বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

জাপানের নাগরিক প্রযুক্তিকে বিকশিত করবে সহযোগিতা মূলক অনুবাদ প্রকল্প

প্রযুক্তির সুবিধা নিয়ে বিভিন্ন সম্প্রদায়ের উন্নতির চেষ্টা করে থাকে নাগরিক প্রযুক্তি উদ্যোগ বা সিভিক টেক ইনিশিয়েটিভ। এই নাগরিক প্রযুক্তি উদ্যোগ সমসাময়িক সময়ে সারা বিশ্ব জুড়ে হঠাৎ করেই আবির্ভূত হয়েছে। জাপানের বিভিন্ন শহরে উদ্ভাবকেরা হ্যাকাথন ধরে রেখেছেন। এর মাধ্যমে জনগনের তথ্য ব্যবহার করা যায়। ফলশ্রুতিতে খুব অল্প সময়ের মাঝে যেকোন সফটওয়্যার বা এ্যাপ্লিকেশন তৈরি করে সম্ভব হয়।

তবে অনেক জাপানির কাছেই “সিভিক” এবং “টেক” শব্দ দুইটি এখনো বিদেশী শব্দ বলেই মনে হয়। তথ্য এবং যোগাযোগ প্রযুক্তি এবং নাগরিক সমাজকে একত্রিত করে সাম্প্রদায়িক ইস্যুগুলোর সমাধান করার কথা কল্পনা করাটা তাদের কাছে একেবারেই সহজ নয়। 

জাপানে কীভাবে নাগরিক প্রযুক্তির একটি বাস্তব উদাহরণের সূচনা করা যায়, সে সম্পর্কে আলোচনা করতে ২০১৩ সালের ডিসেম্বর মাসে স্বেচ্ছাসেবক অনুবাদকেরা টোকিও শহরের শিবুইয়া জেলাতে একত্রিত হয়েছিলেন। তারা “বেয়ন্ড ট্রান্সপারেন্সি” নামে একটি বই খুঁজে পেয়েছেন। আমেরিকার অলাভজনক প্রতিষ্ঠান কোড ফর আমেরিকা বইটি লিখেছে। একটি সৃজনশীল সাধারণ লোকের লাইসেন্সের (সিসি বিওয়াই-এনসি-এসএ-৩.০) অধীনে উন্মুক্ত তথ্যের চারপাশে বিভিন্ন সম্প্রদায় কীভাবে শিখছে তাঁর সম্পর্কে অনেকগুলো প্রবন্ধ সংকলন করা হয়েছে। স্বেচ্ছাসেবক অনুবাদকেরা বইটিকে জাপানিজ ভাষায় অনুবাদ করতে একটি সহযোগীতা মূলক প্রকল্প শুরু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। অংশগ্রহণকারীদের মাঝে ফ্রিল্যান্সার থেকে শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, আইটি কোম্পানিগুলোর কর্মকর্তারাও এতে উপস্থিত ছিলেন। তাদের সবাই অত্যন্ত আগ্রহের সাথে একটি যৌথ অনুবাদের চেষ্টা করতে বেশ উচ্ছলিত ছিলেন।  

হিরোইয়াসু ইচিকাওয়া এই অনুবাদ প্রকল্পটির নেতৃত্ব দিবেন। তিনি সহযোগীতা মূলক অনুবাদের সুবিধা সম্পর্কে তাঁর ব্লগে [জাপানিজ] বলেছেনঃ 

今回日本語化翻訳プロジェクトを始めて思ったことがあります。それは1人では出来ないことも、同じ想いや目的を持った方同志で心地よくコラボレーションが行われた際、「1+1>2」が可能になるかもしれない!ということでした。

অনুবাদ প্রকল্পটি শুরু করার পর আমি কিছু খুঁজে পেয়েছিঃ এমনকি একজন একা এটা অর্জন করতে পারতো না। এটা কেবল তখনই অর্জন করা সম্ভব যখন আপনি একই মানসিকতার কয়েকজনের সাথে কাজ করবেন। একই মানসিকতার বলতে বোঝাচ্ছি, যাদের ধ্যান ধারনা এবং লক্ষ্য একই। এক্ষেত্রে ফলাফল হিসেবে বহুগুণ বেশি পাওয়া যায় এবং “১+১ > ২” পাওয়া সম্ভব হয়।  

এই প্রকল্পতে ট্রান্সফেক্স ব্যবহার করা হয়েছে। এটি একটি মঞ্চ, যেখানে যে কেউ এই অনুবাদ প্রকল্পে অংশ নিতে পারবেন। এমনকি তাদের অবসর সময়ের মাত্র কয়েক মিনিট সময়ের জন্যও তারা এতে অংশ নিতে পারবেন। আরও পরিকল্পনা করা হয়েছে, “জাপানের জন্য কোড” এটির সম্পাদকীয় তত্ত্বাবধায়কের কাজ করবে। “জাপানের জন্য কোড” জাপানে নাগরিক প্রযুক্তির বিস্তার করতে কাজ করছে। বর্তমানে শতকরা ২৫ ভাগ প্রবন্ধ ইতোমধ্যে অনলাইনে [জাপানিজ] পাওয়া যাচ্ছে। প্রবন্ধগুলো জাপানিজ ভাষাতেই পড়া যাবে।

আগামী বসন্তের মধ্যে প্রকল্পটি সম্পন্ন করা তাদের লক্ষ্য। একবার এটি অনুবাদ করা হয়ে গেলে, এটি জাপানে আরও নাগরিক প্রযুক্তির উদ্যোগ নিতে সাহায্য করবে। আশা করা যায় ভবিষ্যতে এই নাগরিক প্রযুক্তির উদ্যোগগুলো ইংরেজী ভাষাভাষীদের দুনিয়াকে আমাদের মুখোমুখি অবস্থান করবে। 

এই থাম্বনেইলটি বিয়ন্ড ট্রান্সপারেন্সি প্রকল্পের পেজের একটি স্ক্রিনশট।

2 টি মন্তব্য

আলোচনায় যোগ দিন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .