বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

কলম্বিয়ায় বজ্রপাতে উইয়ুয়া সম্প্রদায়ের ১১ জন নিহত

Pueblo Indígena en la Sierra Nevada por el Usuario  Sailing Nomad en FLickr bajo LIcencia CC by 2.0

সিয়েরা নেভাদার আদিবাসী গ্রাম। ছবি তুলেছেন ফ্লিকার ব্যবহারকারী সেইলিং নোমাড (সিসি বিওয়াই ২.০)।

চলতি সপ্তাহের শুরুতেই (৬ অক্টোবর ২০১৪) সান্টা মার্টার সিয়েরা নেভাদায় ব্যাপক বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে। এতে উইয়ুয়া সম্প্রদায়ের ১১ জন মারা গেছেন। তাছাড়া আহত হয়েছেন ডজনখানেকেরও বেশি মানুষ। এই বিষাদময় ঘটনা টুইটারে বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। কেউ কেউ শোক প্রকাশ করেছেন। আবার কেউ কেউ এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক বক্তব্যও রেখেছেন।

কারিনা বেট্রিজ রবিবারের সেই রাতের ব্যাপক বৃষ্টির কথা স্মরণ করে নিহতদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন:

অন্যদিকে সুপারগার্লদিদি এই ঘটনার সুযোগ নিয়ে সাবেক প্রেসিডেন্ট আলভেরো ইউরাইব ভিলেজের সমালোচনা করেছেন:

Paisaje tradicional de la Sierra Nevada de Santa Marta por el usuario  Sailing Nomad en Flickr bajo licencia CC BY-NC-ND 2.0

সান্টা মার্টার সিয়েরা নেভাদার সাধারণ চিত্র। ছবি তুলেছেন ফ্লিকার ব্যবহারকারী সেইলিং নোমাড (বিওয়াই এনসি এনডি ২.০)।

কোলোরেজ মারি এই বিষাদময় ঘটনার মিডিয়া কাভারেজ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন:

এদিকে ডায়ানা মনটোয়া ইউয়ুয়া সম্প্রদায়ের মানুষদের প্রজ্ঞার প্রতি সন্মান দেখিয়েছেন:

ক্যারিবিয়ান সাগরের তীরে সান্টা মার্টার সিয়েরা নেভাদায় উইয়ুয়া সম্প্রদায়ের মানুষ বসবাস করেন। স্থানীয়ভাবে জায়গাটা পৃথিবীর হৃদপিন্ড (হার্ট অব দ্য ওয়ার্ল্ড) নামে পরিচিত। উইয়ুয়া পিপল ব্লগের তথ্য মতে, এখানে আরো চারটি প্রতিবেশী গ্রাম রয়েছে। উল্লেখ্য, এই ব্লগে উইয়ুয়া সম্প্রদায়ের উপরে বিভিন্ন প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। কলম্বিয়ান কনফ্লিকের (১৯৬৪/৬৬ সালে কলম্বিয়া অঞ্চলে এলাকা দখলের উদ্দেশ্যে সরকার, সামরিক বাহিনী, অপরাধী চক্র, বামপন্থী গেরিলাদের মধ্যে যে দ্বন্দ্ব) সময়ে এখানকার মানবাধিকার পরিস্থিতি বেশ চাপের মুখে পড়ে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .