বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ভিডিও: বিপণী বিতানের বাইরে আক্রমণের শিকার হলেন সৌদি মেয়েরা

A screenshot from the video which shows the scuffle between the man and the girls

নারী এবং পুরুষের ধস্তাধস্তির ভিডিও চিত্রটির একটি স্ক্রিন শট।  

সৌদি আরবের পূর্ব প্রদেশের শহর দাহরানের একটি শপিং মলে অল্প বয়স্ক পুরুষদের দ্বারা নারীদের প্রতি হয়রানির একটি ভিডিও অনলাইনে আলোচনার ঝড় তুলেছে।

ঘটনার এই ভিডিওটিতে একটি শপিং মলের বাইরে মেয়েদের পশ্চাদগামী একটি ভিড় – এবং ছেলে এবং মেয়েদের মধ্যে একটি বিশৃঙ্খল ধাক্কাধাক্কি দেখা যায়। ভিডিওটির অন্য সংস্করণটি ব্যাপক উন্মাদনা সৃষ্টির পরে ইউটিউব থেকে সরিয়ে ফেলা হয়েছে।

এই ইউটিউব ভিডিওতে, যা এখনও পাওয়া যাচ্ছে, সঠিকভাবে দেহের উপরিভাগ আচ্ছাদন না করার জন্য cccoppwew মেয়েদের দায়ী করছে [আরবী ভাষায়]: 

اختي خروجك بحجاب سافر وارتياد الاسواق بدون محرم وبدون ضروره لعدم وجود اغراض معك يدل على عدم الضروره احمي نفسك من ضعاف النفوس والله لو كنتي ملتزمه بحجابك واخذتي اغراضك الضروريه لما تعرض لك احد

الحمد لله على الستر

আমার বোন, আপনি একটি সঠিক হিজাব (পর্দা) ছাড়া বাড়ি থেকে বের হয়েছেন, যেটি আপনাকে পুরোপুরি আবৃত করেনি। আপনি একজন পুরুষ সহচর ছাড়াই মলে গিয়েছেন এবং প্রয়োজন [শপিং মলে যাওয়ার] ছাড়াই আপনি সেখানে গেছেন। কারণ, আপনি সঙ্গে কোন শপিং ব্যাগ বহন করছিলেন না। দুর্বল থেকে নিজেকে রক্ষা করুন। যদি আপনি সঠিকভাবে পোশাক পড়েন এবং প্রয়োজনীয় কেনাকাটা করতে শপিং মলে যান, তবে কেউ আপনাকে কোন বাঁধা দিবে না। শুদ্ধতার জন্য খোদাকে ধন্যবাদ।

যদিও মেয়েদের চুল আচ্ছাদিত, সম্পূর্ণ শরীর জুড়ে কালো জোব্বা এবং একটি আবায়া পরা ছিল, কিন্তু তারপরও আন্দোলনটি হয়েছে খুব সম্ভবত তাদের মুখভঙ্গি আবৃত না থাকার কারণে।

#تحرش_شباب_بفتيات_بالشرقيه হ্যাশট্যাগের অধীনে [আরবী ভাষায়] টুইটারে তাদের পোষাক কোড নিয়ে পুনরায় মন্তব্য করা হয়েছে, যার অর্থ পূর্ব প্রদেশের মেয়েদের হয়রানি করল যুবকরা।

এছাড়াও মানার আল খালিদি মেয়েদের দিকে আঙ্গুল তুলেছেন:

আমি একমত যে অনেক যুবক আছে যাদের কোন লজ্জা এবং আল্লাহর প্রতি ভয় নাই। কিন্তু, মেয়েরা যদি নিজেদের আব্রুর ভেতর রাখত এবং না দেখাতো [তাদের নারীত্বের] তবে কেউই তাদের কাছে ঘেঁষতো না।

এছাড়াও এই টুইটার ব্যবহারকারি সৌদির মেয়েরা মহিলাদের উপর আরোপিত পোষাক কোড কেন কঠোর ভাবে অনুসরণ করছেন না তা নিয়ে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন – পূর্ণ ঢাকা, উপর থেকে নীচে কালো কাপড়ে:

কেন তারা সঠিকভাবে আচ্ছাদিত হয় নি ? মেয়েরা কি জানেনা যে, একটি প্রাণী যখন ক্ষুধার্ত হয় তখন সে তাঁর সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করবে ?

কিন্তু লুমা আল নামি পুরুষদের দোষারোপ করেছেন:

কিছু মানুষ যাদের মানসিকতা পশুদের মত, আমরা ভিডিওতে দেখেছি তাঁরা মেয়েদের দায়ী করছেন। তাঁরা একটি আবর্জনার ব্যাগকেও হয়রানি করবে যদি তাঁরা দেখে এটি চলাফেরা করছে।

সারা একমত হয়েছেনঃ

আমি পুনরাবৃত্তি করছি, মেয়েরা তাদের শরীর কতটুকু দেখাল সেটা কোন ব্যাপার নয়। আপনি যদি একটি জানোয়ার না হন, তবে একটি মেয়েকে হয়রানি করার জন্য আপনার কাছে কোন অজুহাত নেই।

এবং এই ব্যবহারকারীর আক্রমন করা এবং আক্রমনের ভিডিও পোস্ট করা দর্শক সম্পর্কে অভিযোগ করেছেন:

আক্রমণ ভিডিও করা ​​হাস্যকর ব্যক্তিটিকে গ্রেফতার এবং বিচারের আওয়তায় আনা উচিত এবং উচিৎ এ রকম অপরাধের শাস্তির ক্ষেত্রে একটি উদাহরণ তৈরি করা।

ইতিমধ্যে, মুহিব আল শেখ জিজ্ঞেস করেছেন, ঘটনার সময় কর্তৃপক্ষ কোথায় ছিল:

ভিডিওটিতে আমরা মেয়েদের এবং ছেলেদের আচরণ হয়ত উপেক্ষা করলাম। কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছেঃ কর্তৃপক্ষ কোথায় ছিল ? নিরাপত্তা রক্ষীরা কোথায় ছিল ? কমিশন [সদ্গুণ প্রচার ও অনৈতিকতা প্রতিরোধের জন্য সৌদি ধর্মীয় পুলিশ কমিটি] কোথায় ছিল ? এবং ভাল অল্প বয়স্ক পুরুষরা এবং আপনি কোথায় ছিলেন ?

এবং খালিদ একটি সমাধান দিয়েছেন:

সমাধান খুবই সহজ: কেবলমাত্র শতভাগ নারীদের জন্য একটি মল হবে এবং এতে উভয় পক্ষের জন্যই সমস্যার সমাপ্তি ঘটবে। কারণ, অল্প বয়স্ক পুরুষরা কিশোর এবং তাদের থামানোর কোন আইন নাই এবং নারীরা মেক আপ করবেনই। 

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .