বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

সামুদ্রিক ঝড় ওডিলের কারনে মেক্সিকোর মৎস এবং কৃষি শিল্পের ব্যাপক ক্ষতি, তবে প্রচার মাধ্যমগুলো পর্যটন রিসোর্টের ক্ষতি নিয়ে বেশি মুখর

Estragos de Odile en San José del Cabo. Captura de pantalla de video publicado en YouTube.

সান জোসে ডেল কাবোতে ভয়াবহতা। ইউটিউবে প্রকাশিত ভিডিও স্ক্রিন ক্যাপচার।

ওডিলে নামক প্রবল ঘূর্নিঝড়টি প্রচন্ড শক্তিতে গত ১৫ এবং ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৪ তারিখে মেক্সিকোর প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল এবং করটেজ সাগর তীরে আঘাত হেনেছে। যথারীতি প্রধান প্রধান সংবাদ মাধ্যমগুলো বাজা ক্যালিফোর্নিয়া সুর রাজ্যে অবস্থিত লস ক্যাবস এবং কাবো সান লুকাসের মতো স্থানগুলোতে দূর্যোগের কারনে হওয়া ক্ষয়ক্ষতি এবং সেখানে অবস্থানকারী পর্যটকদের ভোগান্তির উপর গুরুত্ব দিয়ে রিপোর্ট করেছে।

তবে ওডিলে ঘূর্ণিঝড়টি শুধুমাত্র আন্তর্জাতিকভাবে খ্যাতিসম্পন্ন দুইটি আকর্ষনীয় পর্যটন কেন্দ্র ধ্বংস করেই ক্ষান্ত হয়নি; এটি আরও অনেক জনপদ চূর্ন বিচূর্ণ করে দিয়েছে। ঝড়ের পরিনামে ক্ষতবিক্ষত এসব এলাকা পুননির্মানের জন্য এখন তাদের যথাযথ সাহায্য সহযোগীতা প্রয়োজন।

সিনালোয়া এবং সনোরা রাজ্যে এই ক্ষয়ক্ষতির পরিমান আরও বেশি। যদিও মেক্সিকোতে ঘুরতে আসা ভ্রমণকারীরা এসব এলাকাতে খুব একটা যান না, তবে দেশটির অর্থনীতির ক্ষেত্রে এ রাজ্যগুলো বেশ গুরুত্বপূর্ণ। দূর্ভাগ্যবশত স্থানীয় কয়েকটি প্রচার মাধ্যম ছাড়া এসব এলাকার ক্ষয়ক্ষতির পরিমান সম্পর্কে কোন রিপোর্ট প্রচার করা হয়নি। এল ডিবেট সংবাদপত্রটি কৃষিক্ষেত্রে ওডিলে ঘূর্নিঝড়ের তান্ডব নিয়ে বিস্তারিত বর্ননা করেছে। এ অঞ্চলের প্রধান অর্থনৈতিক কর্মকান্ড কৃষিকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠেছে – বিশেষ করে গুয়াসাভ শহরে। এখানে ওডিলে ঘূর্নিঝড়ের কারনে হওয়া অতিরিক্ত বৃষ্টিপাতে “জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হওয়ার কারনে সম্প্রতি রোপন করা শাকসবজির আবাদ ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে”।

তাছাড়া একই পত্রিকা মৎস চাষ পরিস্থিতি নিয়েও রিপোর্ট করেছে। উল্লেখ্য মৎস চাষ মেক্সিকান অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলেছে। রিপোর্টে বলা হয়েছেঃ  “যে সময়টি ছিল কাজ করার, চাষাবাদের এবং গর্বের দিন […] আজ সেটি অনিশ্চয়তা এবং হতাশার এক করুণ চিত্রে পরিনত হয়েছে। গতকাল পর্যন্ত খারাপ আবহাওয়ার কারনে আমরা মাঠে কাজ করতে পারিনি”। বিভিন্ন রিপোর্টে “ধ্বংস” শব্দটি ব্যবহার করা হয়েছে লাস গ্লোরিয়াসের সমুদ্র তীরবর্তী রিসোর্টটির উপর ওডিলে ঝড়ের প্রভাব বর্ননা করতে। সেখানকার ক্ষয়ক্ষতিও বেশ উল্লেখযোগ্য।    

এল রিজিওনাল সংবাদপত্রের অলিভিয়া রুইজ পাতায় গুয়াসাভে সম্প্রদায় সম্পর্কে বিভিন্ন সংবাদ প্রকাশ করা হয়। সেখানে মন্তব্য করা হয়েছেঃ

Las marejadas que han destruido las casas que estaban muy cerca del mar, los restaurantes que se instalaron en la playa y el espacio construido por el Ayuntamiento con andadores, barda y palapas, ahora están desaparecidos, destruidos casi en su totalidad.

মহাসাগরের খুব কাছাকাছি অবস্থিত ঘরবাড়ি, সমুদ্র তীরে গড়ে ওঠা রেস্তোরাগুলো এবং নগর কর্তৃপক্ষের তৈরি করা হাটার রাস্তা, দেয়াল এবং শুকনা খড়ে ছাওয়া ছাদ দেয়া গাজেবোসহ উদ্যানগুলো প্রবল ঘূর্নিঝড়ে ধ্বংস হয়ে গেছে। প্রায় পুরোটাই ধ্বংস হয়ে গেছে।

গুয়াসাভে শহরের মেয়র আরমান্দ লেইসন ওডিলের কারনে সৃষ্ট ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির দিকে দৃষ্টি দেয়ার চেয়ে বরং মেক্সিকোর জাতীয় দিবস পালন করতেই বেশি পছন্দ করছেন। তিনি টুইটারে ১৬ সেপ্টেম্বর তারিখে স্বাধীনতা দিবস উদযাপনের ছবি শেয়ার করতেই বেশি আগ্রহ বোধ করছেনঃ

গুয়াসাভেতে এভাবেই স্বাধীনতা দিবস পালন করা হয়ে থাকে।

উল্লাস সত্ত্বেও @গুয়াসাভেসয় ঝড় পরবর্তী ক্ষয়ক্ষতির প্রমাণ স্বরূপ নিচের বিষয়গুলো প্রচার করেছেনঃ

ঘূর্নিঝড়টি তার চলার পথে যা কিছু পেয়েছে সবকিছু উপড়ে ফেলেছে। রাস্তার থাম এবং ট্রান্সফর্মারগুলোও ধ্বংস করে ফেলেছে।

ব্যবহারকারী দামিয়ান মনতোয়া মন্তব্য করেছেন, ওডিলে পরবর্তী সময়ে কেবল এখন তিনি আবার কাজে যোগ দিতে পেরেছেনঃ

আর এখন সিনালোয়াতে আগামীকাল আবার কাজে যোগ দিব। কারন ওডিলে চলে গেছে।

এই ভিডিওতে ওডিলের চাপে সৃষ্ট ধ্বংসলীলা দেখানো হয়েছে। সান জোসে ডেল কাবো পাড় হওয়ার সময় তিনি এ দৃশ্যগুলো ধারন করেছেনঃ

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .