বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

২০০৮ সালের অপারেশন কাস্ট লিডের চেয়ে ইসরায়েলের প্রটেকটিভ এজে গাজায় নিহত ফিলিস্তিনিদের সংখ্যা বেশি

Tweeted by photojournalist Lazar Simenov @Lazsim "Apocalyptical scenes in Beit Hanoun. #Gaza #Palestine #Israel"

ফটোসাংবাদিক লাজার সিমেনভ (@লাজসিম) ছবিটি সহ টুইট করেছেন, “বাইত হানুনে হৃদয়বিদারক দৃশ্য।” 

ইসরাইলের অব্যাহত হামলায় অবরুদ্ধ গাজায় নিহত ফিলিস্তিনিদের সংখ্যা ছয় বছর আগে ইসরাইল পরিচালিত কাস্ট লিড নামের একটি তিন সপ্তাহের সশস্ত্র হামলায় মৃতের সংখাকে অতিক্রম করে গেছে।

​​ফিলিস্তিনিদের স্বাস্থ্য মুখপাত্র ডাঃ আশরাফ আলকেদার ফেসবুকে মৃতের ব্যাপারে একটি পরিসংখ্যান শেয়ার করেছেন। তাঁর মতে, এই সংঘাতের ফলে এখন পর্যন্ত নিহত ফিলিস্তিনিদের সামগ্রিক সংখ্যা ১,৪৩৭ এবং আহতদের সংখ্যা ৮,৩০০ জন। ইসরায়েল এই হামলার নাম দিয়েছে ​​অপারেশন প্রোটেকশন এজ।   

ডাঃ আলকেদার বলেছেন, গত ৩১ জুলাই তারিখের হামলায় ৭৯ জন ফিলিস্তিনি নিহত এবং ৩৫০ জন আহত হয়েছেন।   

৬১ জন ইসরায়েলী সৈন্য ও তিন জন বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছে।

মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, ২০০৮/০৯ সালে পরিচালিত অপারেশন কাস্ট লিডে (বন্ধুত্বপূর্ণ আগুন থেকে ৪ জন) ১,১৬৬ থেকে ১,৪১৭ জন ফিলিস্তিনি এবং ১৩ জন ইসরায়েলির মৃত্যু হয়।   

সাংবাদিক রুথ পোলার্ড রিপোর্ট করেছেন:

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলছে, #গাজায় মৃতের সংখ্যা ১৪১৮ জনে পৌঁছেছে এবং ৮২৬৫ জন আহত হয়েছে। এটি কাস্ট লিডকে অতিক্রম করে গেছে। এর যেন কোন শেষ নেই। 

গত ৮ জুলাই তারিখে ৪০ কিলোমিটার দীর্ঘ উপকূলীয় স্ট্রিপের বিরুদ্ধে ইসরাইল ব্যাপক আক্রমন শুরু করে। তাদের সামরিক বাহিনী আবাসিক এলাকা, বাজার, স্কুল, খেলার মাঠ, হাসপাতাল, আশ্রয়স্থল এবং শরণার্থী শিবিরের উপর ব্যাপক বোমাবর্ষণ করে, যা ৭৫ শতাংশ বেসামরিক মৃত্যুকে ত্বরান্বিত করে। ২৮ জুলাই তারিখে, ইসরাইল গাজার একমাত্র পাওয়ার প্ল্যান্টটিকে আক্রমণ করে, যার ফলে ১ দশমিক ৮ মিলিয়ন মানুষের ঘনবসতিপূর্ণ স্ট্রিপটি অন্ধকারে পতিত হয়।  

জাতিসংঘের মতে, গাজায় উদ্বাস্তু ফিলিস্তিনিদের সংখ্যা ৪,০০,০০০  অতিক্রম করতে পারে, যাদের যাওয়ার কোন জায়গা নাই।

গত ছয় বছরের মধ্যে গাজায় এটি ইসরাইলের তৃতীয় সামরিক হামলা। গাজা এবং পশ্চিম তীরের এই ফিলিস্তিনি অঞ্চলে ইসরায়েল থেকে প্রদত্ত অতিরিক্ত সীমাবদ্ধতা রয়েছে, যার ফলে অধিকাংশ বিশ্ব এবং জাতিসংঘ এই এলাকাটি ইসরায়েল দ্বারা “দখল” বলে বিবেচনা করে।  

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .