বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

নিজ বাড়িতে খুন হলেন শ্রীলংকার প্রভাবশালী সাংবাদিক

The Home of murdered former Sri Lankan Agence France-Presse (AFP) journalist Mel Gunasekera is probed by police investigators at the capital Colombo on February 2, 2014. Gunasekera was stabbed to death after a break-in at her family's home. Image by Tharaka Basnayaka. Copyright Demotix (2/2/2014)

শ্রীলংকার এএফপি'র সাংবাদিক মেল গুনাসেকেরা'র বাড়িতে তদন্ত কার্যক্রম পরিচালনা করছে পুলিশ। গত ২ ফেব্রুয়ারি কলম্বোর নিজ বাড়িতে তিনি খুন হন। আততায়ীরা তালা ভেঙ্গে বাড়িতে ঢুকে তাকে খুন করে। ছবি তুলেছেন থারাকা বাসনায়েকে। স্বত্ত্ব: ডেমোটিক্স (২/২/২০১৪)

শ্রীলংকার সবচে’ প্রভাবশালী সাংবাদিকদের একজন মেলিসিয়া “মেল” গুনাসেকেরা। তিনি গত ২ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ তারিখে কলম্বোর বাত্তারামুল্লা এলাকায় অবস্থিত নিজ বাড়িতে খুন হয়েছেন। তিনি আন্তর্জাতিক রেটিং এজেন্সি ফিচের শ্রীলঙ্কা শাখার অ্যাসিস্ট্যান্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং অর্থনীতি ও বাণিজ্য বিষয়ক অনলাইন সংবাদ লংকা বিজনেস অনলাইনের প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ছিলেন। তিনি ফরাসি সংবাদ সংস্থা এজেন্সি ফ্রান্স-প্রেস (এএফপি) এর সাবেক সাংবাদিক ছিলেন। তাছাড়া ফ্রিল্যান্স সাংবাদিক হিসেবেও তিনি কাজ করেছেন।

মিডিয়ায় সহকর্মীদের কাছে গুনাসেকেরা খুব জনপ্রিয় ছিলেন বলে ব্লগার ডিবিএস জয়রাজ একটি লেখায় উল্লেখ করেছেন। হত্যার অভিযোগে ইতোমধ্যে একজন নির্মাণ শ্রমিককে আটক করা হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে মনে করে হচ্ছে, সিধেঁল চোর হত্যাকাণ্ড ঘটিয়ে থাকতে পারে। তবে গুনাসেকেরার ভক্ত এবং সহকর্মীরা মনে করছেন, অন্য কোনো কারণে তাকে খুন করা হয়ে থাকতে পারে।

নালাকা গুনাবর্ধনে তার গ্রাউন্ডভিউজ ব্লগে “মেল গুনাসেকেরা'র আসল খুনি কে?” তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন:

পুলিশের ভাষ্য মতে, খুনি মাত্র ১২০০ শ্রীলংকান মুদ্রা (১০ ইউএস ডলার) এবং তার মোবাইল ফোন চুরি করেছে। অন্য কোনো মোটিভ খুঁজে পাওয়া যায়নি।

যেকোনো মৃত্যুই বেদনাদায়ক। তবে আমরা কি সামান্য কিছু টাকা এবং ধাতব একটি যন্ত্রের জন্য কাউকে খুন করতে পারি?

গুনাসেকেরার খুনের ঘটনা শ্রীলঙ্কায় ব্যাপক আলোড়ন তোলে। প্রশ্ন উঠে একটি দেশে কীভাবে এমন নৃশংস হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটতে পারে! পলিসি উদ্যোক্তা রোহান সামারাজিভা লংকা বিজনেস অনলাইনে নৃশংসতার ব্যাপারটি উল্লেখ করেছেন:

তিনি আমার লেখার ভুয়সী প্রশংসা করতেন। কিন্তু আমি করতাম না। তরুণ বয়সের আগেই কারো মারা যাওয়া উচিত নয়। আমাদের এমন একটি দেশ গড়তে হবে, যেখানে তরুণ সাংবাদিকরা কোনোরকমের ভয় ছাড়াই বাসে উঠতে পারে। রবিবার সকালে নিজ বাড়িতে খুন হওয়া ছাড়াই কাটাতে পারে। যুদ্ধ আমাদের নৃশংসতার শিক্ষা দেয়। খুনের বদলে কিছুই অর্জিত হয় না।

সহকর্মী সাংবাদিকরা টুইটারে তার আত্মার প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন:

মেল গুনাসেকেরা: আপনার সেই সদ্য হাস্যময়ী মুখ আর মিটিমিটি চোখ আর কখনোই দেখবো না। শুভবিদায় হে আমার সাহসী প্রাণবন্ত বন্ধু।

শ্রীলংকার সাংবাদিক মেল গুনাসেকেরার খুনের সংবাদ শুনে খুব খারাপ লাগছে। তার পরিবার এবং বন্ধুদের জন্য আমার চিন্তা হচ্ছে।

সহকর্মী এবং শুভার্থীরা তাকে সবসময় মনে রাখবে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .