বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

মালয়েশিয়ার রোগীদের কাঁধে অতিরিক্ত চিকিৎসা খরচ

A dentist in Johor Baharu. Photo from Flickr page of Emran Kassim (CC License)

যোহর বাহারু'র একজন দাঁতের ডাক্তার। ইমরান কাসিমের ফ্লিকার পেজ থেকে ছবি নেয়া হয়েছে। (সিসি লাইসেন্স)

মালয়েশীয় সরকার চিকিৎসা খরচ ১৪% বৃদ্ধি করেছে। অনেকে মনে করছেন, চিকিৎসা খরচ বেড়ে যাওয়ায় দরিদ্র মানুষ আরো বেশি ক্ষতির সম্মুখীন হবেন। এমনিতে খাদ্য এবং জ্বালানি তেলের দাম বেড়ে যাওয়ার তারা বেশ চাপে আছেন।

গত বছরের ডিসেম্বর মাসে সরকার কনসালটেশন ফিস এবং চিকিৎসা সংক্রান্ত খরচ বৃদ্ধির ব্যাপারটি গেজেট আকারে প্রকাশের সিদ্ধান্ত নেয়। তবে মাত্র কয়েকদিন আগে এটি নিয়ে পত্রিকায় প্রতিবেদন প্রকাশ হলে সবার নজরে আসে।

সরকার দাবি করেছে, চিকিৎসকরা তাদের ফিস ৩০% বৃদ্ধির আবেদন করেছিলেন। তবে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ১৪% বৃদ্ধির অনুমোদন দেয়। স্বাস্থ্যমন্ত্রী দাতুক সেরি ডা: এস সুব্রামানিয়াম জনগণকে আশ্বস্ত করেছেন, সরকারের এই সিদ্ধান্তের ফলে চিকিৎসকদের কনসালটেশন ফিস বেশি নেয়াটা থামানো যাবে:

এটিই (চিকিৎসা খরচ) সর্বোচ্চ রেট। বেসরকারি চিকিৎসা কেন্দ্রগুলোর অতিরিক্ত চার্জ নেয়া থেকে আমরা জনগণকে রক্ষা করেছি।

মালয়েশিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন (এমএমএ) জানিয়েছে, ১২ বছর আগে সর্বশেষ চিকিৎসা ফিস বাড়ানো হয়েছিল:

২০০২ সাল থেকে আমরা মেডিক্যাল ফিস বৃদ্ধির জন্য অপেক্ষা করে আসছি। এর মধ্যে ঔষধ, ল্যাব ফিস, জ্বালানি তেল, চিনি, মজুরি, টোল, বাস ভাড়া, গ্রোসারি জিনিস, শাকসবজিসহ সবকিছুর দাম বেড়েছে। কেবল বাড়েনি ডাক্তারদের ফিস।

ঘটনা হচ্ছে, দিন শেষে আমরা (ডাক্তাররা) ছাই ফেলতে ভাঙ্গা কুলো। একজন জেনারেল প্র্যাকটিশনার ক্লিনিক কিংবা চেইন ক্লিনিক অথবা বিজনেস কর্পোরেশনের সামনে বন্ধ হওয়ার আগ পর্যন্ত ৫০০ এর বেশি মানুষ দাঁড়িয়ে থাকেন।

এমএমএ সভাপতি ডা: এনকেএস থার্মাসীলান পরিষ্কার করে বলেছেন, হাসপাতালের মোট খরচের একটি ক্ষুদ্র অংশ ডাক্তারদের ফি বাবদ দেয়া হয়:

ডাক্তারদের ফিস যখন বেঁধে দেয়া হলো, সেসময়ে হাসপাতালের বেড ভাড়া, রুম ভাড়া, ওভারটাইম খরচ, ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটের খরচ বেঁধে দেয়া হয় নি…

তাই একজন রোগী যখন বড়ো অংকের বিল পাবেন, তখন ডাক্তারের বিরুদ্ধে ফিস বেশির নেয়ার অভিযোগ আনবেন। অথচ সেটা মোট খরচের খুব ক্ষুদ্র একটি অংশ।

ওয়াংশ মাজুর সংসদ সদস্য ডা: ট্যান কি নোয়াং চিকিৎসা খরচ বৃদ্ধির ফলে জনগণের ওপর চাপ ফেলবে বলে মনে করেন:

একজন সাবেক চিকিৎসা কর্মী হিসেবে বলতে পারি, এই ধরনের অস্বাভাবিক বৃদ্ধি কাম্য ছিল না… ইতোমধ্যেই সব ধরনের জিনিসের দাম বৃদ্ধির কারণে জনগণের জীবন জেরবার হয়ে গেছে।

এদিকে মালয়েশিয়ার ভোক্তা সংগঠন ফেডারেশন অব মালয়েশিয়ান কনজুমার অ্যাসোসিয়েশন দেশে উন্নত চিকিৎসা সেবা দেয়ার দাবি জানিয়েছে:

সবার ধারণা বেসরকারি হাসপাতালে ভালো সেবা পাওয়া যায়। তবে সেখানে ডাক্তারদের নিম্নমানের চিকিৎসা সেবা, চিকিৎসার কারণ ব্যাখ্যা দিতে না পারা, অহেতুক পরীক্ষা ও ভুল ঔষধ দিয়ে বিল বৃদ্ধির হাজারো অভিযোগ রয়েছে।

তাই ফিস বৃদ্ধির সাথে সাথে তাদের সেবার মান কীভাবে বাড়বে সেটাও যেন জানিয়ে দেন।

বিকল্প ধারার সংবাদ সংস্থা মালয়েশিয়াকিনি এই ইস্যুতে কয়েকজনের মন্তব্য গুরুত্ব দিয়ে ছেপেছে:

ইশাইয়াহ: আমরা কেউ-ই অসুস্থ হয়ে মরতে চাই না। তবে মেডিক্যাল বিল দেখে আমাদের হার্ট অ্যাটাকের মতো অবস্থা হয়।

তেহতারিক: আইনজীবী, হিসাবরক্ষক, ইঞ্জিনিয়ার, আইটি বিশেষজ্ঞ, ব্যবস্থাপক, ব্যাংকারসহ সব ধরনের পেশার জন্যই ফিস আছে। গত ১২ বছরে এদের সবার ফিস ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। তাহলে ডাক্তারদের ফিস ১৪ থেকে ১৮ শতাংশ বাড়লে কী সমস্যা?

সবাই আশা করেন, চিকিৎসা খরচ কোথায় বাড়ছে, সেটা স্বচ্ছতার সাথে হচ্ছে কি না তা নিয়ে বিতর্কের সাথে সাথে দরিদ্র মানুষদের জন্য সামাজিক সেবা দিতে রাষ্ট্রের ব্যর্থতার নজিরও সরকারের সমালোচকরা তুলে ধরে সেটার সমালোচনা করবেন।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .