বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ট্যুর গাইডরা কেবল একটি শহরের ইতিহাসের একটি অংশ আপনাকে বলে। তবে এই এ্যাপটি আপনাকে শহরের অধিবাসীদের কাছ থেকে তাদের নিজেদের গল্প শোনাবে

Banner of words from Voicemap. Republished with permission.

ভয়েসম্যাপ থেকে শব্দের ব্যানার। অনুমতিক্রমে পুনরায় ব্যবহার করা হল। 

আপনি যখন ভ্রমণ করছেন, তখন আপনার গন্তব্যস্থল সম্পর্কে আপনি জানতে চাইবেন। কিন্তু আপনি হয়তোবা একঘেয়ে কিছু বিষয়, ঐতিহাসিক স্মৃতি সৌধ সম্পর্কে জেনে এবং পর্যটন অফিসগুলোর লেখা কিছু ঐতিহ্যবাহী বর্ননা শুনে ক্লান্ত বোধ করছেন। তাই নয় কি? 

A screenshot from Voicemap. Republished with permission.

ভয়েসম্যাপ থেকে একটি স্ক্রিনশট। অনুমতিক্রমে পুনরায় ব্যবহার করা হল।  

ভয়েসম্যাপ এমন একটি এ্যাপ, যার মাধ্যমে লোকেরা তাদের নিজেদের গল্পগুলো প্রতিবেশীদের জানাতে পারবেন। পেশাদার কন্ঠশিল্পীদের চেয়ে বরং গল্প বক্তাদের নিজ কন্ঠে ট্র্যাকগুলো ধারন করা হয়েছে। ট্র্যাকগুলোকে আরও বেশি আন্তরিক এবং ব্যক্তিগত কণ্ঠস্বরপূর্ন করে তোলার জন্য এমনটি করা হয়েছে।

এ্যাপটির প্রতিষ্ঠাতা ইয়ান ম্যানলে। ১০ বছর ধরে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ভ্রমণের পর একটি ট্যুর অপারেশন কোম্পানিতে তিনি কাজ শুরু করেন। তিনি নিজে যখন ভ্রমণ করেছেন তখন স্থানীয় অধিবাসীদের কেউ যখন তাকে নিজের মতো করে তাদের শহরটিকে দেখিয়েছে তখন তাঁর সবচেয়ে বেশি ভাল লেগেছে। তাই তিনি তাঁর জন্মস্থান কেপ টাউন নিয়ে প্রথমে কাজ করা শুরু করেন। তিনি বলেছেন, কেপ টাউন এমন একটি শহর যার অনেকগুলো ভিন্ন ভিন্ন প্রেক্ষাপট রয়েছে।

একটি স্কাইপ সাক্ষাৎকারের মাধ্যমে তিনি আমাদের বলেছেন, “ইতোমধ্যে, আমরা লোকদের ট্যুরে সাহায্য করার চেয়েও আরও বেশি কিছু করতে আগ্রহী। আমরা এটিকে একটি নতুন মাধ্যম হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে চাই। আমরা চাই এটি গল্প বলার এমন মাধ্যমে পরিণত হবে যা গল্পগুলোকে আরও নতুন এবং মজার উপায়ে উপস্থাপন করবে।”

একটি স্থান সম্পর্কে অনেক ধরনের গল্প তৈরির উপর ভয়েসম্যাপ বেশি গুরুত্ব দিয়েছে। কেননা পর্যটনের ক্ষেত্রে গতানুগতিক একই ধরনের কন্ঠস্বরে ধারণ করে গল্প বলার উপায় থেকে তারা বেড়িয়ে এসেছেন। তাঁর পরিবর্তে তারা স্থানীয় লোকেদের তাদের সম্প্রদায় সম্পর্কে নিজেদের ইতিহাস বলার ক্ষেত্রে স্বকীয়তা বজায় রাখতে চেয়েছেন।

ওয়েবসাইটটিতে ব্যাখ্যা করা হয়েছেঃ 

গল্প বলা সবসময়ই আমাদের চারপাশের পৃথিবীকে আরও বেশি অর্থবহ করে তোলে। আমরা নিজেদের সম্পর্কে যে গল্প বলি, সেটাই আমাদের বাড়ি। বাড়ি থেকে দূরে কোথাও যাওয়া আমাদের গল্পেরই একটি অংশ। মাউন্ট এভারেস্ট, মিসিসিপি নদী, গিজার পিরামিড এবং বার্লিন দেয়াল আসলেই একঘেয়ে গল্প, যা প্রতিদিন বার বার বলা হয়। আপনার প্রতিবেশীরাও একেকজন একটি গল্প। 

ভয়েসম্যাপ সম্পর্কে বর্ননাকারী একটি প্রকল্পের একটি ভিডিও আবার দেয়া হলঃ  

এখানে অনেক চ্যালেঞ্জ রয়েছে। লোকেরা কোথা থেকে হাঁটা শুরু করবে এবং কোথায় গিয়ে থামবে তার পূর্বাভাস দেয়ার চেষ্টা করা, গল্প বলার সময়ের সাথে চলার গতির সমন্বয় রাখতে শেখা এবং এ ধরনের আরও অনেক কিছু। ম্যানলে বলেছেন, “যা দিয়ে কোন স্থানকে চেনা যায়, এমন বস্তুর তালিকা লোকজনকে দেয়ার পরিবর্তে স্থানটির সাথে আমরা তাদেরকে জুড়ে দিতে চাই।”

আর তাঁর সাথে কিছু বিস্ময় আছে – “কোন স্থান চিহ্নিত করতে একই বস্তু সম্পর্কে মাঝে মাঝে দুইজন ভিন্ন লোক একেবারেই ভিন্ন ভিন্ন মতামত দিতে পারেন। কোন এনসাইক্লোপেডিয়া বা গাইডবুক থেকে পাওয়া তথ্যের চেয়ে এগুলো আরও বেশি মজাদার হবে।” 

আইটিউন স্টোরে আপনারা ভয়েসম্যাপ পাবেন। খুব শীঘ্রই আসা একটি এ্যান্ড্রয়েড সংস্করন পেতে আইটিউন স্টোরে চোখ রাখুন। আপনি যদি একজন গল্প বক্তা হিসেবে এই ওয়েবসাইটটিতে সাইন ইন করতে চান, তবে অনলাইনে কোন একটি গল্প বলার মাধ্যমে আপনি শুরু করতে পারেন

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .