বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

জাস্টিন বিবারের দেয়ালচিত্রের প্রতিবাদ জানালো কলম্বিয়ার দেয়ালচিত্র শিল্পীরা

Photo shared by Justin Bieber on Instagram.

ইনস্টাগ্রামে জাস্টিন বিবারের শেয়ার করা ছবি।

[উল্লেখ ব্যতীত পোস্টে সংযুক্ত সব লিংকই স্প্যানিশ ভাষার।]

পুলিশ প্রহরায় কানাডিয়ান গায়ক জাস্টিন বিবারের গ্রাফিতি লেখার বিরুদ্ধে শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ করেছে কয়েক শ’ দেয়ালচিত্র (গ্রাফিটি) শিল্পী। বিবার লাতিন আমেরিকায় কনসার্ট করতে এসে বোগোতার টুয়েন্টি সিক্স অ্যাভিনিউয়ে এই দেয়ালচিত্র একেছেন। যদিও ৭৫ ধারা বোগোতো শহরের মধ্যে দেয়ালচিত্র আঁকা নিষিদ্ধ করেছে। প্রতিবাদকারীরা প্রতিবাদের পাশাপাশি দেয়ালচিত্র শিল্পী দিয়াগো ফিলিপ বেচেরাকেও স্মরণ করেছেন। ২০১১ সালের ১৯ আগস্টে পুলিশের হাতে খুন হন তিনি।

“ঘটনাটি ঘটেছিল অক্টোবরের ২৯ তারিখ রাতে। তার পাহারায় চার জন দেহরক্ষী ছাড়াও এক গাড়ি পুলিশ ছিল। লাতিন আমেরিকায় এল ক্যামপিন কনসার্ট করতে এসে স্প্রে হাতে বিবার দেয়ালচিত্র লিখেন। সাংবাদিক আদ্রিয়ানা মেজিয়া লাস টু অরিলাস ওয়েবসাইটে ওই রাতে কী ঘটেছিল সেটা লিখেছেন:

Cuarenta metros de muro, en la 26, fueron justo lo que necesitaba para autografiar la ciudad: Justin Bieber. ¡Vaya arte! ¡Vaya intervención! ¡Vaya mensaje! ¡Vaya ego! Y vaya oso el de la Policía que no se atrevió a impedir que el muchacho caprichoso fungiera de pintor de ocasión mientras lograba conciliar el sueño. Menos mal lo protegieron, no fuera que algún patrullero despistado en asuntos de farándula lo hubiera tratado como a cualquier grafitero de vecino: de muy malas maneras, para no entrar en detalles. Y ahí sí, Bogotá hubiera hecho correr tinta en la prensa internacional.

টুয়েন্টি সিক্স অ্যাভিনিউয়ের সেই দেয়াল লম্বায় ৪০ মিটার। শহরবাসীকে নিজের অটোগ্রাফ দিতে বিবার একেই বেছে নেন। আহ, কী চমৎকার শিল্প! কী চমৎকার উদ্ভাবন! কী অসাধারণ বার্তা! কী ভয়াবহ রকমের অহংকার! পুলিশ একজন বখে যাওয়া তরুণের কয়েক মুহূর্তের গ্রাফিতি শিল্পী হওয়াকে থামিয়ে দিতে পারলো না, সত্যিই লজ্জার বিষয়! খুব ভালো যে সে নিরাপত্তা পেয়েছিল। পুলিশ তাকে সেলিব্রেটির মর্যাদাই দিয়েছে। বাড়ির পাশের গ্রাফিতি শিল্পীদের প্রতি যেমন করে, সে রকম কিছু করেনি। আমি নিশ্চিত আন্তর্জাতিক মিডিয়ায় বোগোতা শিরোনাম হয়ে যাবে।

বোগোতা পুলিশের দ্বৈত আচরণ নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকে প্রশ্ন তুলেছেন। জুয়ান নাভিদাদ জানতে চেয়েছেন:

দেয়ালচিত্র লেখার সময়ে পুলিশ যদি পিছন থেকে জাস্টিন বিবারকে গুলি করতো, তাহলে কী ঘটতো?

শিল্পীদের অধিকার রক্ষা করতে গ্রাফিতি শিল্পীরা একদিনের দেয়ালচিত্র আঁকার কর্মসূচী দেন। এই কর্মসূচীর আওতায় দেশের সবগুলো শহরে দেয়ালচিত্র এঁকে প্রতিবাদ করা হয়। ফেসবুক ব্যবহারকারী আলদো সিভিকো বোগোতা শহরের একটি ছবি শেয়ার করেন:  

চমৎকার! বোগোতার একটি দেয়ালে ১০৯ জন শিল্পী দেয়ালচিত্র আঁকলেন।@justinbieber @scooterbraun @juanes

গ্রাফিতি শিল্পীরা এই ঘটনার ওপর কোনো কলংকের দাগ লাগানোর সুযোগ দিতে চান না। আইয়ারা ফ্যামিলি ফাউন্ডেশনের পরিচালক, হিপ হপ গায়ক ডন পোপো এল এসপেক্টাডোর পত্রিকায় লিখেছেন:

El sentimiento de injusticia, de indignación, de rabia, se había transformado a medida que decantábamos las emociones, “la pelea no es contra Justin, ni contra la policía, lo que se genero fue una oportunidad para cambiar el estigma de vándalos y criminales sobre los graffiteros” “Justin quebró el florero de Llorente para nuestra revolución”… dijimos:

আমাদের আবেগের প্রবল স্রোত অবিচার, ঘৃণা, ক্রোধে রূপান্তরিত হয়ে গেছে। জাস্টিনের বিরুদ্ধে আমাদের যুদ্ধ নয়, পুলিশের বিরুদ্ধেও আমাদের লড়াই নয়। দেয়ালচিত্র শিল্পীদের অপরাধী ভাবার যে ব্যাপার, তা পরিবর্তনের সুযোগ ছিল এটা। আমরা বলছি, জাস্টিন আমাদের বিপ্লবের ঐতিহাসিক আইন ভেঙ্গেছেন…।

পুলিশের হাতে যে দেয়ালচিত্র শিল্পী খুন হয়েছেন, তার বাবা গুস্তাভ ট্রেজোস আরো স্বাধীনতা চেয়েছেন, যাতে তরুণরা মুক্ত চিত্তে তাদের শিল্পের প্রকাশ ঘটাতে পারে। শহরের দেয়ালচিত্র শিল্পীদের বিরুদ্ধে নিয়মিতভাবে ক্ষমতার অপব্যবহার করা হচ্ছে। তাদের ওপর নজরদারি করা হচ্ছে, সিএআইয়ের অধীনে তাদের ধরে নেয়া হচ্ছে, তাদের শরীর রং করে দেয়া হচ্ছে, তাদের মারা হচ্ছে, এমনকি আমার ছেলের মতো অনেককে আবার খুন করাও হচ্ছে।

তবে ভক্তরা সোশ্যাল নেটওয়ার্কে জাস্টিন বিবারের পক্ষ নিয়ে কথা বলছেন:

[জাস্টিন বিদায়বেলায় আমাদের বোগোতাবাসীদের শুধুমাত্র একটি উপহার দিতে চেয়েছিল] আপনার কোনো অধিকার নেই দেয়ালচিত্র মুছে ফেলার। গ্রাফিতি আপনাকে গুলি কিংবা অন্যকিছু করেছে কী?

টুইটার ব্যবহারকারী জ্যাক'স ব্রোকেন হার্ট গায়কের প্রতি সম্মান জানিয়ে লিখেছেন:

আপনি পছন্দ করুন বা নাই করুন, জাস্টিন বিবার কলম্বিয়ায় বিপ্লবী দেয়ালচিত্র এঁকেছেন। অবিশ্বাস্য।

ইতোমধ্যে বোগোতার টুয়েন্টি সিক্স অ্যাভিনিউতে ৭০০টির বেশি দেয়ালচিত্র আঁকা হয়েছে। দেয়ালচিত্র শিল্পীরা দৃঢ়তার সাথে বলছেন, তাদের শিল্প ধ্বংসকারী নয়। আর দিয়াগো ফিলিপ বেচেরা'র বাবা চাইছেন সন্তান হত্যার বিচার

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .