বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

উদারনৈতিক চিন্তার কারণে সৌদি ব্লগার রাইফ বাদাউয়িকে চাবুক মারা হয়েছে

Rome, Italy. 9th January 2014 -- Protestors with masks of Raif Badaw, protesting against the request of the death penalty and calling for the release of blogger. -- Sit-in in front of the Embassy of Saudi Arabia to protest against the flogging and ask for the immediate release of journalist and blogger Saudi Raif Badawi imprisoned on charges of apostasy. Photograph by Stefano Montesi. Copyright: Demotix

রোম,ইটালি, ৯ জানুয়ারি ২০১৫- রাইফ বাদাউয়ি-এর মুখোশ পড়ে বিক্ষোভকারীরা তার মৃত্যুদণ্ডের প্রতিবাদ এবং এই ব্লগারের মুক্ত করে দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছে। সৌদি দূতাবাসের সামনে অবস্থান গ্রহণ করে ধর্ম বিসর্জনের অভিযোগে অভিযুক্ত সাংবাদিক এবং ব্লগার সৌদি এই নাগরিক অবিলম্বে মুক্তি দাবী করছে–ছবি স্টেফানো মোন্টেসি-এর। কপিরাইট ডেমোটিক্সের।

অনলাইন এক গণ বিতর্কের স্থান প্রতিষ্ঠা করা এবং “ইসলামকে অপমান” করার অভিযোগ অভিযুক্ত হবার কারণে ৯ জানুয়ারিতে সৌদি আরবে সৌদি উদারনৈতিক ব্লগার রাফি বাদাউয়িকে প্রকাশ্যে চাবুক মারা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের মতে গত বছর ৩০ বছর বয়স্ক এই নাগরিককে শাস্তি হিসেবে ১,০০০ বার চাবুক মারা এবং দশ বছরের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে, সংবাদে জানা গেছে ৯ তারিখ শুক্রবারে জুম্মার নামাজের পর তাকে জেদ্দার এক মসজিদের সামনে ৫০ বার চাবুক মারা হবে। তার নির্ধারিত শাস্তির পরিমাণ শেষ না হওয়া পর্যন্ত প্রতি শুক্রবার তাকে চাবুক মারা হবে।

তার এই শাস্তি আন্তর্জাতিক ক্ষোভের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। সাথে তাকে ১ মিলিয়ন সৌদি রিয়াল (প্রায় দুই কোটি আট লক্ষ সম পরিমাণ টাকা) জরিমানা ধার্য্য করা হয়েছে।

সৌদি আইনজীবী ওয়ালিদ আবুলখায়ের টুইটার একাউন্টের ৭৮৩০০ জন অনুসারী রয়েছে, সে এই সংবাদ নিশ্চিত করেছে:

আজ সকালে শুক্রবারের জুম্মার নামাজের জেদ্দায় নাগরিকদের সামনে রাফি বাদাউয়িকে চাবুক মারা হয়েছে। সেখানে উপস্থিত কেউ কেউ স্লোগান দেয় “আল্লাহ আকবর” (আল্লাহ্‌ মহান)।

সৌদি আরবের মানবাধিকার পর্যবেক্ষক দলের প্রধান আবুল খায়ের নিজে নয় মাস যাবত কারাগারে বন্দী, তার বন্ধুরা তার টুইটার একাউন্ট পরিচালনা করছে।

ফেসবুকে কাশেম এল ঘাজ্জালি জেদ্দার সেই মসজিদের ছবি প্রদান করেছে যার সামনে অভিযুক্তকে চাবুক মারা হয়েছে:

The Jeddah mosque where Badawi was allegedly flogged today. Photograph shared by Kacem El Ghazzali on Facebook

জেদ্দা মসজিদ, যেখানে বাদাউয়িকে আজ চাবুক মারা হয়েছে। ফেসবুকে ছবি পোস্ট করেছে কাশেম এক ঘাজ্জালি।

এই পোস্টে ক্ষুব্ধ কিছু মন্তব্য এসেছে। যেমন এই মন্তব্যকারী লিখেছে:

নিশ্চিতভাবে পৃথিবীর অন্যতম মূর্খ এক রাষ্ট্র। সেখানে বাস করলে আপনার এই অনুভূতি হবে যে আপনি অন্ধকার যুগের এক বিরানভূমিতে বাস করছেন, যেখানে ভবনগুলো কেবল আকাশ ছুয়েছে।

অন্য আরেকজন যোগ করেছে:

খুব বেদনাদায়ক এবং অন্ধকারাচ্ছন্ন এক মুহূর্ত, চাবুক মারার সময় তাকে কতটা অসহ্য যন্ত্রণা সহ্য করতে হয়েছে তা কল্পনাও করতে পারছি না, এই সকল বিকৃত মানসিকতা সম্পন্ন মানুষের হাতে আমরা অসহায়।

টুইটারে সৌদি আরব এবং আরব বিশ্বে তার সমর্থকেরা এই শাস্তির বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলেছে। দোহাম আলসালেম বলছে বাদাউয়ির নাম অমরত্বের তালিকায় ঢুকে গেছে।

তারা কি উপলব্ধি করতে পারছে না, তারা এই নামটিকে ইতিহাসে অমর করে দিয়েছে!!

সৌদি আরবের দাম্মাম থেকে হিলদা ইসমাইল, যার ২২৬০০ জন টুইটার অনুসারী রয়েছে, সে টুইট করেছে:

আজ যারা রাইফ বাদাউয়ির শরীরে আঘাত করা প্রতিটি চাবুকের যন্ত্রণা অনুভব করেনি, তারা মানুষ নয়।

আমার দেশ দীর্ঘশ্বাস ফেল।

তিউনিশয়া হোউরা [মুক্ত তিউনিশিয়া] এর সাথে যোগ করেছে:

শুধু স্মরণ করিয়ে দিতে চাই: যারা শিরচ্ছেদ এবং মানুষকে চাবুক মারা ও লাইন ধরে শিশুদের দেখতে বাধ্য করার জন্য আইএস আইএস-এর সমালোচনা করে, তারাই কে সেই ব্যক্তি, যারা সৌদি আরবে মানুষকে চাবুক পেছেন অজুহাত প্রদান করে। তারা সকলে আইএস আইএস।

অনেকে এই বিষয়টির দিকে অঙ্গুলী নির্দেশ করছে কি ভাবে পশ্চিমা দেশগুলো চরম বাজে মানবাধিকারে রেকর্ড সত্বেও সৌদি আরবকে ক্রমাগত তাদের সমর্থন প্রদান করে যাচ্ছে।

ইউরোপীয় পার্লামেন্টের সদস্য মারিয়েতযে সাচাকে তার ৩০১০০ অনুসারীকে বলছে:

আমাদের কৌশলগত অংশীদার সৌদি আরব আজ ব্লগার রাইফ বাদাউয়িকে নির্মম ভাবে চাবুক মেরেছে; এই শাস্তির ফলে সে প্রচণ্ড রকম আহত হয়েছে। বর্বর প্রথা।

যুক্তরাজ্যের ড্যানিয়েল উইকহাম তার ১৭০০ টুইটার অনুসারীকে স্বদেশের সাথে সৌদি আরবের করা অস্ত্র চুক্তির কথা স্মরণ করিয়ে দিচ্ছে:

বৃটেন নির্মিত অস্ত্রের বিশ্বের এক নাম্বার ক্রেতা সৌদি আরব, এক উদারনৈতিক ওয়েবসাইট স্থাপনের জন্য আজ এক ব্যক্তি চাবুক মেরেছে।

এবং অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের মধ্যপ্রাচ্য ও উত্তর আফ্রিকার উপ পরিচালক হাসিবা হাজশাহারাউয়ি অনস্বীকার্য এক বিষয় তুলে ধরছে-“বরাবরের মত সৌদি আরব অনায়াসে এই কাজ করে যাচ্ছে”।

নিছক এক উন্মত্ততা। এই মূহুর্তে সৌদি আরবে রাইফ বাদাউয়িকে চাবুক মারা হচ্ছে । লেখার জন্য তাকে চাবুক মারা হচ্ছে। আর সৌদি আরব বরাবরের মত অনায়াসে এই কাজ করে যাচ্ছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .