বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

নতুন বছরের রাজনৈতিক এক নিবেদনে জাপানী গায়ক হিটলারের গোঁফ নিয়ে খেলা করেছে

Kuwata Keisuke as Hitler

ছবি এনএইচকে-এর সৌজন্যে।

জাপানের এক জনপ্রিয় পপ মেগাস্টার, ৩১ ডিসেম্বর বছর শুরুর আগের সন্ধ্যায় বার্ষিক এক অনুষ্ঠানে ভূয়া হিটলারি গোঁফ পরে উদ্বেগের জন্ম দেয়।

কেইসুকে কুওয়াটা হচ্ছেন সাউদার্ন অল স্টার নামক ব্যান্ডের নির্মাতা এবং-এর প্রধান গায়ক, যে ব্যান্ডটি জাপানে ৮০-এর দশকের সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং প্রতিকি পপ ব্যান্ড। ব্যান্ড দলটির লক্ষ লক্ষ রেকর্ড বিক্রি হয়েছে এবং ২০০৮ ও ২০১৩ সালের সাময়িক বিরতির পর, কুওয়াটার নেতৃত্বে দি সাউদার্ন অল স্টার ব্যান্ড এনএইচকে টেলিভিশনের রেড এন্ড হোয়াইট সঙ্গীত প্রতিযোগিতায় ভু-উপগ্রহের মাধ্যমে সরাসরি প্রদর্শিত অনুষ্ঠানের অংশ হিসেবে সামনে আসে, যাকে কোহাকু নাম অভিহিত করা হয়। ৩১ ডিসেম্বর ১৯৪৯ সালে শুরু হওয়ার পর থেকে নতুন বছরের আগের দিনের সন্ধ্যায় কোহাকু অনুষ্ঠান দেখা জাপানের লক্ষ লক্ষ দর্শকের জন্য এক ঐতিহ্যে পরিণত হয়েছে।

এ বছর এই অনুষ্ঠানে সাউদার্ন অল স্টারের উপস্থিতি ছিল-এর এক বিশেষ আকর্ষণ, তবে ব্যান্ডের সামনে ভুয়া হিটলারি গোঁফ নিয়ে খেলার মধ্যে দিয়ে দর্শকের বিস্ময় উপহার দেওয়ার মত কুওয়াটার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল, দ্রুত তা জাপানের স্যোশাল মিডিয়া জগতে অন্যতম এক আলোচিত বিষয়ে পরিণত হয়। .

কেন কেইসুকে কুওয়াটা হিটলারের গোঁফ নিয়ে খেলেছে? সে বলেনি কেন, কিন্তু এর ফলে ইন্টারনেটে অজস্র ধারণার সৃষ্টি হয়েছে।

অনেকে মনে করছে হিটালারি এই গোঁফের (জাপানে এই ধরনের গোঁফকে চবি হিগে নামে অভিহিত করা হয়) রহস্যের পেছনে তথ্য হচ্ছে কুওয়াটা এটি নিয়ে খেলেছে, যেহেতু সাউদার্ন ব্যান্ডের হিট গান “শান্তি এবং নিজেকে তুলে ধর”।

এক অভিমত অনুসারে এই গান সম্বন্ধে কুওয়াটা যা লিখেছে, যেমনটা আগস্ট ২০১৩-এ জাপান টাইমস সংবাদ প্রদান করেছে :

“আমি সংবাদে দেখছি যে আমাদের প্রতিবেশীরা বিরক্ত। আমরা যতই আলোচনা চালিয়ে যাই না কেন, মনে হচ্ছে বাদানুবাদ পাল্টাবে না”, শ্রদ্ধেয় এই ব্যান্ড দলের নেতা কেইসুকে কুওয়াটা যে গানটি লিখেছে তার কথা হচ্ছে এ রকম।

এই গানটি একই সাথে যে ভাব প্রকাশ করছে তার অর্থ প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে এবং তার পুনরায় ঐতিহাসিক উচ্চাকাক্ষী দৃষ্টিভঙ্গির সমালোচনা, এই গান সতর্ক করছে এই ভাবে যে জনগণের বেদনাদায়ক অতীত এবং নির্বোধ কর্মকাণ্ডসমূহ ভুলে যাওয়ার প্রবণতা রয়েছে।

৩১ ডিসেম্বর, ২০১৪ তারিখে কোহাকুর এমন এক সময়ে সম্প্রচার,হল যার আগে ডিসেম্বরে জাপানে সহসা সংসদীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে, যে নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে এবং লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) শাসক জোট, ৩২৫টি সিট লাভ করে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতার মধ্যে দিয়ে পুনরায় নির্বাচিত হয়।

তবে নির্বাচনে স্বয়ং এলডিপি নিজে কয়েকটি আসন হারিয়েছে, এই বিষয়ে একটা ভয় রয়ে গেছে যে শাসক জোটের একক সংখ্যাগরিষ্ঠ আবেকে জাপানের “শান্তিপূর্ণ সংবিধান” পরিবর্তনের সুযোগ এনে দেবে-এমনকি যুদ্ধ শুরু করার অনুমতি প্রদান করবে- যে সংবিধান যুদ্ধকে প্রত্যাখান এবং শান্তিকে অনুমোদন প্রদান করে।

আর এ কারণে হিটলারের গোঁফ নিয়ে কেইসুকে কুওয়াটা এমন ভাবে খেলেছেন যেন তিনি জাপানের অন্যতম এক বৃহৎ এবং সমৃদ্ধ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে যুদ্ধবিরোধী গান গাইছেন।

সাউদার্ন অল স্টার দৃশ্যত আবের (জাপানের প্রধানমন্ত্রী ) সমালোচনা করছে, তাহলে মজাদার ছোট্ট গোঁফ কি হিটলারকে প্রতীক?

এলডিপি-এর সংসদ মাসারু ওনোদেরা মন্তব্য করেছে:

যেহেতু আপনি এক দারুণ শিল্পী তার মানে এই নয় যে আপনি যে কারো চেয়ে দেশপ্রেমী। এবং যে কোন শিল্পী যা করতে চায় তা করেন, তার মানে এই নয় তারা যা বলবে আপনি অন্ধ ভাবে সেটিকে গ্রহণ করবেন। উল্লেখ্যঃ কোহাকুতে আবের সমালোচনা বিতর্কের ঝড় তুলেছে

কুওয়াটার গোঁফ কি ভাব প্রকাশ করছে তা নিয়ে একজন টুইটার ব্যবহারকারী মজাদার একটি লেখা পোস্ট করেছে:

আমি মনে করি কুওয়াটার গোঁফ চা কাটোর [জনপ্রিয় কৌতুক অভিনেতা] কৌতুকের প্রতি এক ধরনের শ্রদ্ধা প্রদর্শন। এতে আবেকে সমালোচনার কিছু নেই। যদিও আমি খুব সাধারণভাবে সাউদার্ন অল স্টারের রাজনৈতিক গানের সাথে এর আদৌ কোন সম্পৃক্ততা খুঁজে পাচ্ছি না, আর এনএইচকে, কি ভাবে আপনারা হিটলারের রূপে নিজেকে উপস্থাপন করা এমন একজন ব্যক্তিকে চ্যানেলে সম্প্রচার করতে পারলেন???

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .