বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ইরানের স্থানীয় মানবিক সম্প্রদায় প্রাণীর অঙ্গ ব্যবচ্ছেদ প্রতিযোগিতার ইতি চায়

A campaign was underway by Iran's Humane Society for the Disectomy Contest of Mashhad.

মাসাহাদে অনুষ্ঠিত প্রাণীর অঙ্গ ব্যবচ্ছেদ প্রতিযোগিতার বিরুদ্ধে ইরান হিউম্যান সোসাইটির এক প্রচারণার প্রস্তুতি প্রক্রিয়াধীন অবস্থায় রয়েছে।

এই প্রবন্ধটি প্রথম ইরানভয়েসেস.অর্গে ছাপা হয় এবং এরপর তা ইংরেজিতে অনুবাদ করা হয় এবং কনটেন্ট শেয়ার চুক্তির অংশ হিসেবে এখানে প্রকাশ করা হয়েছে।

মাসহাদের দি হিউম্যান সোসাইটি সম্প্রতি ফেরদৌসি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেটেরেনারি (গৃহপালিত পশু চিকিৎসা) মেডিসিন বিভাগকে চাপ দিয়েছে যেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের মাঝে প্রচলিত ঐতিহ্যবাহী প্রাণীর অঙ্গ ব্যবচ্ছেদ প্রতিযোগিতা বন্ধ করে। ডিসেম্বরের শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ে বার্ষিক এই প্রতিযোগিতার আয়োজনের পরিকল্পনা করা হয়।

দি হিউম্যান সোসাইটি, সকল পশুপ্রেমীদের আহ্বান জানাচ্ছে যেন তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে উপস্থিত হয়ে এই প্রতিযোগিতার বিরুদ্ধে প্রতিবাদে তাদের সমর্থন প্রদর্শন করে। উপরে এই বিষয়ে প্রচারণার উদ্দেশ্যে তৈরী করা এক পোস্টার (ফার্সী ভাষায়) রয়েছে, যা ১৭ ডিসেম্বরে সোসাইটি টু ডিফেন্ড অ্যানিমাল রাইটের (প্রাণী অধিকার রক্ষা সম্প্রদায়) ফেসবুকের পাতায় পোস্ট করা হয়।

অতীতের প্রতিযোগিতায়, ছাত্রদের একে অন্যের সাথে ২০ মিনিটের ভেতরে ইঁদুরের শরীরের ভেতর থেকে তার সকল অঙ্গ প্রত্যঙ্গ বের করে প্রতিযোগিতায় লিপ্ত হতে হত। এতে অংশ গ্রহণের জন্য প্রতিটি ছাত্রকে ৭৫,০০০ তোমান (৩০ মার্কিন ডলার) প্রদান করতে হয়, যে অর্থ ফেরদৌসি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেটেরনারি মেডিসিন বিভাগের একাউন্টে জমা হয়।

অনলাইন এবং অফলাইন প্রতিবাদ আন্দোলন সত্ত্বেও, ১৬ ডিসেম্বর তারিখে প্রতিযোগিতাটি অনুষ্ঠিত হয়।দি সোসাইটি অফ ডিফেন্স অ্যানিমাল রাইট নামক আন্দোলন এই প্রতিযোগিতাকে অনৈতিক এবং গবেষণাগারের প্রাণীর অপব্যবহার বলে উল্লেখ করেছে এবং সাথে জোর দিয়ে বলছে যে বৈজ্ঞানিক গবেষণা এবং এর উন্নতিতে এই প্রতিযোগিতার কোন অবদান নেই।

উক্ত সোসাইটির এই প্রতিযোগিতা বন্ধ করার আহ্বান উপেক্ষা করা হয়েছে, তবে প্রাণী অধিকার প্রচেষ্টা ইরানের মূলধারার সংবাদপত্রে কেবল চোখে পড়া শুরু হয়েছে। ইরান নিউজ অনলাইন নামের এক ছোট আকারের ফার্সী সংবাদ ব্লগে এই আন্দোলনের সংবাদ প্রকাশ পায়, কিন্তু দি ইরানিয়ান সোসাইটি ফর প্রিভেন্টিং ক্রুয়েলিটি ফর অ্যানিমাল (প্রাণীদের প্রতি নিষ্ঠুরতা বন্ধে গড়া ইরানি সম্প্রদায়) জন্য গড়া ফেসবুক পাতায় তা অনেক বেশী শেয়ার করা হয়। প্রচারণার এই পাতাটিকে ২৪৫ জন শেয়ার করে, ৮২১ জন এতে লাইক দেয় এবং অনেকে এতে মন্তব্য করে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .