বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

জিভি অভিব্যক্তিঃ মালালা’র পাকিস্তান

তালেবানদের ছোঁড়া বুলেট থেকে বেঁচে যাওয়া এবং নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য মনোনীত হওয়া ১৬ বছর বয়সী তরুণী মালালা, যে সারা বিশ্বে তার সমবেদনা ও সাহসের জন্য প্রশংসনীয় হচ্ছে। কিন্তু সে তার দেশ পাকিস্তানে ক্রমেই একপেশে ব্যক্তিত্বে পরিণত হচ্ছে।

মালালার দেশ তাঁকে নিয়ে কেন বিরোধী আচরণ করছে তা জানতে আমরা জিভি অভিব্যক্তির এই সপ্তাহের পর্বে আলোচনা করেছি। এছাড়াও আমরা তার খ্যাতি নিয়ে সামাজিক মিডিয়ার ভূমিকা এবং তার বিরুদ্ধে নেতিবাচক গুজব ছড়ানোর দিকেও দৃষ্টিপাত করেছি।

একজন সক্রিয় কর্মী, ব্লগার এবং গ্লোবাল ভয়েসেস পাকিস্তানের লেখক সানা সালিম (@সানাসালিম) এবং ‘ক্লাস বরখাস্ত’ নামের একটি নিউইয়র্ক টাইমস ফিল্মের সহ-প্রযোজক এবং পাকিস্তানি রিপোর্টার ইরফান আশরাফের সাথে পাকিস্তানি সাংবাদিক এবং আমাদের সহকারী সম্পাদক সাহার হাবিব গাজী (@সাহারএইচগাজী) আলোচনা করেছেন। ক্লাস বরখাস্ত ছবিটি মালালার উপর তৈরি করা আন্তর্জাতিক দর্শকদের জন্য প্রথম তথ্যচিত্র।

উপরন্তু, এই পর্বে পাকিস্তান ও মালালার আদি শহর সোয়াতের শিক্ষার অবস্থা সম্পর্কে আমরা আরও জেনেছি। মালালা সে জায়গাটিকে পৃথিবীর ভূস্বর্গ বলেছে। ২০০৯ সালে পাকিস্তানি সামরিক বাহিনী এই উপত্যকার তালেবানদের উৎখাত করেছে। কিন্তু এখনও এই এলাকায় তরুণদের শিক্ষিত করতে অনেক কষ্ট করতে হচ্ছে। কারণ, শত শত স্কুল তালেবান যোদ্ধারা ধ্বংস করে দিয়েছে। এখনও অনেকগুলো সে পথেই রয়েছে।

মালালা, সোয়াত এবং পাকিস্তানে শিক্ষার বিষয়ে আমাদের টুইটার, ফেসবুক এবং এই ইভেন্টের পাতায় আপনার প্রশ্ন পাঠান। #জিভিঅভিব্যক্তিমালালা  

আরও পড়ুনঃ

মালালা’র উপর জিভি কভারেজ।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .