বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

যুবরাজের ট্রায়াথলনে অংশ নেয়ার কারণে বাহরাইনে তীব্র যানজট

Traffic comes to a standstill in Muharraq, Bahrain, today as the King's son takes part in a triathlon. Photograph shared by @MohdBucheeri on Twitter

যুবরাজের ট্রায়াথলনে অংশ নেয়ার কারণে বাহরাইনের মুহারাক শহরে আজ তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছিল। ছবিটি টুইটারে শেয়ার করেছেন মোহাম্মদ বুচেরি।

আজ (৬ ডিসেম্বর) বাহরাইনের যুবরাজ শেখ নাসের বিন হামাদ আল খলিয়া সোয়ামের ট্রায়াথলনে অংশ নেয়ার কারণে সকাল ৭টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত দেশটির প্রধান সড়কগুলোতে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়।

আর এর ফলে অন্ত্যোষ্টিক্রিয়া অনুষ্ঠান দেরিতে শুরু হয়েছে। বিদেশগামী যাত্রীরা তাদের ফ্লাইট মিস করেছেন। ডাক্তাররা সময়মতো হাসপাতালে পৌছাতে না পারার কারণে রোগীদের চিকিত্সা ছাড়াই ফিরে যেতে হয়েছে। তবে সবচে’ বেশি ভোগান্তির ঘটনা ঘটেছে মুহারাক শহরে। কারণ ৭৮০ বর্গ কিলোমিটারের দেশটির আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এখানেই অবস্থিত।

রাজ পরিবারের সদস্যদের সমালোচনার ব্যাপারে বাহরাইনের নেটিজেনরা সবসময়ই চূড়ান্ত ধৈর্যশীলতার পরিচয় দেন। যদি কখনো করেনও তবে সেটা তাদের আসল নামের অ্যাকাউন্ট থেকে করেন না। তবে এবার ব্যতিক্রম ঘটেছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় যানজট নিয়ে তীব্র সমালোচনা হয়েছে।
রায়দা সাবট লিখেছেন:

অন্ত্যোষ্টিক্রিয়ার দেরি হয়েছে, বিমানবন্দরে উড়োজাহাজ আটকে পড়েছে, রাস্তা বন্ধ হয়েছে। এর মানে কি কয়েকজন মানুষের দৌড়াতে চেয়েছে বলে মানুষ তাদের ব্যাপারে আগ্রহ দেখাবে!

আহমেদ বুচারি টুইট করেছেন:

একটি ছোট্ট দেশের পথঘাট বন্ধ করে দৌড় প্রতিযোগিতার আয়োজন করাটা আহাম্মকী।

মোহাম্মদ বাউলি মুহারাক শহরের বাসিন্দা। টুইটারে তার ৩,৮৯০ জন অনুসরণকারী রয়েছেন। তিনি লিখেছেন:

বাহরাইনের রাস্তায় আমি আগে কখনো এমন ভিড় দেখিনি। আবার হিদ, আরাদ এবং মুহারাক শহরে আজকে যা দেখলাম, এমনভাবে মানুষকে আগ্রহ হারাতেও দেখিনি।

তিনি আরো লিখেছেন:

আমি অপেক্ষা করছিলাম কোনো দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এমন ঘটনার জন্য জনগণের কাছে ক্ষমা চাইবেন। এমন কোনো বিবেচক মানুষ আছেন, যিনি বিমানবন্দরে যাওয়ার রাস্তা বন্ধ করে দিতে পারেন?

ভাইনে মোহাম্মদ বুচারি এই ভিডিও শেয়ার করেছেন, যেখানে যাত্রীদের ব্যাগ-বোচকা নিয়ে বিমানবন্দরের উদ্দেশ্যে দৌড়াতে দেখাতে যাচ্ছে:

বুচারি এই ঘটনায় খুবই বিরক্ত হয়েছেন। কেননা, পরিবারের সদস্য এবং শুভার্থীদের আসতে দেরি হওয়ায় তার ভাইয়ের অন্ত্যোষ্টিক্রিয়ার দেরি হচ্ছিল। তিনি শেখ নাসেরের উদ্দেশ্যে টুইটে বলেন:

প্রতি শেখ নাসের,
আমার ভাই মারা গেছেন। আমাদের জন্য সবাই কবরস্তানে অপেক্ষা করছেন।
কিন্তু অন্ত্যোষ্টিক্রিয়ায় কেউ যেতে পারেনি
এটা কি গ্রহণযোগ্য?

অন্য একটি টুইটে পুলিশের সাথে তার বাক-বিতণ্ডার কথা উল্লেখ করেছেন:

আমি পুলিশ অফিসারকে বললাম, আমাদের পরিবারের একজন মারা গেছেন। আমাদের কবরস্তানে যেতে হবে। তিনি আমাকে বললেন, বাড়ি ফিরে যান। প্রতিযোগিতার কারণে রাস্তা বন্ধ করা হয়েছে।

মানুষজনের বিমানবন্দরের দিকে হেঁটে যাওয়ার ছবি অনেক নেটিজেন শেয়ার করেছেন। আবদুল্লাহ আল জালাহমা বিমানবন্দরের নোটিশবোর্ডের ছবি শেয়ার করে জিজ্ঞেস করেছেন:

কে আছেন এই ক্ষতি নিজের কাঁধে তুলে নিবেন?

দেশটির বিমান সংস্থা টুইটারে তাদের ফ্লাইট দেরি হওয়ার কারণ হিসেবে যাত্রীদের ঠিক সময়ে বিমানবন্দরে আসতে না পারার কথা উল্লেখ করেছে:

আজকে সকালের কিছু ফ্লাইট বিলম্ব হওয়ার কারণে গালফ এয়ার দু:খিত। কারণ কিছু যাত্রী দেরিতে বিমানবন্দরে এসে পৌছেছেন।

বাহরাইন ট্রায়াথনের স্পন্সর ছিল একটি এয়ারলাইন্স। তারা টুইটারের ১৪০ অক্ষরের টুইটে ব্যাখ্যা করতে পারতো কেন যাত্রীরা বিমানবন্দরে যেতে দেরি করেছে।

নেটিজেনরা জানিয়েছেন, যানজটের কারণে রোগী এবং ডাক্তাররাও ভোগান্তি পড়েছিলেন। আবদুল্লাহ আল জালাহমা টুইট করেছেন:

আমি শুনেছি যে, রাস্তা বন্ধ থাকার কারণে কিডনি সমস্যায় ভুগছেন এমন কয়েকজন রোগী রোগ-পরীক্ষার জন্য যথাসময়ে উপস্থিত হতে পারেননি। ফলে তারা খুব সংকটাপন্ন অবস্থায় আছেন।

মোহাম্মদ বুচারি জামে আটকে পড়া অ্যাম্বুলেন্সের ছবি শেয়ার করেছেন:

যানজটের কারণে অ্যাম্বুলেন্স একচুলও এগুতে পারেনি। অ্যাম্বুলেন্সে যারা আছেন, আল্লাহ তাদের ধৈর্য ধরার তওফিক দিন। এসব কিছুই হচ্ছে ট্রায়াথলনের কারণে।

আবদুলমোনেম আলমীর একজন ডাক্তারের অভিজ্ঞতার কথা জানিয়েছেন:

একজন ডাক্তার গালালি থেকে সকাল সাড়ে আটটায় বের হয়েছেন। এখনো তিনি বুসাইতিনে আটকে আছেন। রোগীরা তার জন্য অপেক্ষা করছে। তার সার্জারির দেরি হয়ে যাচ্ছে। এটা কি কল্পনীয়?

২০১১ সালের মার্চ মাসে গণতন্ত্রের জন্য আন্দোলন শুরু হওয়ার পর থেকে বাহরাইনের গ্রামের মানুষদের কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে বসবাস করতে হয়। যখন-তখন রাস্তা বন্ধ তাদের জন্য খুব সাধারণ ঘটনা, যেন জীবনেরই একটা অংশ।

ওয়াসান সরকার সমর্থকদের উদ্দেশ্য করে টুইটারে লিখেছেন:

আপনারা কি গ্রামের মানুষদের কষ্ট উপলদ্ধি করতে পারছেন? আপনারা কি অনুভব করতে পারছেন, ইরক গ্রাম এক সপ্তাহ বন্ধ রাখার সময়ে কী অবস্থা হয়েছিল? আপনারা দু'ঘণ্টার এই কষ্ট-ই সহ্য করতে পারেন না।

এলাকায় ঢোকার সময়ে রাস্তা বন্ধ হওয়ায় ঘটনা আমাদের সয়ে গেছে। ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষার বিষয়টিও গা-সওয়া হয়ে গেছে। আমরা যেখানে যেতে চাই, সেখানে কখনোই যেতে পারবো না। এর কারণ হলো পুলিশ চেকপয়েন্ট। এখন আপনারা কষ্ট করেন।

মোহাম্মদ বেইদা বিক্ষোভকারীদের রাস্তায় টায়ার পোড়ানোর কারণে রাস্তা বন্ধের সাথে প্রতিযোগিতার কারণে রাস্তা বন্ধের বিষয়টির মধ্যে তুলনা করেছেন:

[…] ট্রায়াথনের চেয়ে রাস্তায় টায়ার পোড়ানো অনেক ভালো। কারণ, একঘণ্টার মধ্যেই আবার রাস্তা চালু হয়ে যায়।
আপনি কি এই চেয়েছিলেন?

সরকার সমর্থকরা এর আগে রাস্তা বন্ধ করে, গাড়ির টায়ার জ্বালিয়ে রাস্তা বন্ধ করার জন্য বিরোধীদের দায়ী করতো। আর আজ তাদের অন্য এজেন্ডা আছে।

A meme showing opposition leader Ali Salman saying the closed roads aren't his fault

সামাজিক মিডিয়ায় একটি মিম ব্যাপক আকারে ছড়িয়ে পড়ে। সেখানে বিরোধীদলীয় নেতা আলী সালমানকে বলতে দেখা যাচ্ছে, রাস্তা বন্ধতে তার কোনো ভূমিকা নেই।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .