙ্গার গেম থ্রি-এর প্রথম শো দেখার জন্য নাগরিকদের ভিড় জমানো
  20. গণতন্ত্র নিয়ে লেখা কবিতা সম্বলিত কোন প্রচারপত্র বিলি করা
  21. সামরিক জান্তার নেতা প্রায়ুথকে তিন আঙ্গুলে সেলুট দেওয়া
  22. (প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী) থাকসিনের চারকোনা মুখের লোগো সম্বলিত কোণ ফল জাতীয় পণ্য বিক্রি করা

প্রাচা থাই এর মতে বাকস্বাধীনতার বিষয়ে জান্তা এত বেশী নিপীড়ন চালিয়েছে যে শাসক গোষ্ঠী জনতা থেকে অনেকটাই বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে:

যদিও এই সকল জান্তা বিরোধী কর্মকাণ্ডে ফল হয়েছে এই যে, এদের বিরুদ্ধে ভীতি প্রদর্শন, গ্রেফতার, আটক, মামলা করা হয়েছে, তবে যে সমস্ত নাগরিকরা তাদের মৌলিক অধিকারে চর্চা করে তাদের উপর নিপীড়নের ক্ষেত্রে জান্তার গ্রহণ করা কঠোর পদক্ষেপ, কেবল আরো বেশী নাগরিককে এই শাসকদের বিরুদ্ধে অবস্থান গ্রহণের দিকে ঠেলে দেবে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .