বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

আশানুরূপ নতুন তেল প্রাপ্তি এবং বেনিনে উদ্বেগ

বেনিন সরকার ২৪ অক্টোবর তারিখে সেমে-পোজি অঞ্চলে তেলের খনি আবিষ্কারের ঘোষণা দিয়েছে। জ্বালানী ও তেল উত্তোলন মন্ত্রী বারথেলেমি কাসা [ফ্রেঞ্চ] এই ঘোষণাটি দিয়েছেনঃ

Quelques 87 millions de barils du pétrole sont disponibles sur le bloc 1 du champ pétrolifère de Sèmè-Podji et feront l'objet d'une exploitation sur quatorze ans, à raison de 7500 barils par jour  à compter de la date d'exploitation

সেমে-পোজি তেল ক্ষেত্রের ১ নম্বর ব্লক থেকে প্রায় ৮৭ মিলিয়ন ব্যারেল তেল উত্তোলন করা যাবে। আশা করা হচ্ছে, উত্তোলন শুরু করার তারিখ হতে আগামী ১৪ বছর ধরে প্রতি দিন ৭,৫০০ ব্যারেল তেল উত্তোলন সম্ভব হবে।

Le Ministre Barthelemy Kassa via nouvelles mutations (avec leur permission)

“নৌভিলেস মিউটাশন” ওয়েবসাইটের মাধ্যমে মন্ত্রী বারথেলেমি কাসা। অনুমতি নিয়ে ব্যবহৃত।   

ধারণা করা হচ্ছে, নাইজেরিয়ার সাউথ আটলান্টিক পেট্রোলিয়াম (সাপেট্র) কোম্পানির সাথে উৎপাদন ভাগাভাগির চুক্তি নিয়ে আলোচনা চলবে।

যাইহোক, বেনিনে কেউ কেউ এই ঘটনার সত্যতা সম্পর্কে সংশয় প্রকাশ করেছে এবং এই ঘোষণাটি নিয়ে নানারকম প্রশ্ন তুলছে। নোউভেলে ট্রিবিউন [ফ্রেঞ্চ] ওয়েবসাইটটিতে সাংবাদিক মারসেল জোউমেনোউ কিছু নির্দিস্ট অসঙ্গতি তুলে ধরেছেনঃ

Selon des sources proches du dossier, la quantité trouvée n’est pas pour autant importante, et n’est qu’un résidu de ce que le Bénin a exploité dans les années 70 et 80, par Saga Petroleum.

Les 12.000 milliards de recettes annoncées, reviennent-ils au Bénin uniquement ? Combien gagne Sapetro dans cette opération.

এই প্রকল্পের কাছাকাছি থাকা সুত্র অনুযায়ী, খুঁজে পাওয়া তেলের পরিমান খুব বেশী নয়। সাগা পেট্রলিয়ামের মাধ্যমে ১৯৭০ এবং ১৯৮০ দশকে বেনিন যে পরিমান তেল উত্তোলন করেছিল তার শুধুমাত্র কিছু অবশিষ্টাংশ সেখানে রয়েছে।

১২ বিলিয়নের এই রাজস্ব কি একমাত্র বেনিনের জন্য ঘোষণা করা হবে ? এই পরিকল্পিত কাজের বেলায় সাপেট্র কতো উপার্জন করবে?

এমনকি বেনিনে সংসদের কয়েকজন নির্দিষ্ট সদস্যও এই নতুন তেল খনির ব্যবস্থাপনার বিষয়ে দেশটির সাম্প্রতিক প্রেসিডেন্টকে বিশ্বাস করতে পারছেন না। কানদিদে আজান্নাই এমনই একজন সংসদ সদস্য। তাঁর ফেসবুক পেজে [ফ্রেঞ্চ] পোস্ট করা একটি অনুচ্ছেদ অনুযায়ী, তিনি জানতে পেরেছেন প্রেসিডেন্ট বোনি জায়ি স্বপক্ষে যুক্তি দেখিয়ে তেল উত্তোলনের রাজস্বের একটি অংশ দিয়ে একটি বিমান কেনার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। তিনি এই বিমানটি কিনবেন যেন পরবর্তী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তাঁর সম্ভাব্য প্রার্থিতার জন্য বেনিনের সবগুলো দেশে তিনি খুব দ্রুততার সাথে তাঁর প্রচারণা চালিয়ে যেতে পারেন।

এ কারণে প্রেসিডেন্টের জন্য একটি সংস্কারমুক্ত ব্যবস্থাপনার খুব প্রয়োজন। ব্যবস্থাপনাটা সংস্কারমুক্ত হওয়া প্রয়োজন, কেননা সর্বোপরি এই তেল নিয়ে যেন বেনিনের জনগন সুখী থাকে। তারা যেন ভাবে মাটির নিচে তেলের অস্তিত্ব সব সময়েই আছে।

সংসদের আরেকজন সদস্য লাজারে সেহউতো বলেছেন যে, প্রচারমাধ্যমে এই তথ্যটির সম্প্রচার ছিল একটি রাজনৈতিক রটনা। তিনিও তাঁর ফেসবুক পেজে [ফ্রেঞ্চ] একই ব্যাখ্যা দিয়েছেনঃ

Pour que chacun se fasse une idée juste, notons que le Nigeria produit 2,5 millions de pétrole par Jour soit 25 millions de barils en dix jours. L’exploitation de nos 20 millions de baril de pétrole résiduel pourra être effectif vers Septembre 2014. Pour combien de jours ? Qu’est ce qui nous restera quand l’inconnue société qui bavarde actuellement aura retiré ses “billes”, il restera quoi à mon pays ?

Mais tout espoir n’est pas perdu. Sur le Bloc 4, un consortium travaille actuellement. Il s’agit d’un consortium composé de sociétés sérieuses (Shell, Petrobras du Brésil et d’une société “béninoise” créée par un Portugais). Il y a de bons espoirs que ce consortium pourra forer jusqu’à 2000 à 3000 m en profondeur dans la mer afin de nous confirmer si nous cernons effectivement la nappe de pétrole. Nous avons du pétrole comme nous avons de l’eau. Mais il faut que les forages “tombent” sur la nappe.

শুধুমাত্র এ কারণে সবাই সঠিক ধারণাটি পেয়েছে। আমাদেরকে মনে রাখতে হবে যে, নাইজেরিয়া প্রতিদিন ২.৫ মিলিয়ন ব্যারেল তেল উৎপন্ন করে থাকে। এই পরিমানে দশ দিনে দাঁড়ায় ২৫ মিলিয়ন ব্যারেল। ২০১৪ সালের সেপ্টেম্বর মাস নাগাদ আমাদের ২০ মিলিয়ন ব্যারেল অবশিষ্টাংশ তেল উত্তোলন করা শুরু করা যেতে পারে। কিন্তু তা কতো দিনের জন্য? একটি অজ্ঞাত কোম্পানি এই মূহুর্তে আমাদের সাথে কথা বলছে। যখন এই অজানা কোম্পানিটি তাদের চুক্তি শেষ করে দিবে, তখন আমাদের কতটুকু থাকবে ? আমার দেশের জন্য কতটুকু অবশিষ্ট থাকবে ? কিন্তু সব আশা শেষ হয়ে যায়নি। দেশী এবং বিদেশি কোম্পানির সমন্বয়ে গঠিত একটি সংঘ ৪ নম্বর ব্লক নিয়ে বর্তমানে কাজ করছে। আইনসংগত কিছু কোম্পানি (শেল, ব্রাজিল থেকে পেট্রোবাস এবং পর্তুগিজদের দ্বারা গঠিত একটি “বেনিন” কোম্পানি) নিয়েই এই সংঘটি গঠিত হয়েছে। ব্যাপক আশা রয়েছে যে এই সংঘটি সমুদ্রের নিচে সর্বোচ্চ ২,০০০ থেকে ৩,০০০ মিটার গভীরতা পর্যন্ত গর্ত করতে পারবে। সেখানে যথার্থভাবে আমরা তেলের স্তরটি সংজ্ঞায়িত করেছি। আমাদের পানির মতোই তেল আছে। কিন্তু গর্ত করে সেই স্তর পর্যন্ত যেতে হবে।

সংক্ষেপে বলা যায়, এই মূহুর্তে রাজা বেহানজিনের দেশে (এ.কে.এ. বেনিন) কোন নতুন কিছু ঘটেনি। এই নতুন জ্বালানী সম্পদের সম্ভাব্যতার সম্পর্কে এখনই খুশী হওয়াটা নিঃসন্দেহে একটু বেশীই চটজলদি হতে যাচ্ছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .