বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

কামানে এক সিরিয় নাগরিকের শিল্প কর্ম

এই পোস্টটি পূর্বে অব্যক্ত সিরিয়াতে প্রকাশিত হয়।

Syrian artist Ali Abu al-Fawz decorates a rocket shell in Douma, Damascus. Source: Abu al-Fawz's facebook page.

দামাস্কাসের দুমাতে সিরিয় শিল্পী আলি আবু আল ফয়েজ একটি রকেট শেল অলংকৃত করছেন।  সূত্রঃ শিল্পীর ফেসবুক পাতা। 

কামানে শিল্পকর্ম আঁকা – এটাই ​​দুমা ভিত্তিক শিল্পী আকরাম আবু আল ফয়েজ এর কাজ। তিনি ক্ষেপণাস্ত্র ও রকেট শেল সংগ্রহ করেন এবং সেগুলোকে বিভিন্ন ধরণের শিল্প বস্তু এবং অলঙ্কারে রূপান্তরিত করেন।

শিল্পী আবু আল ফয়েজ সতাঁর সম্প্রদায়ে মোহাম্মদ দুমা হিসেবে পরিচিত। সিরিয়ার সরকারি বাহিনীর সৈন্যরা তাঁর বাড়ি পুড়িয়ে ফেললে তিনি বাড়ি ছাড়তে বাধ্য হন। ৩৫ বছর বয়সী তিন সন্তানের পিতা ফয়েজ বিশ্বাস করেন, যে মাটিতে যুদ্ধ চলছে সেখানে তার এই কাজের গুরুত্বপূর্ণ কোন ভাবেই কম নয়।

“আমরা যে দাসত্তের মাঝে বসবাস করি তা থেকে পরিত্রাণ পেতে অস্ত্রই যথেষ্ট নয়।”, অব্যক্তসিরিয়ার একটি সাক্ষাত্কারে তিনি ব্যাখ্যা করেছেন, “আমাদের স্বাধীনতার জন্য শিল্প, সংস্কৃতি ও সভ্যতার প্রয়োজন।” 

A girl sits on a rocket shell decorate by Abu al-Fawz. Source: the artist's facebook page

আবু আল ফয়েজের অলংকৃত একটি রকেট শেলের উপর একটি বাচ্চা মেয়ে বসে আছে। সূত্রঃ শিল্পীর ফেসবুক পাতা।  

দামেস্কের উপকণ্ঠে অবস্থিত দুমা শহরটি গত মার্চ, ২০১১ সালে জনপ্রিয় বিদ্রোহ শুরুর পর থেকে অধিকাংশ শাস্তির শিকার হয়েছে এবং সেখানকার এলাকাগুলো এখনো প্রাণবন্ত। প্রথমে সেখানে বড় ও শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ হওয়ার পর  ধীরে ধীরে তা একটি খোলা যুদ্ধ এলাকায় পরিণত হয়। এটি তার ক্লান্তিহীন শৈল্পিক ও সৃজনশীল অবদানসমূহের জন্যও পরিচিত। ​​আবু আলী আল বিতার যেমন রকেট এবং বুলেট কেসিং থেকে চুলা, মোটরসাইকেল, বাদ্যযন্ত্র ও চিকিৎসার সরঞ্জাম তৈরি করেছেন, ঠিক তাঁর মতো করে আবু আল ফয়েজ যেন মৃত্যু থেকে জীবন জাগিয়ে তুলেছেন।  

আবু আল ফয়েজ তাঁর কাজ চালিয়ে যেতে অনেক বাঁধা বিপত্তির মুখোমুখি হয়েছেন। এসবের মধ্যে ছিল স্থানচ্যুতি থেকে প্রয়োজনীয় সরঞ্জামের অভাব। তিনি বিশ্বাস করেন, তাঁর প্রচেষ্টার একটি মূল্য রয়েছে এবং বিশ্বাস করেন, এই হস্তনির্মিত শিল্পকর্মগুলো “একদিন সিরিয়ায় মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধের সাক্ষী দেবে।”

Syrian artist Ali Abu al-Fawz works on a rocket shell in Douma, Damascus. Source: the artist's facebook page

দামস্কাসের দুমাতে সিরিয় শিল্পী আলি আবু আল-ফয়েজ রকেট শেলের উপর কাজ করছেন। সূত্রঃ শিল্পীর ফেসবুক পাতা।  

এই পোস্টটি পূর্বে অব্যক্ত সিরিয়াতে প্রকাশিত হয়।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .