বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

অপ্রীতিকর বিশ্বকাপ সত্যে ফিফার ব্রাজিল সদরদপ্তর প্রতিবাদে বিস্ফোরিত

Facade of the luxury Hotel Copacabana Palace in Rio de janeiro, June 30, 2014. Photo by Coletivo Projetaçao on Facebook.

গত ২৯ জুন, ২০১৪ তারিখে ব্রাজিলের অভিজাত কোপাকাবানা প্যালেস হোটেলটির বহির্ভাগের চিত্র। ছবিটি ফেসবুকে শেয়ার করেছেন Coletivo Projetação। 

রিও ডি জেনেরিও'র বিখ্যাত অভিজাত হোটেল কোপাকাবানা প্যালেস। বর্তমানে এটি ব্রাজিলে ফিফার সদর দপ্তর হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। গত ২৯ জুন, ২০১৪ তারিখে এটি চলমান বিশ্বকাপের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের বার্তা অংকন করার একটি ক্যানভাসে পরিণত হয়। ব্রাজিলিয়ানদের উপর এই সর্ববৃহৎ খেলার আসর আয়োজনের ফলাফল সম্পর্কে কিছু বাস্তবতা এবং মূল্যের উপর সক্রিয় কর্মীরা আলোকপাত করেছেন। যেমন, অবকাঠামো নির্মাণের জন্য রাস্তা তৈরি করতে জোরপূর্বক উচ্ছেদ অভিযান চালানো হয়েছে।

কোলেটিভো প্রজেটাকাও হচ্ছে প্রকল্প, প্রক্ষেপণ এবং কাজ এই তিনটি পর্তুগিজ শব্দের একটি সংমিশ্রণ। রাজনৈতিক মত প্রকাশের একটি মাধ্যম হিসাবে পাবলিক জায়গা দখল করার একটি সমষ্টিগত প্রক্রিয়া, যা প্রতিবাদের দায়িত্ব স্বীকার করছে। ব্রাজিল এবং ব্রাজিলের বাইরে অন্যান্য দেশে গত কয়েক মাসে এই যৌথ উদ্যোগটি একই ধরনের বেশ কিছু প্রতিবাদ কর্মসূচী পালন করেছে। তাদের ফেসবুক পাতায় ভিজিট করুন এবং আরও ছবি পেতে প্রজেটাকাও ডট ওআরজি ওয়েবসাইটটি দেখুন। 

The collective projected on the wall some figures of Cup-related evictions in Rio de Janeiro.

রিও ডি জেনেরিওতে বিশ্বকাপ সংক্রান্ত উচ্ছেদের একটি সমষ্টিগত অভিক্ষিপ্ত পরিসংখ্যান।  

"Brazilian investment, Fifa profit". Pictures were shared on Facebook and Twitter under the hashtag #projetaçodacopa

“ব্রাজিল বিনিয়োগ করছে, মুনাফা করছে ফিফা”। ছবিটি #projetaçodacopa হ্যাশটাগের অধীনে ফেসবুক এবং টুইটারে শেয়ার করা হয়েছে। 

The Brazilian flag reads "bread and circus" instead of "order and progress".

ব্রাজিলের এই পতাকাটিতে লেখা আছে, “ক্রম ও অগ্রগতি”র পরিবর্তে “রুটি এবং সার্কাস”। 

Copacabana Palace Hotel is considered South America's premier hotel.

কোপাকাবানা প্যালেস হোটেলটি এখন দক্ষিণ আমেরিকার প্রধান হোটেল হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে।  

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .