বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

গাজার শিশুদের উপর ইজরায়েল-এর বোমা বর্ষণের সংবাদ নিউইয়র্ক টাইমসের পাল্টে ফেলায় টুইটার ব্যবহারকারীদের সমালোচনা

সম্প্রতি, মঙ্গলবার ১৬ জুলাই তারিখে “সমুদ্র তীরে ফুটবল খেলতে থাকা চারটি বালকের উপর ইজরায়েল-এর বোমা নিক্ষেপের” সংবাদে নিউইয়র্ক টাইমস প্রবল সমালোচনার মুখে পড়ে।

পত্রিকাটি “গাজার সমুদ্রতটে খেলতে থাকা চারজন কিশোর নিহত” হওয়ার সংবাদ শিরোনাম পাল্টে লেখে “মধ্যপ্রাচ্যের সংঘর্ষের মাঝেও, গাজার সমুদ্রতটে চারজন কিশোরের ফুটবল খেলার প্রতি মনোযোগী হয়েছিল” যা কারো কারো কাছে মনে হয়েছে, বিভ্রান্তি ছড়ানোর উদ্দেশ্যে করা হয়েছে। নিউজডিফে যেমনটা দেখা যাচ্ছে, ১৬ জুলাই তারিখ রাত ৮.৩৫ থেকে ৯.১৩ –এর মধ্যে সংবাদের শিরোনাম পরিবর্তন করা হয়।

এর জবাবে, ইঙ্গ-আফ্রিকান ওয়েব সাইট “ আফ্রিকা ইজ এ কান্ট্রি”, #এনওয়াইটিহিস্ট্রি হ্যাশট্যাগের মাধ্যমে টুইটারে তার অনুসারীদের আহ্বান জানায় শিরোনামটি পাল্টে একটি বিদ্রুপাত্মক শিরোনাম প্রদান করার জন্য:

Screenshot of the status shared by 'Africa Is A Country'

“আফ্রিকা ইজ এ কান্ট্রি” স্ট্যাটাসটির স্ক্রিনশট তুলে ধরেছে

চলমান এই হ্যাশট্যাগ প্রচারণার কয়েকটি উদাহরণ এখানে তুলে ধরা হল:

জোয়ান অফ আর্ক তার প্রতিজ্ঞায় অটল ছিলেন, বিশাল এক অগ্নিকুণ্ডের মাঝেও।

” রোজা পার্ক গণ পরিবহনের চড়তে ইচ্ছুক ছিলেন, আমেরিকার বর্ণবাদী উত্তেজনার মাঝেও”।

পূর্ব জার্মান সরকার বার্লিনে একটা দেওয়াল তুলেছিল, আর এই ঘটনায় ভবন নির্মাণে প্রযোজ্য নিতিমালা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল।

স্থানীয় নাগরিকরা নৌকার বিবর্ণ দাড়িওয়ালা নাগরিকের মনোযোগ আকর্ষণ করেছিল, অভূতপূর্ব এক ধ্বংস প্রচেষ্টার মাঝেও।

মুরগীগুলো খামারের মনোযোগ আকর্ষণ করেছিল, পুষ্টি বিষয়ক অনুশীলনের মাঝেও।

কম্পুচিয়ার ক্ষেত্রগুলোকে কম্বোডিয়ার নাগরিকরা আকর্ষণ করেছিল, পলপটের এই অবস্থার মাঝেও

যেদিন লেখাটির সমাপ্তি ঘটে, সেদিন “ইজরায়েল-এর অপারেশন ডিফেন্সিভ এজ” নামক হামলা ১৩তম দিনে পা দিয়েছিল, সে সময় পর্যন্ত এই হামলায় ২৮০ জন নাগরিক নিহত হয়েছিল, যাদের মধ্যে নারী ও শিশুও ছিল, আর সে পর্যন্ত এই ঘটনায় ইজরায়েল-এর একজন নাগরিক নিহত হয়েছিল।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .