বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ডেভিড বেকহামের ভিয়েতনামী ভক্ত প্রদর্শন করেছে কেন সন্তান সাথে নিয়ে স্কুটার চলানো উচিত নয়

David Beckham's photo of a fan on a scooter, wearing no helmet, and a sleeping  child riding with her. Photo widely shared on Facebook, from Beckham's page.

ডেভিড বেকহামের তোলা স্কুটার চালানো এক ভক্তের ছবি, যে হেলমেট পড়েনি এবং দুই পায়ের মাঝে তার ঘুমন্ত শিশু নিয়ে সে মোটর সাইকেল চালাচ্ছিল। ফেসবুকে এটি ব্যাপকভাবে প্রদর্শিত হয়েছে, যা নেওয়া হয়েছে বেকহামের ফেসবুক পাতা থেকে।

অ্যালকোহল যুক্ত এক পানীয়র প্রচারণায় অংশ গ্রহণের জন্য তারকা ফুটবলার ডেভিড বেকহাম ভিয়েতনাম সফরে গিয়েছিলেন। কিন্তু বেকহামের এই সফরের তিনদিন পর নিজের ফেসবুকের পাতায় পোস্ট করা নিজের তোলা ছবি বিশ্ব জুড়ে মনোযোগ আকর্ষণ করে। এই ছবিতে দেখা যাচ্ছে যে স্কুটার চালানো এক নারী ডেভিড বেকহামের ছবি তুলছে; সে সময় তার মাথায় হেলমেট ছিল না, আর তারচেয়ে খারাপ বিষয়টি ছিল তার পায়ের মাঝখানে সে এক ঘুমন্ত শিশুকে রেখে দিয়েছিল।
বেকহাম তার ফেসবুকে লেখে :

ভক্ত যাতে ছবি তুলতে পারে তার জন্য আমি নিবেদিত, কিন্তু ঠিক নিশ্চিত নই এটা সবচেয়ে নিরাপদে ছবি তোলার মাধ্যম কি না!

এই ছবি ৬৮৬,০০০ টি লাইক পেয়েছে, এটি ৭,০০০ জন শেয়ার করেছে এবং এখানে ১৮,০০০ জন নাগরিক মন্তব্য করেছে। একই সাথে এই ছবিটা ভিয়েতনামের সড়ক নিরাপত্তা এবং ট্রাফিক আইনের প্রয়োগ নিয়ে আলোচনা উসকে দিয়েছে। পুলিশ বলছে যে মোটর সাইকেল আরোহীদের জন্য যাতে এক উদাহরণ হয় তার জন্য ট্রাফিক আইন লঙ্ঘনের দায়ে উক্ত মহিলার বিরুদ্ধে এক মামলা করবে হবে।

তবে ভিয়েতনামে বাস করা এক বিদেশী স্কট ডিউক হ্যারিস উল্লেখ করেন যে ভিয়েতনামের অনেক চালক এবং মোটর সাইকেল আরোহী রাস্তায় যে আচরণ করে এই ছবি তার এক সঠিক চিত্র:

হ্যাঁ, বেকহামের ভক্ত আইনকে অবজ্ঞা করেছে–কিন্তু প্রতিদিন অনেক নাগরিক কি এই কাজটা করে না? হেলমেট আইন প্রায়শ উপেক্ষা করা হয়, যেন আইন করা হয়েছে হাতে ধরা ক্যামেরা যন্ত্র ব্যবহার সীমাবদ্ধ করার জন্য। হেলমেট না পড়িয়ে ছোট শিশুদের নিয়মিতভাবে অথবা দৃশ্যত, নিরাপত্তা প্রদানকারী অন্য সকল উপাদান না পড়ে মোটর সাইকেল চালানো হয়, কেবল অন্ধেরা বিষয়টি দেখতে পায় না।

ফেসবুকে, বেশীরভাগ ভিয়েতনামী নেট নাগরিক বলছে যে এই ছবিতে তারা বিব্রত এবং সাথে থাকা শিশুর জীবন বিপন্ন করার জন্য তার উক্ত মহিলার সমালোচনা করছে। এদিকে ট্রুয়ং ডাং নামক ফেসবুক ব্যবহারকারী বেকহামকে স্মরণ করিয়ে দিচ্ছেন যে ভক্তের শুধু এক ছবি তোলার চেয়ে তিনি আরো ভাল কিছু করতে পারতেন :

পেছন থেকে ছবি তোলার বদলে আপনি তাকে এই বিপজ্জনক পরিস্থিতির বিষয়টি স্মরণ করিয়ে দিতে পারতেন। যদি আপনি ওই ভক্ত এবং তার শিশুর প্রতি যত্নশীল হতেন, তাহলে নিশ্চিত ভাবে বলা যায় আপনি এই কাজটি করতেন না।

সেভেইন বার্জ নামক আরেক ফেসবুক ব্যবহারকারী বেকহামকে বিদ্রূপ করছে এই বলে যে এ্যালকোহল যুক্ত পানীয়র বিজ্ঞাপনের প্রচারণায় অংশ নিতে তিনি ভিয়েতনামে এসেছেন:

আমি আদর্শ ব্যক্তির জন্য নিবেদিত, কিন্তু আমি নিশ্চিত নই মদের প্রচারণা অংশ গ্রহণ সেরা কোন মাধ্যম কিনা?

ভিয়েতনামের অনেক ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সাধারণ আবেগকে হোয়াং ভি তান তার লেখাতে তুলে ধরেছে:

এই মহিলা ভিয়েতনামের প্রতিনিধিত্ব করে না। তবে এই বিষয়টি মেনে নিতে হচ্ছে যে অনেক বেশী লোক বেপরোয়া ভাবে গাড়ি চালায়। যদিও বেশীরভাগ নাগরিক তাদের সন্তানদের ভালবাসে, অনেকে ঠিক ভাবে তাদের রক্ষা করতে জানে না। এটা অল্প কিংবা অকার্যকর শিক্ষা, গণসচেতনতা বিষয়ক প্রচারণা অথবা আইন প্রয়োগের ব্যর্থতার ফল।

আশার কথা হচ্ছে, বেকহামের এই ব্যাপক প্রদর্শিত ছবি ভিয়েতনামী কর্তৃপক্ষ এবং সাধারণ নাগরিকদের এই বিষয়টি স্মরণ করিয়ে দিয়ে যে কঠোর ভাবে ট্রাফিক আইনের প্রয়োগ এবং তা পালন দেশটির সড়ক নিরাপত্তার উন্নতি ঘটাবে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .