বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

এই স্নোবোর্ডার বরফের মাঝে দুই রাত নিখোঁজ ছিল, কিন্তু তার চুল নিয়ে লোকেদের কথা বলা থামছেই না

niigata hair main

জাপানের এএনএন সংবাদের স্ক্রিনশট

জাপানী এক স্নোবোর্ডার (বরফের উপর স্কি করে চলা) এবং তার দুই সঙ্গীকে বরফে পূর্ণ এক পাহাড় থেকে দুই দিন পরে হেলিকপ্টারের মাধ্যমে উদ্ধার করা হয়, যারা কোন ধরনের আশ্রয় ছাড়া বরফ শীতল এই দুই রাত বাইরে কাটাতে বাধ্য হয়। টোকিওর এই বাসিন্দা হারিয়ে যাওয়ার জন্য জাতীয় টেলিভিশনে কেবল ক্ষমা চেয়ে পার পাননি, সাথে অনলাইনে তার চুল নিয়ে এ ধরনের আলোচনা শুরু হয় যে সে কি আসলে পরচুলা পড়েছে কিনা, যা তাকে সহ্য করে নিতে হয়।

অজানার উদ্দেশ্যে স্নোবোর্ডিং করার সময় এই তিন জন পথ হারিয়ে ফেলে যখন তারা এক তুষার ঝড়ের কবলে পড়ে যায়:

এই তিন জন স্নোবোর্ডার টোকিওর বাসিন্দা– তারা হলেন কোজু নেরিকো যা বয়স ৪৫ বছর, তার স্ত্রী মানামি, যার বয়স ৪৪ বছর এবং তাদের বন্ধু আকি ইমামোটো, যার বয়স ৪০ বছর –শুক্রবার (২ জানুয়ারি ২০১৫)–এ সন্ধ্যায় তাদের আশ্রয়স্থলে ফিরতে ব্যর্থ হলে তাদের নিখোঁজ হবার সংবাদ প্রদান করা হয়। তারা নববর্ষের সন্ধ্যায় স্কি করার রিসোর্টে এসে হাজির হয়েছিল। পুলিশ এন উদ্ধারকারী দল বলছে যে এই তিনজনকে এক পাহাড়ের ঢালে পাওয়া যায় যা ছিল স্কি-রিসোর্ট থেকে দুই কিলোমিটার দূরে। এনএইচকে-এর সংবাদ অনুসারে তাদের ঠিক রাত নয়টার পরে এক হেলিকপ্টারে তুলে নেওয়া হয়। ফ্রস্টবাইট (ঠাণ্ডায় হাত পা জমে অসাড় হয়ে যাওয়া) ছাড়া এই তিনজন কোন ধরনের আঘাতের চিহ্ন ছিল না।

এই তিনজনকে উদ্ধার করার পর, এই ত্রয়ী তাদের এই দুর্দশার বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর প্রদান করে এবং এরপর উদ্বেগ এবং উৎকণ্ঠার মাঝে জাতিকে ফেলে দেওয়ার জন্য তারা জাতির কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করে। এতে তারা উল্লেখ করেন যে তাজা বাতাসে অজানার উদ্দেশ্যে স্নো বোর্ডিং করার মত আকর্ষণকে তারা উপেক্ষা করতে পারেনি। ঘটনাক্রমে আবহাওয়ার এই অবস্থার কারণে দলটিকে একটি গুহায় বিশেষ করে অস্বস্তিকর দুটি রাত কাটাতে হয়।

জাপানের সবচেয়ে বৃহৎ (এবং সাধারণত সবচেয়ে রুঢ়) ইন্টারনেট ফোরাম ২চান-এর ব্যবহারকারীদের কাছে অন্য সব প্রশ্নের চেয়ে বেশী কৌতূহল সৃষ্টি করে প্রশ্নটি ছিল, নেরিকোর চুল কি আসল?

২চান থেকে নেওয়া স্ক্রিনশট

২চান –এর এক মন্তব্যকারী বলছে (এই পোস্ট থেকে গ্রহণ করা সকল মন্তব্য ২চান এর আলোচনা থেকে নির্বাচন করা হয়েছে):

おまえの髪型が恐ろしいわ

ভাই, তোমার চুল তো নয়, যেন পাখির বাসা!

অনেকে উদ্ধারকৃত এই স্নোবোর্ডার–এর চুল বাঁধার ধরনকে “ইসলামিক” অথবা “পাগড়ির অনুরূপ” বলে মন্তব্য করেছে। অন্যরা রসিকতা করে জিজ্ঞেস করছে যে নেরিকো কি আইএসআইএস-এর সদস্য কিনা।

অন্যের জিজ্ঞেস করছে আসলে কি নেরিকো পরচুলা মাথায় দিয়েছে। ঘটনাক্রমে অনেক ২চান ব্যবহারকারী টোকিওর পুরুষদের চুলের স্টাইল সংক্রান্ত ব্লগটি খুঁজে বের করার উদ্যোগ নেয়, এটি জট পাকানো চুল তৈরীর কৌশল প্রদানে সাহায্য করা ছাড়াও, নেরিকোর ছবি প্রকাশ করে যা দেখে মনে হচ্ছে তার চুল সত্যিকারের জট পাকানো:

তার চুল সত্যিকারে ভাবে জট পাকানো এই প্রমাণ পাওয়ার পর, অনলাইনে মন্তব্যের সুর অনেক নরম হয়ে আসে:

外見はともかく、律儀だと思うよ

বাহ্যিক এই বেশভূষা সত্ত্বেও, দেখে মনে হচ্ছে সে এক সৎ ব্যক্তি।

উদ্ধার হওয়ার পর এই তিনজনের অনুতাপ এবং মর্মবেদনা দৃশ্যত নাগরিকদের মনোভাবকে খানিকটা নরম করে:

この人救助されて運ばれた直後に、救助してくれた人に深々と頭下げてたよね
中身はものすごくちゃんとしてる人だと思うわ

উদ্ধার পাবার পর পর তারা অত্যন্ত বিনীত হয়ে সকলের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করে। তাদের অনেক ভদ্র, বিবেচক ব্যক্তি বলে মনে হয়েছে।

২চানের অন্য এক মন্তব্যকারী বলছে:

こいついいやつだな、先生に怒られて我に返った中学生みたい

দেখে মনে হচ্ছে সে আসলে এক চমৎকার ব্যক্তি… সে আমাকে মূলত আমাদের মাধ্যমিক স্কুলের সহপাঠীর কথা মনে করিয়ে দিচ্ছে যার প্রতি শিক্ষক সবসময় ক্ষিপ্ত থাকত।

নেরিকোর চুলের এই ধরণ অন্য এক মন্তব্যকারীর স্মৃতিকে ফিরিয়ে এনেছে:

90年代中ごろのスノボブームんとき、こんなんばっかりだったろ。
そこから時間が止まってるんだよたぶん。

B৯০-এর দশকে যখন স্নোবোর্ডিং করার পরিমাণ দারুণ ভাবে বেড়ে গেল, আপনারা দেখেছেন সে সময় এই ধরনের চুল রাখা হত, দেখে মনে হচ্ছে সময় থমকে আছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .