বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

বিধ্বস্ত স্থল চিহ্নিত হওয়ার পর নিখোঁজ এয়ার এশিয়া কিউজেড ৮৫০১ এর তল্লাশি চলছে

Air Asia QZ8501 Flight Path and Satellite Imagery. Wiki image.

এয়ার এশিয়া কিউজেড৮৫০১ বিমান পথ এবং উপগ্রহের মাধ্যমে তোলা ছবি। ছবি সূত্রঃ উইকি।

এয়ার এশিয়া কিউজেড৮৫০১ বিমানটি খুঁজে পাবার পর প্রতিকূল আবহাওয়ার কারনে ইন্দোনেশিয়াতে উদ্ধার প্রচেষ্টা বাঁধাগ্রস্ত হচ্ছে। দেশটির পূর্ব জাভা প্রদেশের রাজধানী সুরাবায়া থেকে সিঙ্গাপুর যাওয়ার পথে ২৮ ডিসেম্বর তারিখে বিমানটির ট্রাফিক নিয়ন্ত্রকের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পরে। বিমানটিতে ১৬২ জন যাত্রী এবং বিমান ক্রু ছিলেন।

বিমান চালনা বিশেষজ্ঞরা অনুমান করছেন, বিমানচালক ঘন বৃষ্টিঝড় ও মেঘ পাশ কাটাতে সক্ষম হয়েছেন, কিন্তু শেষ পর্যন্ত বিমানটিকে পানির উপরে অবতরণ করাতে বাধ্য হন। তবে খুব সম্ভব জরুরি ভিত্তিতে বিমান অবতরণের সময় প্রবল ঢেউ ভাসতে থাকা বিমানটিকে সজোরে আঘাত করে এবং ধাক্কা দিয়ে পানির নিচে নিয়ে যায়। আশা করা হচ্ছে দূর্ঘটনাটির আসল কারন বের করতে খুব শীঘ্রই তদন্ত শুরু করা হবে।

Plane debris from flight QZ8501 has been found already. Flickr photo by Vernon Chan (CC License)

ইতোমধ্যে বিমান কিউজেড৮৫০১ উড়োজাহাজের কিছু ধ্বংসাবশেষ পাওয়া গেছে। ভারমোন চানের দেয়া ফ্লিকর ছবি (সিসি অনুমোদনক্রমে)

ইন্দোনেশিয়ান প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো এবং ভাইস প্রেসিডেন্ট জুসুফ কালা এই অনুসন্ধান এবং উদ্ধার কাজ খুব আন্তরিকতার সাথে তত্ত্বাবধান করছেন। মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, ফ্রান্স, অস্ট্রেলিয়া এবং যুক্তরাষ্ট্র সহ বেশ কয়েকটি দেশ উদ্ধার কাজ ত্বরান্বিত করতে অংশ নিয়েছে।

অনুসন্ধান প্রচেষ্টার দ্বিতীয় দিনের শেষে বেশ কয়েকটি মৃতদেহ এবং ভাঙ্গা বিমানটির কয়েকটি অংশ কেন্দ্রীয় কালিমান্তানের কাছে সাগরে ভেসে থাকা অবস্থায় পাওয়া গেছে। হেলিকপটারে করে কয়েকটি মৃতদেহ সুরাবায়াতে ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে।

ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো ফেসবুকে লিখেছেনঃ

Saya mendengarkan penjelasan dari saudara Tony Fernandez, pemilik maskapai penerbangan Air Asia, ditengah rasa duka mendalam ketika ditemukan serpihan-serpihan pesawat di sekitar perairan Pangkalan Bun, Kalimantan Tengah.

Ditengah perasaan duka saya memberikan aspirasi tinggi pada kerja tim yang tergabung dalam pencarian pesawat Air Asia QZ 8501, menemukan dengan cepat serpihan pesawat sehingga memberikan kepastian atas apa yang terjadi pada pesawat itu.

Kepada keluarga korban saya menyampaikan bela sungkawa yang sebesar-besarnya atas musibah yang menimpa. Mari kita berdoa agar keluarga korban diberikan kekuatan dan ketabahan dalam menghadapi cobaan hidup ini.

এই গভীর শোকের মাঝে কেন্দ্রীয় কালিমান্তানের পাংকালান বানের পানিতে বিমানটির কিছু ভাঙা অংশ খুঁজে পাওয়া গেছে। তাই আমি এয়ার এশিয়ার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা টনি ফারনান্দেজের ব্যাখ্যা শুনছি। এই গভীর দুঃখের মাঝে আমি আশা করব, যৌথ উদ্যোগে গঠিত সন্ধানকারী এবং উদ্ধারকারী দলটি বিমানের আরও ধ্বংসাবশেষ খুঁজে পেতে এবং দূর্ঘটনাটির কারন বের করতে সফল হবে। দূর্ঘটনা কবলিতদের পরিবারের প্রতি আমি আমার গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি। আসুন আমরা সবাই প্রার্থনা করি, এই মর্মান্তিক সময়ে (সৃষ্টিকর্তা) দূর্ঘটনা কবলিতদের পরিবারের প্রতিটি সদস্যকে শক্তি ও সাহস দেবেন।

 

যখন দূর্ঘটনা কবলিত বিমানটির ধ্বংসাবশেষ প্রথম খুঁজে পাওয়া যায়, তখন প্রেসিডেন্ট জকোভি সেই সন্ধানকারী এবং উদ্ধারকারী বিমানটিতেই ছিলেন।

খুঁজে পাওয়া ধ্বংসাবশেষ এবং মৃতদেহগুলো যে কিউজেড৮৫০১ বিমানের, তৎক্ষণাৎভাবে তা এয়ার এশিয়া বলে নিশ্চিত করেছেঃ

ইন্দোনেশিয়া এয়ার এশিয়া অনুতাপের সাথে জানাচ্ছে, ইন্দোনেশিয়া প্রজাতন্ত্রের জাতীয় অনুসন্ধান এবং উদ্ধার সংস্থা (বাসারনাস) আজ নিশ্চিত করেছে যে আজকের আগে খুঁজে পাওয়া ধ্বংসাবশেষ নিঃসন্দেহে বিধ্বস্ত বিমান কিউজেড৮৫০১ এরই অংশ বিশেষ। এটি সেই বিমান যা ২৮ তারিখ সকালে বিমান নিয়ন্ত্রণ ট্রাফিকের সাথে সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয় এবং হারিয়ে যায়।

টুইটারের মাধ্যমে সহমর্মিতা এবং সমবেদনা জানিয়ে বিভিন্ন বার্তা পাঠানো হয়েছে।

এয়ার এশিয়া কিউজেড৮৫০১ বিমান বিধ্বস্তে ক্ষতিগ্রস্তদের পরিবারের সবাই ২০১৪ সালের শেষে এসে গভীর দুঃখে পতিত হয়েছেন। সৃষ্টিকর্তা আপনাদের সাহস এবং শক্তি দিন। আসুন কোন অলৌকিক ঘটনা প্রত্যাশা করি।

জীবন রক্ষাকারী জ্যাকেট পরিহিত অবস্থায় মৃতরা একে অন্যের হাত ধরে আছেন। মৃত্যুকালে তারা যে আতঙ্কের শিকার হয়েছেন তা কল্পনা করাও অসম্ভব। অত্যন্ত দুঃখজনক।

এয়ার এশিয়া কিউজেড৮৫০১ বিমানের মোট ১৬২ জন যাত্রীর মাঝে ৩৫ জন ইন্দোনেশিয়ার মালাং শহরের অধিবাসী ছিলেন। @সময় এর জন্য ছবিটি দিয়েছেন @চার্লিচ্যাম্প৬এল এবং আমি।

#আমরাএকসাথেআছি শিরোনামের টুইটার হ্যাশট্যাগটিতে কিউজেড৮৫০১ বিমানের সাথে নিখোঁজ হওয়া সকলের আত্নীয়স্বজন এবং বন্ধুবান্ধবদের প্রতি সমবেদনা জানান হয়েছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .