বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

মার্কিন নিষেধাজ্ঞায় বন্ধ হলো সিরিয়া, ইরান এবং কিউবায় কোর্সেরা অনলাইন কোর্স

মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কারণে সিরিয়া, ইরান এবং কিউবার শিক্ষার্থীরা অনলাইনে শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনাকারী প্রতিষ্ঠান কোর্সেরা‘তে ঢুকতে পারছেন না। উল্লেখিত দেশগুলোর ছাত্ররা তাদের কোর্সে প্রবেশ করতে গিয়ে এই বার্তা পেয়ে বিস্মিত হয়েছেন:

“আমাদের সিস্টেম দেখাচ্ছে, আপনি এমন একটি আইপি ঠিকানা থেকে আমাদের সাইটে ঢুকতে এসেছেন, যে দেশে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র অর্থনৈতিক এবং বাণিজ্যিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। কোর্সেরা মার্কিন রপ্তানি নিয়ন্ত্রণ মেনে চলার কারণে আমরা আপনাকে এই সাইটে ঢোকার অনুমতি দিচ্ছি না।”

এ ঘটনায় ইরানি শিক্ষার্থী নাভিদ সুলতানি তাত্ক্ষণিক ভাবে ক্ষোভ প্রকাশ করে কোর্সেরার ফেসবুক পাতায় লিখেছেন:

2014-01-29 01_41_59-Navid Soltani - Photos of Coursera

ব্লগার লায়লা নাচাওয়াতি তার অনুভূতি শেয়ার করেছেন:

কোর্সেরা যদি শিক্ষার মাধ্যমে জীবন বদলে দেয়ার মিশনে বিশ্বাস করে, তাহলে সিরিয়ায় কোর্সেরা সাইট খুলে দেয়া উচিত।

সিরিয়ার ব্লগার এবং ডেভলপার আনাস মারায়ি তার ব্লগে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার সমালোচনা করেছেন:

وبين مطرقة النظام السوري الذي يحجب مئات مواقع الإنترنت، وسندان “العقوبات الأمريكية” يزداد الخناق على الشباب السوري الراغب بالتعلّم، أو بالأحرى من تبقى من الشباب السوري القادر على الوصول إلى ما تبقى من الإنترنت في سوريا.

“শাসকেরা সেন্সরশিপ আরোপ করলে কয়েকশ’ ওয়েবসাইট বন্ধ হয়ে যায়। এখন মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কারণেও একই প্রভাব পড়েছে। দেশের তরুণদের পক্ষে অনলাইনের মাধ্যমে পড়ালেখা চালিয়ে যাওয়া অসম্ভব হয়ে পড়েছে।”

ওয়ামদার প্রধান সম্পাদক নিনা কার্লে তার বক্তব্যে অনেক বেশি বাস্তববাদী। এজন্য তিনি জিজ্ঞেস করেছেন, এটা অবশ্যম্ভাবী ছিল কি না:

এটা কি অবশ্যম্ভাবী ছিল? এখন দরকার নতুন ধরনের সমাধান। অনলাইন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কোর্সেরা সিরিয়া এবং ইরানের শিক্ষার্থীদের জন্য ব্লক করা হয়েছে।

যদিও রলফ স্ট্রম অলসেন নামের কোর্সেরার একজন অধ্যাপক নন-আমেরিকান শিক্ষার্থীরা কেন ক্ষতিগ্রস্ত তা বুঝতে পারছেন না:

হ্যাঁ, ‘সবার জন্য শিক্ষা'। খুব দু:খজনক, তাই নয় কী?

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .