বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ককেশাস নেটওয়ার্ক: গ্রোজনী ব্লগার, আলী সুলেমানভ

Ali Suleymanov, 1 July 2013, photo by Sergey Ponomarev.

১ জুলাই, ২০১৩-এ, আলী সুলেমানভ, ছবি সের্গেই পনোমারেভ

এই প্রবন্ধটি উত্তর ককেশাসের ব্লগস্ফেয়ারের উপর চালানো রুনেটইকোর বিস্তৃত গবেষণা কাজের একটি অংশ। সম্পূর্ণ রিপোর্ট এবং ব্যক্তিগত কাহিনী সম্বন্ধে জানার জন্য দি ককেশাস নেটওয়ার্ক পাতায় প্রবেশ করুন।

চেচনিয়ার আদিবাসী ২৮ বছরের আলী সুলেমানভ, একজন “আর্কিডিজাইনার,” যে তার যুবা বয়সের বেশীরভাগ সময় মস্কোয় কাটিয়েছে, সেখানে সে এক্সটেরিয়র ডিজাইনে পড়ালেখা করে এবং উক্ত পেশায় যোগ দেয়। মস্কোতে সে শহুরে গতিশীল জীবনে যাপন করে, প্রদর্শনী,সংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে যোগদান করে, এবং পায়ে হেটে মস্কো আর গণপরিবহনে এর বাইরের এলাকা ঘুরে বেড়ায়। যখন সুলেমানভ গ্রোজনীতে ফিরে আসে, তখন সেখানে সে এক ভিন্ন গতিধারার জীবন আবিস্কার করে, যা খুব সমান্য বৈচিত্র্যময়, মস্কোয় থাকার সময় যা তার মধ্যে জন্ম লাভ করে। তুলনা করলে বলা যায় গ্রোজনীর জীবনে রয়েছে অনেক বেশী মফস্বলের ছোঁয়া আর সুলেমান শহরের প্রান্তে বাস করে, এমনকি তার প্রতিদিনের যাত্রার বাস নিয়ে তাকে জুয়া খেলতে হয় যে তাকে হয়ত পরিভ্রমণের সময় মস্কোর চারপাশ ঘুরিয়ে আনতে পারত। চেচনিয়াতে দ্বিতীয়বারের মত বসবাস শুরু করার প্রচেষ্টায় (প্রথম প্রচেষ্টার এক বছরের মাথায় তাকে আবার মস্কোয় ফিরে আসতে হয়), গ্রোজনীকে আবিস্কার করার চিহ্ন রাখা এবং সেই সমস্ত জিনিসের তালিকা করা এই আশায় যে একদিন শহরে তা খুঁজে পাওয়া যাবে, তার জন্য সে ব্লগ লেখা শুরু করে। রুশ ভাষায় লেখা তার ব্লগ স্বাভাবিক কিন্তু তথ্য প্রদানের ঢঙ্গে লেখা।

সুলেয়মানভের নিজের ভাষায়,তার ব্লগ প্রাথমিকভাবে একজন ডিজাইনারে দৃষ্টিভঙ্গিতে শহর সম্বন্ধে বর্ণনা দিয়ে :

В первую очередь, мой блог о Грозном. О том что с ним происходит в наши дни. Причем я рассматриваю именно те стороны, которые интересны мне с профессиональной или любительской точек зрения — архитектура, дизайн, урбанистика, история. Мне интересно находить и показывать то, что многие не видят, на что не обращают внимание. Особенно интересно находить следы довоенного города или какие-нибудь «закулисы».

যে কোন ক্ষেত্রে, আমার ব্লগ গ্রোজনী নিয়ে। এটি শহরে আজ কি ঘটল তা নিয়ে। এর ব্যতিক্রম হচ্ছে যে আমি বিশেষভাবে এক পেশাদার দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে শহরকে দেখছি। আমি স্থাপত্য, ডিজাইন, গ্রামীণ জীবনযাত্রা, এবং ইতিহাসের প্রতি আগ্রহী। আমি বিশেষভাবে সেই সমস্ত বিষয় খুঁজে পেতে এবং প্রদর্শনে আগ্রহী, যা বেশীর ভাগ মানুষ দেখে না- যা তারা খেয়াল করে না। যুদ্ধপূর্ব শহরের অবশিষ্ট অংশ খুঁজে পাওয়া কিংবা “আড়ালে থাকা” কোন একটা অংশ আবিস্কার সত্যিকারের কৌতূহলজনক বিষয়।

হার্ড ইঙ্গুশ এবং সাভাতলেনা আনোখিনার মত এই অঞ্চলের ব্লগারের মত লাইফ জার্নালকে ব্লগিং প্লাটফর্ম হিসেবে বেছে নেওয়া সিদ্ধান্ত, সুলেমানভ-এর বেছে নেওয়া মধ্যে ঘটেনি, যদিও তা অনাবশ্যক। যেহেতু যে সমস্ত ব্লগার তাকে কৌতূহলী করেছে তাদের সকলে ইতোমধ্যে এলজে [লাইভ জার্নাল]-তে রয়েছে। সে স্বাভাবিক ভাবে ওই পরিবেশের এক অংশ হতে চেয়েছে। সুলেমানভ তার পাঠকদের বেশীরভাগকে ব্যক্তিগতভাবে চেনে না, কিন্তু সে বিশ্বাস করে যে, তার মত, তার পাঠকেরাও মূলত সংস্কৃতিক পেশায় রয়েছে। তিনি বলেন, ব্লগিং-এর মূল লাভ হচ্ছে (সর্বোপরি, যাকে তিনি বর্ণনা করেন ইতিবাচক অভিজ্ঞতা বলে) গ্রোজনীতে টিকে থাকা তার মত একই মানসিকতার লোকদের আবিস্কার করা। সুলেমানভ-এর জন্য, মস্কোর অভিজ্ঞতা থেকে বিদায় নেবার ফলে তার ভেতর যে শূন্যতা ব্লগিং তা পূরণ করতে তাকে সাহায্য করছে:

Деятельность в интернете определенно помогла. Иногда даже не прямо, а косвенно. Я стал озвучивать свои интересы, стремиться найти что-то новое (за пределами интернета) и начал встречать очень интересных людей. Причем я знакомлюсь не с читателями, а наоборот — с новыми людьми, которые уже после знакомства узнают о моем блоге и многим это становится интересно.

আমার অনলাইন কার্যক্রম নিঃসন্দেহে আমাকে সাহায্য করে- কখনো প্রত্যক্ষভাবে না হলেও, পরোক্ষভাবে। আমি আমার আগ্রহকে তুলে ধরতে শুরু করলাম এবং নতুন কিছু খোঁজার প্রচেষ্টা শুরু করলাম (ইন্টারনেটের বাইরে), আর আমি কিছু খুবই মজার মানুষের সাথে সাক্ষাৎ করা শুরু করলাম, আমি আমার পাঠকদের সাথে দেখা করি না-ঠিক তার বিপরীত কাজ করি:আমি নতুন ব্যক্তির সাথে দেখা করি, যে কেবল আমার ব্লগ সম্বন্ধে জানা শুরু করেছে ঠিক তার পরে, এবং তাদের অনেকে এতে আগ্রহ দেখাত।

যখন সুলেমানভকে সেন্সরশিপের বিষয়ে জিজ্ঞেস করা হল, তখন সে জানায় যে সে এই ধরনের কোন ঘটনার মুখোমুখি হয়নি, সে ব্যাখ্যা করে যে তার অনলাইনের কাজে “সমস্যাজনক বিষয়ে” এড়িয়ে চলে। তাকে সেন্সরশিপের হুমকির বিষয়ে জিজ্ঞেস করা হলে, সে বলে:

На личном опыте я с подобным не сталкивался. Стараюсь не выходить за рамки, после которых могут начаться проблемы.

ব্যক্তিগত ভাবে, আমি এ ধরনের কোন অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হইনি। যা হয়ত সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে, সে সব নিয়ে কাজ করার চেষ্টা করিনি।

সুলেমানভ একই সাথে ব্যাখ্যা করে, যে সে সংবেদনশীল সৃষ্টি করে এবং স্থানীয় ক্ষমতাশালীদের স্বার্থে আঘাত তৈরীর ভয়ে সে বিশেষ বিষয় এড়িয়ে চলে :

Меня интересуют различные темы, связанные с благоустройством города, системой общественного транспорта, работой коммунальных служб и другие. Я понимаю, что любая серьезная критика этих направлений будет так или иначе направлена против конкретных служб, организаций или должностных лиц. Как правило, это связано с нецелевым расходованием средств или ресурсов. Подобных тем я избегаю.

আমি নগর পরিকল্পনা এবং রক্ষণাবেক্ষণ, গণপরিবহন, জন-উপযোগমূলক কাজ এবং এ রকম আরো অনেক বিষয়ে কৌতূহলী। আমি উপলব্ধি করি যে এই সমস্ত ক্ষেত্রে কোন গুরুত্বপূর্ণ সমালোচনা কোনভাবে অথবা সরাসরি সুদৃঢ় প্রতিষ্ঠান, সংগঠন অথবা কর্মকর্তার বিপক্ষে যাবে। সাধারণত এই বিষয়ে উদ্বেগ হচ্ছে তা তহবিল কিংবা সম্পদের বিষয়ে ভুল ব্যাখ্যা দিতে পারে। আমি এই ধরনের বিষয় এড়িয়ে চলি।

এই প্রবন্ধটি উত্তর ককেশাসের ব্লগস্ফেয়ারের উপর চালানো রুনেটইকোর বিস্তৃত গবেষণা কাজের একটি অংশ। সম্পূর্ণ রিপোর্ট এবং ব্যক্তিগত কাহিনী সম্বন্ধে জানার জন্য দি ককেশাস নেটওয়ার্ক পাতায় প্রবেশ করুন।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .